রবিবার, ২৯ মে 2022 বাংলার জন্য ক্লিক করুন
  
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

   নগর - মহানগর -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
থমকে আছে রাজশাহী শিক্ষা বোর্ড উন্নয়ন

রাজশাহী ব্যুরো :
‘রাজশাহী মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড’ আভ্যন্তরীণ কোন্দল ও হিংসাত্মক মনোভাবে থমকে আছে উন্নয়ন কাজ। কাজের কাজ না হলেও শুধুমাত্র হিংসা ও সুবিধাভোগের লোভে একে অপরকে তুচ্ছতাচ্ছিল্য ও কাদাছোড়ায় ব্যস্ত থাকছেন বোর্ড চেয়ারম্যান ও তার দোষররা। সম্প্রতি বোর্ড চেয়ারম্যান প্রফেসর হাবিবুর রহমানের বিরুদ্ধে নানা অনিয়ম ও সেচ্ছাচারিতার অভিযোগ উঠেছে।

ভুক্তভোগীদের অভিযোগে জানা যায়, বোর্ড চেয়ারম্যান গত ঈদ-উল-ফিতরে অপরাধ চিহ্নিত বা প্রমাণ না করে বরখাস্ত কিংবা সাময়িক বরখাস্ত না করে প্রশাসনিক কর্মকর্তা জাফর ইকবালের বেতন ভাতা অনিয়মতান্ত্রিকভাবে বন্ধ রেখেছেন। চেয়ারম্যানের নামে একটি গাড়ি বরাদ্দ থাকলেও তিনি দুটি গাড়ি ব্যবহার করছেন। একটিতে তিনি নিজে ও অন্যটি তার পরিবার পরিজন ব্যবহার করছেন। চেয়ারম্যানের অসহযোগিতা ও অদক্ষতার কারণে উন্নয়নমূলক কাজ মসজিদ সংষ্কার ও লিফট, জেনারেটর স্থাপন করা সম্ভব হচ্ছে না বলেও অভিযোগ উঠেছে।

অভিযোগ আছে, বোর্ডের কর্মকর্তাদের চাহিদা সংক্রান্ত নথিপত্র আটকে রেখে চাহিদা পুরণ না করে কর্মচারীদের মাঝে অসন্তোষ তৈরি করেন তিনি। প্রেষণ ও বোর্ডের নিজস্ব কর্মকর্তাদের মধ্যে বিভেদ সৃষ্টি করা চেয়ারম্যানের নিত্য নৈমিত্তিক ব্যাপার। যা বোর্ড কর্তৃক গঠিত তদন্ত কমিটির প্রতিবেদনে প্রমাণিত। উল্লেখযোগ্য অভিযোগগুলোর মধ্যে বিদ্যালয় ও কলেজ শাখাসহ গুরুত্বপূর্ণ শাখা সমূহের নথি স্বাক্ষর না করে দীর্ঘ দিন ফেলে রাখা। তার কক্ষে কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা গেলে রাজা বাদশার ন্যায় আচরণ করে বসতে না বলে দাঁড় করিয়ে রাখা।
 
ইতোমধ্যে বোর্ডের সচিব, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক তাঁর দুর্ব্যবহারের শিকার হয়েছেন। বোর্ডে আগত সেবাগ্রহিতাবৃন্দকেও ছাড় দেন না তিনি। মূলত তিনি সিদ্ধান্তহীনতায় ভোগার কারণে কখন কি করবেন তা বুঝে উঠতে না পেরে মূলত উদ্ভট কাজ কর্ম করেন। গত শীতে অকারণে কর্মকর্তাদের কক্ষে আটকিয়ে রেখে তিনি নিজ কক্ষে মোবাইলে ইউটিউবে ভিডিও দেখেন। গত রমজান মাসে ইফতার পার্টির কমিটি গঠন ও দিনক্ষণ ঠিক করে পরে একক সিদ্ধান্তে তা বাতিল করেন। সেই ইফতার আয়োজনে আর্থিকভাবে ক্ষতি হয় বোর্ডের।
 
এদিকে  অভিযোগ উঠেছে, সিলেকশন-১ কমিটির ফাইল তিনি নিজে তার আলমারি রেখে খোঁজাখুঁজি নামে হয়রানি হুমকি ধামকি সহ দেখে নেওয়া কথা বলেছেন। এ বিষয়ে বর্তমানে নিরাপত্তার দ্বায়িত্বে থাকা কর্মকর্তা খোরশেদ আলমকে হুমকি ধামকিসহ চাকুরী খেয়ে ফেলার হুমকি দেন তিনি। পরে অবশ্য সেই ফাইল সচিবের উপস্থিতিতে চেয়ারম্যানের কক্ষের আলমারি থেকে গত ২২ মে উদ্ধার হয়।
প্রসঙ্গত, বোর্ড চেয়ারম্যান কোন গণমাধ্যমকর্মী সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন না। তথ্য চাইলে তথ্য দেন না। তাদের সঙ্গেও দুর্ব্যবহার করেন।

উল্লেখিত অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে বোর্ডে গেলে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা জানান, তিনি (বোর্ড চেয়ারম্যান) নিজে বেলা ১২টায় অফিসে আসেন, অথচ কারণে অকারণে যাচাই বাছাই ছাড়াই কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের অফিস টাইম নিয়ে ব্যবস্থা গ্রহন করছেন।
 
এ বিষয়ে জানতে শিক্ষা বোর্ড চেয়ারম্যানেকে মুঠোফোনে ফোন দিলে তিনি বলেন, কোন প্রকার উন্নয়ন কাজ থেমে নেই। মসজিদে এসি লাগানো হয়েছে। অফিসে যারা যথা সময়ে আসে না তাদেরকে পরিদর্শনের সময় না পেয়ে সর্তক করেছি। আমি কারো সাথে খারাপ ব্যবহার করি না। যারা অভিযোগ দিয়েছে তারা মিথ্যা কথা বলেছে। কারো নথিতে ভুল থাকলে তা আমি ছেড়ে দিতে পারি না। জাফর ইকবালের বেতন ভাতার বিষয়ে সচিবের সঙ্গে কথা বলতে বলেন তিনি।

থমকে আছে রাজশাহী শিক্ষা বোর্ড উন্নয়ন
                                  

রাজশাহী ব্যুরো :
‘রাজশাহী মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড’ আভ্যন্তরীণ কোন্দল ও হিংসাত্মক মনোভাবে থমকে আছে উন্নয়ন কাজ। কাজের কাজ না হলেও শুধুমাত্র হিংসা ও সুবিধাভোগের লোভে একে অপরকে তুচ্ছতাচ্ছিল্য ও কাদাছোড়ায় ব্যস্ত থাকছেন বোর্ড চেয়ারম্যান ও তার দোষররা। সম্প্রতি বোর্ড চেয়ারম্যান প্রফেসর হাবিবুর রহমানের বিরুদ্ধে নানা অনিয়ম ও সেচ্ছাচারিতার অভিযোগ উঠেছে।

ভুক্তভোগীদের অভিযোগে জানা যায়, বোর্ড চেয়ারম্যান গত ঈদ-উল-ফিতরে অপরাধ চিহ্নিত বা প্রমাণ না করে বরখাস্ত কিংবা সাময়িক বরখাস্ত না করে প্রশাসনিক কর্মকর্তা জাফর ইকবালের বেতন ভাতা অনিয়মতান্ত্রিকভাবে বন্ধ রেখেছেন। চেয়ারম্যানের নামে একটি গাড়ি বরাদ্দ থাকলেও তিনি দুটি গাড়ি ব্যবহার করছেন। একটিতে তিনি নিজে ও অন্যটি তার পরিবার পরিজন ব্যবহার করছেন। চেয়ারম্যানের অসহযোগিতা ও অদক্ষতার কারণে উন্নয়নমূলক কাজ মসজিদ সংষ্কার ও লিফট, জেনারেটর স্থাপন করা সম্ভব হচ্ছে না বলেও অভিযোগ উঠেছে।

অভিযোগ আছে, বোর্ডের কর্মকর্তাদের চাহিদা সংক্রান্ত নথিপত্র আটকে রেখে চাহিদা পুরণ না করে কর্মচারীদের মাঝে অসন্তোষ তৈরি করেন তিনি। প্রেষণ ও বোর্ডের নিজস্ব কর্মকর্তাদের মধ্যে বিভেদ সৃষ্টি করা চেয়ারম্যানের নিত্য নৈমিত্তিক ব্যাপার। যা বোর্ড কর্তৃক গঠিত তদন্ত কমিটির প্রতিবেদনে প্রমাণিত। উল্লেখযোগ্য অভিযোগগুলোর মধ্যে বিদ্যালয় ও কলেজ শাখাসহ গুরুত্বপূর্ণ শাখা সমূহের নথি স্বাক্ষর না করে দীর্ঘ দিন ফেলে রাখা। তার কক্ষে কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা গেলে রাজা বাদশার ন্যায় আচরণ করে বসতে না বলে দাঁড় করিয়ে রাখা।
 
ইতোমধ্যে বোর্ডের সচিব, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক তাঁর দুর্ব্যবহারের শিকার হয়েছেন। বোর্ডে আগত সেবাগ্রহিতাবৃন্দকেও ছাড় দেন না তিনি। মূলত তিনি সিদ্ধান্তহীনতায় ভোগার কারণে কখন কি করবেন তা বুঝে উঠতে না পেরে মূলত উদ্ভট কাজ কর্ম করেন। গত শীতে অকারণে কর্মকর্তাদের কক্ষে আটকিয়ে রেখে তিনি নিজ কক্ষে মোবাইলে ইউটিউবে ভিডিও দেখেন। গত রমজান মাসে ইফতার পার্টির কমিটি গঠন ও দিনক্ষণ ঠিক করে পরে একক সিদ্ধান্তে তা বাতিল করেন। সেই ইফতার আয়োজনে আর্থিকভাবে ক্ষতি হয় বোর্ডের।
 
এদিকে  অভিযোগ উঠেছে, সিলেকশন-১ কমিটির ফাইল তিনি নিজে তার আলমারি রেখে খোঁজাখুঁজি নামে হয়রানি হুমকি ধামকি সহ দেখে নেওয়া কথা বলেছেন। এ বিষয়ে বর্তমানে নিরাপত্তার দ্বায়িত্বে থাকা কর্মকর্তা খোরশেদ আলমকে হুমকি ধামকিসহ চাকুরী খেয়ে ফেলার হুমকি দেন তিনি। পরে অবশ্য সেই ফাইল সচিবের উপস্থিতিতে চেয়ারম্যানের কক্ষের আলমারি থেকে গত ২২ মে উদ্ধার হয়।
প্রসঙ্গত, বোর্ড চেয়ারম্যান কোন গণমাধ্যমকর্মী সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন না। তথ্য চাইলে তথ্য দেন না। তাদের সঙ্গেও দুর্ব্যবহার করেন।

উল্লেখিত অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে বোর্ডে গেলে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা জানান, তিনি (বোর্ড চেয়ারম্যান) নিজে বেলা ১২টায় অফিসে আসেন, অথচ কারণে অকারণে যাচাই বাছাই ছাড়াই কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের অফিস টাইম নিয়ে ব্যবস্থা গ্রহন করছেন।
 
এ বিষয়ে জানতে শিক্ষা বোর্ড চেয়ারম্যানেকে মুঠোফোনে ফোন দিলে তিনি বলেন, কোন প্রকার উন্নয়ন কাজ থেমে নেই। মসজিদে এসি লাগানো হয়েছে। অফিসে যারা যথা সময়ে আসে না তাদেরকে পরিদর্শনের সময় না পেয়ে সর্তক করেছি। আমি কারো সাথে খারাপ ব্যবহার করি না। যারা অভিযোগ দিয়েছে তারা মিথ্যা কথা বলেছে। কারো নথিতে ভুল থাকলে তা আমি ছেড়ে দিতে পারি না। জাফর ইকবালের বেতন ভাতার বিষয়ে সচিবের সঙ্গে কথা বলতে বলেন তিনি।

খুলনায় ট্রেনের টিকিট কালোবাজারি, যা বললেন স্টেশন মাস্টার
                                  

খুলনা প্রতিনিধি

খুলনা রেল স্টেশনে টিকিট কালোবাজারির বিষয়ে ৫ কর্মকর্তা-কর্মচারীর বিরুদ্ধে মাস্টারের সাধারণ ডায়েরী (জিডি) করাকে কেন্দ্র করে তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে। এ ঘটনায় স্টেশন মাস্টারকে শোকজ করা হয়েছে। একইসঙ্গে খুলনা রেলের ৫ কর্মকর্তা-কর্মচারীকে বিভিন্ন স্থানে বদলি করা হয়েছে।

অভিযুক্ত চারজনসহ মোট ৫ জনকে বিভিন্ন জেলায় বদলি করা হয়েছে। এর মধ্যে খুলনা রেলওয়ে স্টেশনের ট্রেন এক্সামিনার (টিএক্সআর) বায়তুল ইসলামকে চিলাহাটি, সহকারী স্টেশন মাস্টার মো. আশিক আহম্মেদকে রোহানপুর স্টেশন, সহকারী স্টেশন মাস্টার মো. জাকির হোসেনকে মহেড়া স্টেশন, খালাসি মোল্লা পপিদুর রহমানকে পাবর্তীপুর ও খালাসি জাফর ইকবালকে যশোরে বদলি করা হয়েছে।

এদিকে রোববার রাতে মতবিনিময়কালে খুলনা রেল স্টেশন মাস্টার মানিক চন্দ্র সরকার সাংবাদিকদের বলেন, আমাদের স্টেশনে স¤প্রতি একটি কালোবাজারি চক্র ধরা পড়েছে। আপনারা অবগত আছেন। বিষয়টা রেল ও সরকারের জন্য দুঃখজনক ব্যাপার। অনেকদিন থেকে কিছুটা নলেজে আসছিল। কিন্তু ঈদের আগে থেকে ওরা বেপরোয়া হয়ে গিয়েছিল, সেই বিষয়টা প্রশাসন ও আমাদের রেলওয়ে কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি। কিন্তু তেমন একটা সুবিধা হয়নি। ওরা কাউন্টারে আমার কাছ থেকে জোরপূর্বক টিকিট নেয়ার চাপ প্রয়োগ করে। ওদের বেআইনী দাবি, কথা মানতে পারিনি। তখন আমার উপর শারিরীক নির্যাতনের পরিকল্পনা করে।

বুঝতে পেরে আমার উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে জানালাম। উর্দ্ধতন কর্মকর্তা বললো ঠিক আছে, আপনি একটা জিডি করে রাখেন। আমি জিডি করার ভিত্তিতে পরবর্তীতে পুলিশ প্রশাসন, ম্যাজিস্ট্রেট জেনেছে। তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিয়েছে। তারা বদলি হয়ে যাওয়ার পরে বিভিন্ন মিডিয়াতে অনেকসময় ভুল বক্তব্য দিচ্ছে। এতে খুলনা গুরুত্বপূর্ণ স্টেশনের স্টাফদের দুর্নাম হয়। তারা বলছে, যে মাস্টারের কালো বিড়াল থলে থেকে বের হয়ে যাবে।

তিনি বলেন, ২০১৭ সালে একটি টিকিট নিয়ে মিথ্যা প্রচার করা হয়েছিল। সেটি দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) পর্যন্ত গড়ায়। দুদক ৩১ বার তদন্ত করে দেখে মানিক চন্দ্র সরকারের বিলের পৌনে ২ কাঠা জমি ছাড়া কোন জমি নেই। পুরাতন স্টেশনে লঞ্চ ঘাটে ২০১৭ সালে তেল চুরি হয়েছে ওটা তো আমার জানা ছিল না। আমি পরবর্তীতে পত্র-পত্রিকায় শুনেছিলাম।

উল্লেখ্য, গত ১৬ মে খুলনা রেলওয়ে স্টেশন মাস্টার মানিক চন্দ্র সরকার ট্রেনের টিকেট কালোবাজারে বিক্রির অভিযোগে খুলনা রেল স্টেশনের ৫ জন কর্মকর্তা-কর্মচারীর বিরুদ্ধে খুলনা রেলওয়ে থানায় জিডি করেন।

 

 

মেহেরপুরে সাংবাদিকদের নিয়ে ওরিয়েন্টেশন কর্মশালা
                                  

মেহেরপুর প্রতিনিধি:

 ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাপসুল ক্যাম্পেইন উপলক্ষে সাংবাদিকদের সাথে ওরিয়েন্টেশন কর্মশালার আয়োজন করেছে জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ। বুধবার সকাল সাড়ে ১০ টার দিকে সিভিল সার্জন অফিসের সম্মেলন কক্ষে এ কর্মশালার আয়োজন করা হয়। সভাপতিত্ব করেন সিভিল সার্জন ডাঃ জাওয়াহেরুল আনাম সিদ্দিকী। বক্তব্য রাখেন মেডিকেল অফিসার ডাঃ ফয়সাল হারুন।
 
আগামী ৪ জুন থেকে ৭ জুন পর্যন্ত ৬ মাস থেকে ১১ মাস বয়সী শিশুদের ৮ হাজার ১৮০ জন শিশুকে নীল রংয়ের ১২ থেকে ৬৯ মাস বয়সী শিশুদের ৫৯ হাজার ৭শ ৪৭ জন শিশুকে লাল রংয়ের এ+ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে। জেলার ৪শ ৫৯ টি কেন্দ্রে এ ভিটামিন এ+ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে।  জেলার ইলেকট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়ার সাংবাদিকরা ওরিয়েন্টেশনে অংশ নেয়।


ফেনীতে এমপির মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর নিকট বিএমএমএফ’র স্মারকলিপি প্রদান
                                  

স্বাধীন বাংলা অনলাইন :
জাতীয় গণমাধ্যম সপ্তাহের রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি ও ১৪ দফা বাস্তবায়নের দাবিতে ফেনী-২ (সদর) আসনের সংসদ সদস্য নিজাম উদ্দিন হাজারীর মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবরে স্মারকলিপি প্রদান করেছে বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম বিএমএসএফ ফেনী জেলা শাখার নেতৃবৃন্দ।

কেন্দ্র ঘোষিত এ স্মারকলিপি শুক্রবার বিকেলে এমপির বাসভবনে তার হাতে তুলে দেয়া হয়। তিনি বিএমএসএফের পক্ষ থেকে প্রদানকৃত স্মারকলিপি প্রধানমন্ত্রীর নিকট পৌঁছে দেয়ার প্রতিশ্রুতি দেন। এ সময় উপস্থিত ছিলে ফেনী জেলা কমিটির  সভাপতি (ভারপ্রাপ্ত) ইসহাক চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক  হাসনাত তুহিন) মোঃ মাসুম বিল্লাহ ভূঁইয়া, সাংবাদিক নির্যাতন প্রতিরোধ কমিটির জেলা সভাপতি (প্রস্তাবিত) সোহাগ খান সহ নেতৃবৃন্দ।

এদিকে গত বৃহস্পতিবার ফেনীর এমপি জেনারেল মাসুদ উদ্দিন চৌধুরীর কাছে অনুরুপ স্মারকলিপি তুলে দেয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য, সাংবাদিকদের স্বার্থরক্ষার আন্দোলন বেগবান করতে গত ৫ বছর ধরে ১-৭ মে জাতীয় গণমাধ্যম সপ্তাহ পালন করে আসছে বিএমএসএফ। চলতি বছর ৬ষ্ঠ বারের মত উদযাপিত হচ্ছে। সপ্তাহটিকে রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতির দাবীতে বিএমএসএফের পক্ষ থেকে এ বছর স্থানীয় এমপিদের মাধ্যমে স্মারকলিপি পাঠানোর উদ্যোগ নেয়া হয়।

ফেনী জেলা সম্পাদক হাসনাত তুহিন সংগঠনের বরাত দিয়ে বলেন, দেশে শিক্ষা সপ্তাহ, কৃষি সপ্তাহ, স্বাস্থ্য সপ্তাহ, পুলিশ সপ্তাহ, আনসার সপ্তাহ, পুষ্টি সপ্তাহসহ নানা সপ্তাহ রয়েছে। কিন্তু দুর্ভাগ্য যে সাংবাদিকদের জন্য কোন দিবস কিংবা সপ্তাহ রাষ্ট্রীয়ভাবে উদযাপনের উদ্যোগ নেই। তাই ২০১৭ সালে জাতীয় গণমাধ্যম সপ্তাহের প্রবক্তা ও বিএমএসএফের প্রতিষ্ঠাতা আহমেদ আবু জাফর সপ্তাহটি চালুর ঘোষণা দেন। সেই থেকে দেশের বিভিন্ন শাখায ১-৭ মে জাতীয় গণমাধ্যম সপ্তাহ উদযাপিত হয়ে আসছে। সপ্তাহটির মাঝে এবছর পবিত্র ঈদ উল ফিতর থাকায় আনুষ্ঠানিকতা রাখা হয়নি।

রংপুর সমাজ কল্যাণ সংস্থার আয়োজনে ঈদ উপহার বিতরণ
                                  

রংপুর প্রতিনিধি :
রংপুর সমাজ কল্যাণ সংস্থার আয়োজনে ঈদ উপহার ও সাথে ইফতার সামগ্রী বিতরণ করা হয়। শুক্রবার বিকেলে ধাপ মেডিকেল পূর্ব গেট (নর্দান মেডিকেল কলেজ সংলগ্ন) রংপুর সমাজ কল্যাণ সংস্থার কার্যালয়ে অসহায় ও দুস্থদের মাঝে ঈদ উপহার ও ইফতার সামগ্রী বিতরণ করা হয়।

ঈদ উপহার বিতরণ অনুষ্ঠানে রংপুর সমাজ কল্যাণ সংস্থার সভাপতি আবু বক্কর সিদ্দিকের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রংপুর সিটি করপোরেশনের প্যানেল মেয়র  মাহমুদুর রহমান টিটু, উপস্থিত থেকে ঈদ উপহার ও ইফতার বিতরণ করেন রংপুর রিপোর্টার্স ইউনিটির সাধারণ সম্পাদক মোঃ শিমুল ইসলাম, উপমা নার্সিং কলেজের অধ্যক্ষ কাজী মোঃ মশিউর রহমান, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী সাদেকুর রহমান লিখু, টার্গেট নার্সিং কোচিং সেন্টারের পরিচালক হুমায়ুন কবির, রংপুর সমাজ কল্যাণ সংস্থার সাধারণ সম্পাদক খালেদ আনোয়ার পাশা, অর্থ সম্পাদক মানিক চন্দ্র সাহা, দপ্তর সম্পাদক ফারুক হোসেন,  সমাজ কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক মাহমুদ উল হক, সদস্য সচিব আবু সাইদসহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ। প্রায় ২০০ জন অসহায় ও দুস্থদের মাঝে সংস্থার নিজস্ব অর্থায়নে ঈদ উপহার যেমন আতব চাল, সেমাই, সয়াবিন তৈল, চিনি, পাউডার দুধসহ ইফাতার সামগ্রী বিতরণ করা হয়।

ঝালকাঠিতে জমজমাট শপিংমল
                                  

ঝালকাঠি প্রতিনিধি:
ঝালকাঠিতে জমে উঠেছে ঈদের কেনাকাটা। ক্রেতা সাধারণকে আকৃষ্ট করতে ফ্যাশন হাউজগুলোকে সাজানো হয়েছে বর্ণিল সাজে। এমনকি বাজারের বিভিন্ন সড়কের পাশে ছোট বড় দোকান ভাড়া নিয়ে ফ্যাশন হাউজ ও তৈরী পোশাকের দোকান সাজিয়েছে নতুন নতুন ব্যবসায়ীরা। তবে ঈদ যতই ঘনিয়ে আসছে, ততই এখানে বাড়ছে মানুষের ভিড়। সকাল ৮টা থেকে শুরু করে এই ভিড় কখনো কখনও রাত ১২টা পর্যন্তও থাকে। ফ্যাশন হাউজ ও তৈরী পোশাকের দোকানের সাথে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় পিছিয়ে নেই কসমেটিকস বিতানগুলোও।

ঈদকে সামনে রেখে এসব দোকান ও ফ্যাশন হাউজগুলোয় কেনাবেচার ধুম পড়েছে। গতবারের তুলনায় এবার দাম বেশি। তবে পোশাকে এসেছে বেশ বৈচিত্র্য। প্রতিষ্ঠানের সাজসজ্জার কাজ সম্পন্ন করেই দোকানিরা শুরু করেছেন বেচাকেনা। দোকানগুলো ইতিমধ্যে তরুণ-তরুণীদের পদচারণায় মুখরিত হয়ে উঠেছে। এছাড়াও ছিট কাপড়ের দোকানে পছন্দের পোশাক তৈরীর জন্য দর্জিদের কাছে ভিড় করছে তরুণীরা। তাই দিনরাত ব্যস্ত সময় চলছে টেইলরদের।

তবে গত বছরের তুলনায় এবার পোশাকের দাম বেশি হওয়ায় নিম্নবিত্তরা পড়েছেন বিপাকে। তাদের কথা চিন্তা করে ইতিমধ্যে ফুটপাতে বেশ কিছু পোশাকের দোকান দিয়েছে স্বল্প পুঁজির ব্যবসায়ীরা। বাজারের নামিদামী দোকানের চেয়ে দাম কম হওয়ায় এইসব মার্কেটেও জমে উঠেছে বেচাকেনা। তবে গত সপ্তাহের তুলনায় চলতি সপ্তাহে কেনাবেচা অনেকটাই বেড়েছে বলে জানান বিক্রেতারা। ঝালকাঠির ছাড়াও নলছিটি, রাজাপুর ও কাঁঠালিয়া উপজেলার চিত্রও প্রায় অভিন্ন। দেশি পোষাকের প্রতি আকর্ষণ থাকলেও দাম নিয়ে কিছুটা অসন্তোষ রয়েছে।

তবে সুতা সহ যাবতীয় জিনিসপত্রের দাম বৃদ্ধির কারণে এ বছর কাপড়ের দাম কিছুটা বেশি বদে জানিয়েছেন বিক্রেতারা। ঈদ যতই ঘনিয়ে আসছে ততই বাড়ছে ক্রেতাসমাগম। ছিনতাই, রাহাজানি প্রতিরোধে বাড়তি সতর্কতায় রয়েছে পুলিশ সহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। বিভিন্ন মোড়ে আইনশৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনীরকে শতর্ক টহলে দেখা গেছে।

ফেনীতে জাতীয় আইনগত সহায়তা পালন
                                  

ফেনী প্রতিনিধি :

ফেনীতে বিচার বিভাগের আয়োজনে জাতীয় আইনগত সহায়তা দিবস পালন করা হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার জেলা আদালতের সম্মেলন কক্ষে পবিত্র কোরআন ও গীতা পাঠের মাধ্যমে আলোচনা সভা শুরু  হয়।
জেলা লিগ্যাল এইড কমিটির চেয়ারম্যান ও ফেনী জেলা ও দায়রা জজ  ড. বেগম জেবুন নেছারের সভাপতিত্বে এ সভায় বক্তব্য রাখেন, নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মোঃ ওসমান হায়দার, পুলিশ সুপার আবদুল্লাহ আল মামুন, চীফ জুড়িসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট মোহাম্মদ আতাউল হক, অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ সৈয়দ কায়সার মোশাররফ ইউসুফ, ফেনী জেলা কারাগারের জেল সুপার মোঃ আনোয়ারুল করিম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার  মোহাম্মদ বদরুল আলম মোল্লা, ফেনী জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি এড. নুরুল  ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক এড. মোঃ গিয়াস উদ্দিন, পিপি এড. হাফেজ আহমেদ, জিপি এড. প্রিয় রঞ্জন দত্ত এবং এড. গোলাম কিবরিয়া প্রমুখ।

সভায় জেলা ও দায়রা জজ ড. বেগম জেবুন্ নেছা বলেন, আমরা যদি ‘আইনগত সহায়তা প্রদান আইন ২০০০’ এর প্রস্তাবনার প্রতি দৃষ্টি দেই তাহলে দেখবো বলা হয়েছে ‘আর্থিকভাবে অস্বচ্ছল, সহায় সম্বলহীন এবং নানাবিধ আর্থ-সামাজিক কারণে বিচার প্রাপ্তিতে অসমর্থ বিচারপ্রার্থী জনগণকে আইনগত সহায়তা প্রদান করার উদ্দেশ্যেই ’ উক্ত আইনটি প্রণীত  হয়েছে। অর্থাৎ এই আইনের প্রস্তাবনা দ্বারা স্পষ্ট যে, বাংলাদেশ সংবিধানের ২৭ ও ৩১ অনুচ্ছেদে মৌলিক অধিকারের বাস্তবায়নকে ২০০০ সনের এই আইন দ্বারা জোরদার করা হয়েছে। বাংলাদেশের প্রতিটি জেলার জেলা লিগ্যাল এইড  কমিটির বিজ্ঞ সদস্যবৃন্দ, জেলা লিগ্যাল এইড অফিসার, সকল পর্যায়ের বিজ্ঞ বিচারকগণ, বিজ্ঞ আইনজীবীগণ সহ আইনগত সহায়তা প্রদানের সাথে জড়িত তালিকাভুক্ত আইনজীবীগণ সহ সংশ্লিষ্ট সকল দপ্তরের সম্মানিত ব্যক্তিবর্গ যদি ২০০০ সনের এই আইন বাস্তবায়নের জন্য নিরলসভাবে কাজ করে যান-তবেই এই আইন প্রণয়নের উদ্দেশ্য সফলভাবে পূরণ করা সম্ভব এবং দিবসটি উদযাপন করা যৌক্তিক হয়ে  উঠে।
 
সভা শুরুর আগে  জাতীয় আইনগত সহায়তা দিবস ২০২২ উদযাপন উপলক্ষে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালি  জেলা জজ আদালত প্রাঙ্গণ থেকে শুরু হয়ে ট্রাঙ্ক রোড় ঘুরে শহীদ  মিনার  হয়ে জেলা জজ আদালত প্রাঙ্গণে এসে শেষ হয়। লিগ্যাল এইডের মামলা পরিচালনায় গুরুত্বপূর্ণ অবদানের জন্য এড. আবদুছ ছাত্তার  এবং এড. রহিমা খাতুন  হেলপী সেরা প্যানেল আইনজীবী পুরস্কার লাভ করেন। জেলা লিগ্যাল এইড কমিটির চেয়ারম্যান এবং জেলা ও দায়রা জজ ড. বেগম জেবুন্ নেছা সেরা প্যানেল আইনজীবীদের হাতে ক্রেস্ট তুলে দেন। অনুষ্ঠানটির সঞ্চালনায় ছিলেন সহকারী জজ মোঃ নিজাম উদ্দীন।

ভুল চিকিৎসায় রোগী মৃত্যুর অভিযোগ
                                  

আরিফ হোসেন,বরিশাল:
বরিশাল নগরের সৈয়দ হাতেম আলী কলেজ চৌমাথা সংলগ্ন সেন্ট্রাল হসপিটাল এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারের ভুল চিকিৎসায় রোগীর মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। পাশাপাশি মৃত্যুর ঘটনায় প্রতিবাদ করায় রোগীর স্বজনদের আটকে মারধর এবং পরে হাসপাতালের স্টাফদের গণধোলাই দেওয়ার খবর মিলেছে। ঘটনাটি বৃহস্পতিবার রাতে ঘটেছে।

মৃত রুবি আক্তার নগরের ২৮ নম্বর ওয়ার্ডের দিয়াপাড়া এলাকার রফিক সিকদারের স্ত্রী। রুবির দেবর সুমন সিকদার বলেন, আমার ভাবি রুবি আক্তার গর্ভবতী ছিলেন। বৃহস্পতিবার সকালে ব্যথা ওঠায় ৮টায় ভর্তি করা হয়। সন্ধ্যা ৬টায় বরিশাল জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয়ের মেডিক্যাল অফিসার ডা. মুন্সী মুবিনুল হক সিজার করার জন্য অপারেশন থিয়েটারে প্রবেশ করে। কিছুক্ষণ পরই বের হয়ে জানান ভাবি মারা গেছে। তবে বাচ্চা সুস্থ আছে। কিন্তু অপারেশন থিয়েটারে প্রবেশের আগে ভাবি পুরোপুরিই সুস্থ ছিল। ভাবি কিভাবে মারা গেছে সেটা জানতে চাইলে আমাদের সঙ্গে হাসপাতালের স্টাফরা খারাপ ব্যবহার করে। পাশাপাশি যে পরীক্ষাগুলো দেওয়া হয়েছিল সেই পরীক্ষার রিপোর্টগুলোতে তারিখ দেওয়া রয়েছে ২০১৫ সালের ২ ফেব্রুয়ারি। এর প্রতিবাদ করলে আমাদের আটকে মারধর করা হয়। বিষয়টি স্থানীয়রা টের পেয়ে আমাদের উদ্ধার করে এবং হাসপাতালের স্টাফদের গণধোলাই দেয়। এরপরেই হাসপাতালের স্টাফরা পালিয়ে যায়।

প্রত্যক্ষদর্শী জাহাঙ্গীর আলম বলেন, রোগীর স্বজন ও হাসপাতাল স্টাফদের মারামারির পর স্বজনদের কয়েকজন হাসপাতালে ইট নিক্ষেপ করে। কিছুক্ষণ পর হাসপাতালের স্টাফরা পালিয়ে যায়। এদিকে হাসপাতালে গিয়ে কোনো চিকিৎসক বা স্টাফ পাওয়া যায়নি। দেখা যায়নি কোনো রোগীকেও। এই বিষয়ে বরিশাল জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয়ের মেডিক্যাল অফিসার ডা. মুন্সী মুবিনুল হকের সঙ্গে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি। সরকারি ওয়েব সাইটে যে নাম্বারটি দেয়া রয়েছে সেটি রিসিভ করে অন্য এক ব্যক্তি। আর হাসপাতালেও তাকে পাওয়া যায়নি।

বরিশাল কোতয়ালি মডেল থানার পরিদর্শক লোকমান হোসেন বলেন, রোগী মৃত্যু নিয়ে স্বজন ও হাসপাতালের লোকজনের সঙ্গে ঝামেলার খবর শুনে এখানে এসেছি। এসে হাসপাতালের কাউকে পাইনি। তাদের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করছি। মৃত রোগীর স্বজনদের পক্ষ থেকে অভিযোগ দেওয়া হলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় লিগ্যাল এইড দিবস উপলক্ষে র‌্যালী ও আলোচনা সভা
                                  

মোঃ রেজাউল, ব্রাহ্মণবাড়িয়া:
“বিনা খরচে নিন আইনি সহায়তা, শেখ হাসিনার সরকার দিচ্ছে এই নিশ্চয়তা” এই প্রতিপাদ্যকে সামনের রেখে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় জাতীয় লিগ্যাল এইড দিবস পালিত হয়েছে। দিনটি উপলক্ষে বৃহস্পতিবার জেলা লিগ্যাল এইড কমিটির আয়োজনে সকালে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা জজ কোর্ট প্রাঙ্গণ থেকে বর্ণ্যাঢ্য র‌্যালী বের হয়। শহর প্রদক্ষিণ শেষে র‌্যালিটি জেলা জজ কোর্ট প্রাঙ্গণে গিয়ে শেষ হয়। পরে জেলা ও দায়রা জজ আদালতের কার্যালয় চত্বরে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে জেলা ও দায়রা জজ ও জেলা লিগ্যাল এইড কমিটির চেয়ারম্যান শারমিন নিগার এর সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট মাসুদ পারভেজ, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট রুহুল আমিন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোল্লা মোহাম্মদ শাহীন, আইনজী সমিতির সভাপতি তানভীর ভূইয়া, সিভিল সার্জন ডাঃ মোঃ একরাম উল্লাহ।
এসময় অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন নারী ও শিশু-৩ এর বিচারক মোঃ আলমগীর কবির, নারী ও শিশু-২ এর বিচারক মোঃ সাদেকুর রহমান, যুগ্ম জেলা জজ দ্বিতীয় আদালত মোঃ নজরুল ইসলাম, আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান বাবুল, প্রেসক্লাব সভাপতি রিয়াজউদ্দিন জামি, সাধারণ সম্পাদক জাবেদ রহিম বিজনসহ অতিরিক্ত প্রথম ও দ্বিতীয় আদালতের বিচারকবৃন্দ এবং আদালতের অন্যান্য বিচরক বৃন্দ। সিনিয়র মিজিস্ট্রেট মোঃ রাকিবুল হাসান রকি ও আফ্রীন আহমেদ হেতি’র সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন লিগ্যাল এইড অফিসার রহিমা আলাউদ্দিন মুন্নি। এসময় বক্তারা বলেন নারী ও শিশুসহ যেকোন ব্যক্তি যদি টাকার অভাবে মামলা করতে না পারেন। অথবা বিনা বিচারে কারাগারে আটক থাকেন। তাহলে আপনারা দেওয়ানি, ফৌজদারি ও পারিবারিক মামলায় সরকারি খরচে আইনগত সহায়তা পাওয়ার জন্য জেলা লিগ্যাল এইড অফিসের সাথে যোগাযোগ করবেন।

নতুন পাঞ্জাবি-লুঙ্গির আশায় এতিমখানার শিশুরা
                                  

বরিশাল প্রতিনিধি :
মিনারুল ইসলাম, বয়স তার ১০ বছর। জন্মের পর চোখে দেখেনি তার বাবাকে। মা দিন মজুরের কাজ করেই চালায় সংসার। তবে বাবা না থাকায় তার ঠিকানা হয়েছে এতিমখানার এতিমদের সঙ্গে। তার মন চাচ্ছে এবার ঈদের নতুন পোষাক পরতে। তবে মিনারের মত বেশ কিছু ছাত্র রয়েছে এতিমখানায় যাদের অনেকেরই বাবা নেই অথবা মা নেই। সবার ইচ্ছে ঈদের নতুন একটা পাঞ্জাবি ও লুঙ্গি পরতে। মাদ্রাসাটি বরিশাল শহরের ৫ নম্বর ওয়ার্ডের পলাশপুর ৭ নম্বর সড়কের গুচ্ছগ্রামের মধ্য কালবার্ড সংলগ্ন এলাকায় অবস্থিত রহমানিয়া কিরাতুল কুরআন হাফেজিয়া মাদ্রাসা ও এতিমখানা।

সরজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, একদিকে মাদ্রাসার উন্নয়ন কাজ অন্যদিকে ঈদে এতিমদের নতুন পোশাক দেওয়া নিয়ে টেনশনে পড়েছেন মাদ্রাসার কতৃপক্ষ। প্রতিবেদককে মাদ্রাসার পরিচালক মাওঃ নুরুল ইসলাম ফিরোজী বলেন, চতুর্থ তলা ভবন নির্মাণের কাজ চলছে। ইতোমধ্যে দ্বিতীয় তলার ছাদ ঢালাইর কাজ শেষ হলেও বর্তমানে অর্থের অভাবে শেষ হচ্ছে না মাদ্রাসার ভবনের উন্নয়ন কাজ। মহামারী করোনা কেটে গেলেও এখন ভবনের নির্মাণ কাজ এবং এতিম শিশুদের প্রতিদিনের খাবার যোগাড় করতে হিমশিম খাচ্ছে কর্তৃপক্ষ।

ফিরোজী বলেন, বেশ কিছু দিন ধরে এতিমখানায় চাল সংকট চলছে। রমজান মাস প্রায় শেষের দিকে। কি করবো ছাত্রদের নিয়ে বুঝতে পারছি না। এতিম শিশুদের দেখবাল করার জন্য নিজের সম্পত্তি বিক্রি করে ২০১৭ সালে এই এলাকায় একটি ভাঙ্গা টিনের ঘর নিয়ে রহমানিয়া কিরাতুল কুরআন হাফেজিয়া মাদ্রাসা ও এতিমখানার চালু করি। তবে মহান আল্লাহ্ তালার ইচ্ছায় আজ এখানে একটি ভবন হয়েছে। কিন্তু বর্তমানে ছাত্র বেড়ে যাওয়ার কারণে নিচ তলায় ছাত্রদের রাখতে খুব সমস্যা হয়ে দাড়িয়েছে। দ্বিতীয় তলার ছাদ ঢালাইর কাজ সম্পন্ন হলেও চার পাশে জানালা না থাকায় ছাত্রদের দ্বিতীয় তলায় নিতে পারছি না। মাদ্রাসার কাজ সম্পন্ন করতে হলে রড, ইট, বালু, সিমেন্ট ও অর্থের প্রয়োজন।

সংবাদকর্মীদের প্রশ্নে ফিরোজী বলেন, এটা বস্তি এলাকা এখানের মানুষ দিন আনে দিন খায়। তাদের নিজের খাবার যোগাড় করতেই কষ্ট হচ্ছে। তারা মাদ্রাসায় সহযোগিতা করবে কিভাবে। এতিমদের জন্য আমার পৈত্তিক সম্পতি বিক্রি করেছি। এমনকি মাদ্রাসার উন্নয়ন কাজের বিভিন্ন এনজিও’র কাছ থেকে লোন নিয়ে কাজ চালিয়েছি। বর্তমানে এনজিও সমিতির কাছেও অনেক টাকার দেনায় আছি। মাদ্রাসায় শতাধিকের বেশি ছাত্র রয়েছে। তাদের তিন বেলা খাবার ও শিক্ষকদের বেতন দিতে বর্তমানে হিমশিম খাচ্ছি। এর মধ্যে মাদ্রাসায় নেই কোন চাল, ডালসহ কোন প্রকারের খাবার। তাই টেনশনেই আমার দিন পার হচ্ছে। এতিমখানাটির এতিম শিশুদের পাশে সমাজের বিত্তবানদের এগিয়ে আসার জন্য অনুরোধ জানিয়েছেন মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ। সাহায্যে দিতে পলাশপুর রহমানিয়া ক্বিরাতুল কুরআন হাফিজি মাদরাসা নামে আল আরাফাহ ইসলামী ব্যাংক, গির্জামহল্লা বরিশাল শাখার সঞ্চায়ী হিসাব নং ০১০১১২০১২৬৪৫৪ অথবা বিকাশ ০১৯২৪৬১২৯১৮ নাম্বারে যোগাযোগ করে সাহায্য পাঠাতে পারেন।

খুবি শিক্ষকের বিরুদ্ধে অপপ্রচার, কোটি টাকার ক্ষতিপূরণ মামলা
                                  

স্বাধীন বাংলা প্রতিবেদক :  
সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের (খুবি) ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগের অধ্যাপক মীর সোহরাব হোসেন সোহার্দের চরিত্র হরণমূলক অপপ্রচার চালিয়ে সম্মানহানির অভিযোগে ১০০ কোটি টাকার ক্ষতিপূরণ মামলা করেছেন তার স্ত্রী সানজিদা খান। বুধবার খুলনার যুগ্ম জেলা জজ প্রথম আদালতে মামলাটি দায়ের করেন তিনি।

মামলায় বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই শিক্ষকসহ ছয়জনকে বিবাদী করা হয়েছে। মামলার বাদী সানজিদা খানের আইনজীবী অ্যাডভোকেট মো. জাকির হোসেন জানান, আদালত আগামী ১৮ মে এ মামলার পরবর্তী দিন ধার্য করেছেন।

মামলায় মূল অভিযোগ আনা হয়েছে ‘বিতর্কিত পোস্টদাতা’ মানিকগঞ্জের শিবালয় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেপের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মো. ফজলে বারীর স্ত্রী জেরিন তাসনিম জুঁইয়ের বিরুদ্ধে।

এ ছাড়া বিতর্কিত পোস্ট শেয়ার ও মন্তব্য করার অভিযোগে ঢাকার সবুজবাগ থানার বাসাবোর এসএম সাইফ আবদুল্লাহর স্ত্রী প্রজ্ঞা তাপসী খান, মিরপুর পুলিশ কনভেনশন হলসংলগ্ন এলাকার আতিকুল হাসানের স্ত্রী জান্নাতুল নাইমা, বীর উত্তম এ কে খন্দকার সড়কের গুলশান ভবনের কাজী এহসানুল হকের স্ত্রী প্রমা এহসান খান এবং খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা ভাষা ও সাহিত্য বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মৌমিতা রায় ও ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগের অধ্যাপক শেখ মাহমুদুল হাসানকেও বিবাদী করা হয়।

এজাহারে উল্লেখ করা হয়, জেরিন তাসনিম জুঁই ২০২০ সালের ৫ অক্টোবর তার ফেসবুক `জেরিন.তাসনিম-৩` নামে আইডিতে অধ্যাপক মীর সোহরাব হোসেন সোহার্দের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানি-সংক্রান্ত অভিযোগ পোস্ট করেন। পরে অন্যরা সেগুলো যাচাই না করেই সমর্থন জানিয়ে নিজ নিজ ফেসবুক আইডিতে শেয়ার ও মন্তব্য করেন, যা বিভিন্ন পত্র-পত্রিকায় প্রকাশ হয়।

মামলায় সানজিদা খান উল্লেখ করেন, বিবাদীরা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তার স্বামীর চরিত্র হরণমূলক অপপ্রচার চালিয়ে তার সম্মানহানি করেছেন। এতে তিনি সামাজিক-পারিবারিক ও কর্মস্থলসহ দেশে-বিদেশে হেয় হয়েছেন।

রাজশাহীতে ওষুধের দোকানে হামলা; মামলা নিতে গড়িমসি; ব্যবসায়ীদের আল্টিমেটাম
                                  

শামসুল ইসলাম, রাজশাহী:
রাজশাহী মহানগরীর লক্ষীপুরে একটি ওষুধের দোকানে হামলার ঘটনায় মামলা না নেওয়ার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করেছেন রাজশাহীর সকল ওষুধ ব্যবসায়ীবৃন্দ।

রবিবার (১৭ এপ্রিল) বেলা ১২টায় লক্ষীপুরে অবস্থিত বাংলাদেশ কেমিষ্ট এন্ড ড্রাগিষ্ট অ্যাসোসিয়েশন রাজশাহী শাখার কার্যালয়ে ঔষধ ব্যবসায়ীদের পক্ষে সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন রফিকুল ইসলাম শামীম, মাফাচিয়েতুল ইসলাম, আনসারুল ইসলাম, শফিকুজ্জামান ও আলম খান ডাবলু প্রমুখ।
 
সংবাদ সম্মেলনে ব্যবসায়ীরা বলেন, গত ১০ এপ্রিল রবিবার রাজশাহী লক্ষীপুরে অবস্থিত আস্থা ফার্মেসীতে ঔষধ কেনাকে কেন্দ্র করে বাককিতন্ডায় জড়ায় এক ক্রেতা। এক পর্যায় অতর্কিত হামলা চালায় দুর্বৃত্তরা। উক্ত ঘটনায় সেইদিন রাজপাড়া থানায় ঘটনার বরাতে লিখিত অভিযোগ দেওয়া হয়। কিন্তু উপরের অদৃশ্য চাপে মামলা নিতে পারছেন না বলে জানান ওসি। অথচ এই হামলার সম্পূর্ণ সিসিটিভি ফুটেজ ফার্মেসীর পক্ষে স্বাক্ষ্য দেয়। তবুও পুলিশ কেন আমাদের মামলা না নিয়ে হামলাকারীদের মামলা নিলো তা আমাদের বোধ্যগম্য হয়নি।

গত ১০ এপ্রিলের ঘটনার সময় উপস্থিত ঔষধ ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে জানা সংক্ষিপ্ত বিররনী তুলে ধরে বলেন, সেইদিন আস্থা ফার্মেসীর মালিক ও দোকানের কর্মচারীরা স্বাভাবিক দিনের মত ব্যবসার কাজে ব্যস্ত ছিলো। এক দম্পতি সেদিন ঔষধ নেয়ার জন্য কিছু ঔষধের হিসাব করছিলো এবং হঠাৎ তারা ক্ষিপ্ত হয়ে বলতে থাকে ঔষধের দাম বেশি, ঔষধগুলো অন্য দোকান থেকে নিবো। তবে তারা দোকানদারকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করতে থাকে। এক পর্যায়ে তারা চলে যায়। তার কিছুক্ষন পর তারা আবারো ফিরে আসে এবং গালিগালাজ করতে করতে এক পর্যায়ে আস্থা ফার্মেসীর মালিক বাবুকে মারধর করতে শুরু। যা সিসিটিভি ক্যামেরার ফুটেজে স্পষ্ট দেখা যায়। প্রায় ৮ থেকে ৯ জন পুরুষ মহিলা হামলাকারী তাদের উপর চড়াও হয়ে এ হামলা করে। নিরুপাই হয়ে পুলিশের দারস্থ হলেও পুলিশের কোন ভুমিকা দেখা যায়নি।
 
তারা আরও বলেন, ওসি রাজপাড়া এ ঘটনার আসামীর পক্ষের পক্ষপাতিত্ব করে অন্যায়ভাবে তাদের মামলা নেয়। কোন অদৃশ্য শক্তির বলে ওসি নিরুপায় তা আমাদের জানা নেই। তবে আমরা এই ঘটনার সাথে জডিতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই।

আগামী ৩ কার্যদিবসের মধ্যে থানা যদি আস্থা ফার্মেসীর মালিকের মামলা না নেয় তবে আগামী ২১ শে এপ্রিল অর্ধদিবস ঔষধের দোকান বন্ধ করে প্রতিবাদ জানানো সহ আগামীতে কঠোর আন্দোলনের হুশিয়ার দেন ঔষধ ব্যবসায়ীরা।

এ বিষয়ে রাজপাড়া থানার ওসি জাহাঙ্গীর আলম বলেন, ব্যবসায়ীরা অভিযোগ দিয়েছে সেটা তদন্ত করছি। হামলাকারীদের পক্ষে মামলা নিলেন কেন? এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন কারা হামলাকারী তা তদন্তের বিষয়।

সেই যুবককে খুঁজে বের করার গল্প বললেন ফারিয়া
                                  

স্বাধীন বাংলা প্রতিবেদক :
সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল এক যুবককে খুঁজে বের করেছেন লাক্স সুপারস্টার মডেল ও অভিনেত্রী ফারিয়া শাহরিন। গত কয়েকদিন আগে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল একটি ভিডিওতে দেখা যায়, ব্যস্ত রাস্তায় দাঁড়িয়ে চলন্ত বাসযাত্রীদের কাছে দৌঁড়াতে দৌঁড়াতে পানি ও জুস বিক্রি করছেন এক যুবক। একপর্যায়ে একটি চলন্ত বাসের যাত্রীকে দৌড়ে লাফিয়ে জানালা দিয়ে পানির বোতল পৌছে দেন তিনি। এসময় তার মুখে ছিল রাজ্যের হাসি! একই বাস থাকা একজন যাত্রী সেই মুহূর্তটি ভিডিও করেন। ভিডিওটি অল্প সময়েই ছড়িয়ে যায়। বিভিন্ন পেজ থেকে শেয়ার হয়। জীবিকার প্রয়োজনে একজন তরুণের এমন মুহূর্ত প্রশংসা কুড়ায় সকলের।

জানা গেছে, সেই যুবকের নাম মাসুদ। এসএসসি পর্যন্ত পড়ালেখা করেছেন তিনি। চাকরির সন্ধানে ঢাকায় থেকে বর্তমানে অভাবের কারণে রাজধানীর বিভিন্ন সড়কে পানি ও জুস বিক্রি করছেন। বিডি২৪লাইভকে বিষয়টি জানিয়েছেন অভিনেত্রী ফারিয়া শাহরিন। এর আগে বুধবার (১৩ এপ্রিল) এক ফেসবুক স্ট্যাটাসে সেই যুবকের জন্য চাকরি চান ফারিয়া।

সেখানে তিনি লিখেছেন, ‘ফাইনালি এই ভিডিওতে যে ভাইটাকে আপনারা দেখছেন তাকে আমি খুঁজে পেয়েছি। আপনারা যদি কেউ এই ভাইকে আর্থিকভাবে সাহায্য করতে চান। তার বিকাশ নাম্বার ০১৭২৫৯১৫৫১৬। এটা উনি কিনা তার হোয়াটঅ্যাপে কল করে নিশ্চিত হয়েছি। ভাইটার জন্য চাকরি খুঁজছি, দেখি পারি কিনা!

এসময় ফারিয়া আরও জানান, ‘মাসুদ এসএসসি পর্যন্ত পড়েছেন। কেউ যদি উনাকে চাকরি দিতে পারেন দয়া করে উনার এই নম্বরে (০১৮৭৬৪৮০৩১৩) কল করবেন। উনার নাম মাসুদ। উনার একটা চাকরি খুব প্রয়োজন। আমি চেষ্টা করছি। আপনারা যদি আমার আগেই তাকে একটা চাকরি নিয়ে দিতে পারেন তাহলে খুব ভালো হয়। ভাইটার জন্য আমি আমার জায়গা থেকে চেষ্টা করছি। আমি জানি আপনারাও করবেন ইনশাআল্লাহ।’

এ বিষয়ে বিডি২৪লাইভকে ফারিয়া জানান, কয়েকদিন আগে ফেসবুকে এই যুবকের ভিডিওটি চোখে পড়ছিল। সেটা দেখে আমি শেয়ার করছিলাম, কেউ যাতে তাকে খুঁজে দেয়। এরপরে সেই ছেলেটারই কোনো এক কাজিন ভিডিওটি শেয়ার করে জানায়, সংসারের অভাবের কারণেই পানি, জুস বিক্রি করছেন মাসুদ।

পরে সেখানে অনেকে আমাকে মেনশন করলে আমি সেই কাজিনের সাথে যোগাযোগ করি। প্রথমে একটু সন্দেহ লাগছিল। নিশ্চিত হওয়ার জন্য আমি মাসুদের সঙ্গে ভিডিও কলে কথা বলতে চাই। পরে সে হোয়াটসঅ্যাপ খুলে আমাকে ভিডিও কল দেয়। আমি শুটিংয়ে থাকাকালীন তার সঙ্গে কথা বলি। মাসুদের সঙ্গে কথা বলে জানতে পারি, সে খুব কষ্টে আছে। অভাবের কারণেই পানি, জুস বিক্রি করছেন। তার একটা চাকরির প্রয়োজন। তার জন্য চাকরির খুঁজে দেওয়ার চেষ্টা করবো জানিয়ে তার কাছে বিকাশ নাম্বার চাইলাম। কিন্তু সে টাকা নিতে রাজি নয়। বরং একটা জব দিতে পারলে তার উপকার হয় বলে জানায়। পরে তার জন্য কিছু ঈদ সালামির ব্যবস্থা করে পাঠাই।

ফেসবুকে দেওয়া পোস্ট সম্পর্কে ফারিয়া বলেন, প্রথমে আমি ভাবছিলাম পোস্টটা শেয়ার করবো না। পরে ভাবলাম আমার চাকরি খুঁজতে যতোটা সময় লাগবে যদি পোস্টটা শেয়ার করা হয়, তাহলে অনেকেই হয়তো তার সাাহায্য এগিয়ে আসতে পারে বা আমি যেই চাকরি খুঁজে দিবো তার চেয়েও ভালো চাকরির ব্যবস্থা করে দিতে পারে। কারণ এখন অনেকেই এরকম সাহায্যের জন্য এগিয়ে আসে। ‍

নারায়ণগঞ্জে আমরা সত্য কথা বলতে পারি না: আইভী
                                  

স্বাধীন বাংলা প্রতিবেদক :
নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভী বলেছেন, যারা রাজনীতি করে তাদের পক্ষে বিপক্ষে কথা হবেই। আপনারা আমার ভালো কাজের প্রশংসা করুন, মন্দ কাজের গঠনমূলক সমালোচনা করুন। যেন সমালোনা থেকে আমি শিক্ষা নিতে পারি।

বুধবার (১৩ এপ্রিল) বিকালে নগরীর চাষাড়া বালুর মাঠে একটি রেস্তোরায় নারায়ণগঞ্জ জেলা সাংবাদিক ইউনিয়নের উদ্যোগে বাংলাদেশ সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্টের আর্থিক সহয়তার চেক প্রদান ও ইফতার মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

আইভী আরো বলেন, ‘ফুটপাত থেকে হকার তুলতে গেলে এমপি সাহেবের দোহাই দেওয়া হয়। তাহলে ডিসি এসপির কাজ কী? জনগণকে ফুটপাতে হাঁটার ব্যবস্থা করবেন তাঁরা, সেখানেও তাকিয়ে থাকেন যে এমপি সাহেব কী বলবে। নারায়ণগঞ্জ শহরের পরিস্থিতি এখন এমন হয়ে গেছে যে এমপি ভ্রাতৃদ্বয় যেদিকে কথা বলবে, সেদিকে আমাদের কথা বলতে হবে। এর থেকে কি বের হয়ে আসা যায় না। এতো জুজুর ভয় নারায়ণগঞ্জে রাখা ঠিক না।

তিনি আরো বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু সড়কের ফুটপাতকে হকার মুক্ত করতে গিয়ে আমি অসুস্থ পর্যন্ত হয়েছি। কেন কারা কী কারণে এই কাজটি করে, তা আমরা সকলেই জানি। প্রশাসন কোন দিকে থাকবে সেটাও আমরা জানি। সবকিছু মিলিয়ে নারায়ণগঞ্জের অবস্থা এমন হয়ে দাঁড়িয়েছে আমরা সত্য কথা বলতে পারি না।’

তিনি বলেন, ‘নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের যে কাজগুলো করার কথা সেই কাজগুলো আমরা করে যাচ্ছি। এমন কোনো এলাকা নেই যেখানে আমাদের কাজ নেই। আমরা সব কাজ করার চেষ্টা করছি। কোনো সমস্যা থাকলে সমাধান করার চেষ্টা করে যাচ্ছি।’

নারায়ণগঞ্জ সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি আব্দুস সালামের সভাপতিত্বে এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন, নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন, বিএফইউজে এর সভাপতি ওমর ফারুক, বাংলাদেশ সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্টের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সুভাষ চন্দ্র বাদল, বিএফইউজে এর মহাসচিব দীপ আজাদ প্রমুখ।

রাজশাহীতে স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতাকে হত্যা
                                  

রাজশাহী প্রতিনিধি :
মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাবেক সভাপতি নিজামুল ইসলাম খান অথেলকে (৬১) পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ করেছে পরিবারের সদস্যরা। রবিবার (১০ এপ্রিল) বিকেল পৌনে ৫টার দিকে মহানগরীর রাজারহাতা এলাকায় এ হত্যাকান্ড ঘটে। এ ঘটনায় মৃতের প্রতিবেশী হ্যাপি নামের এক ব্যক্তিকে আটক করেছে পুলিশ। বোয়ালিয়া মডেল থানার ওসি মাজহারুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

নিহত নিজামুলের পরিবার ও স্থানীয়রা জানান, গত শনিবার বিকেলে নিজামুল ইসলামের ছোট ছেলে বাড়ির পাশে একটি মাঠে খেলতে যায়। সেখানে হ্যাপির ছেলেও খেলাধুলা করছিল। এক পর্যায়ে ওই দুই শিশুর মধ্যে মারামারির ঘটনা ঘটে।

তারা আরো জানান, রবিবার বিকেলে বাড়ির সামনে হ্যাপির সঙ্গে দেখা হয় অথেলের। এ সময় দুই শিশুর মারামারির বিষয়টি জানতে চাইলে ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন হ্যাপি। এনিয়ে প্রথমে বাকবিতন্ডা ও পরে মারামারির ঘটনা ঘটে। এসময় অথেলকে বেধড়ক পেটান হ্যাপি। এতে অথেল গুরুতর আহত হন। তাকে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে গেলে সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক অথেলকে মৃত ঘোষণা করেন।

বোয়ালিয়া মডেল থানার ওসি মাজহারুল ইসলাম বলেন, ‘খেলাধুলাকে কেন্দ্র করে দুই শিশুর মধ্যে ঝামেলা হয়। এরপর অভিভাবকদের মধ্যে ঝগড়া বিবাদের এক পর্যায়ে এই ঘটনা ঘটে। নিহতের পরিবার দাবি করেছে অথেলকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। ঘটনার পরপরই পুলিশ অভিযান চালিয়ে হ্যাপিকে আটক করেছে।’

ঠাকুরগাঁও আইনজীবি সমিতি নির্বাচনে বঙ্গবন্ধু আইনজীবি পরিষদের নিরঙ্কুশ বিজয়
                                  

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি:

ঠাকুরগাঁও জেলা আইনজীবি সমিতির দ্বি-বার্ষিক নির্বাচনে বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদের জয়জয়কার। সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক সহ ১২ টি পদের মধ্যে ১১ টি পদে জয়লাভ করেছেন তারা। আর এবারই প্রথম বিএনপির প্যানেলের আইনজীবিদের ভরাডুবি হলো।

রোববার সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত ঠাকুরগাঁও জেলা আইনজীবি সমিতির ২০২২-২০২৩ বছরের জন্য দ্বি-বার্ষিক নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনে বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবি পরিষদ এবং জাতীয়তাবাদী আইনজীবি ফোরাম নির্বাচনে অংশ নেয়।

রোববার সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত জেলা আইনজীবি পরিষদ হলরুমে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনে ৮টি পদে উভয় প্যানেলের ২৪ জন আইনজীবি অংশ নেন।

নির্বাচনে বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবি পরিষদ প্যনেলের এড, তোজাম্মেল হক মন্জু ১৬১ ভোট পেয়ে সভাপতি, এড. ফজলুল হক ও এড. আবু মনসুর বাবুল দু’জনে ১১৬ ভোট পেয়ে সহ-সভাপতি, এড. ইমরান আলী ১৪১ ভোট পেয়ে সাধারণ সম্পাদক, এড. আবু আলা মো: হালিমুজ্জামান হেলালী ১১৩ ভোট পেয়ে সহ সাধারণ সম্পাদক, এড. শাহজাহান কবির  ১২৯ ভোট পেয়ে লাইব্রেরী সম্পাদক, এড. আতিকুর রহমান সোহাগ ১১৬ ভোট পেয়ে কমনরুম ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক, এড. ইদ্রিস (১১৬ ভোট), এড. আসাদুজ্জামান(১২২), এড. আবুল কালাম আজাদ (১২৬) এবং এড. জয়ন্ত রায় ১২৬ ভোট পেয়ে সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন।

জাতীয়তাবাদী আইনজীবি ফোরাম প্যানালের এড. নুরুল ইসলাম ১০২ ভোট পেয়ে অর্থ সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন। এবারই প্রথম জাতীয়তাবাদী আইনজীবি ফোরামের ভরাডুবি হলো। আর এই ভরাডুবির জন্য বিএনপির একজন সাবেক আইনজীবী নেতাকে দায়ী করছেন বিএনপির সাধারণ আইনজীবীরা।

দীর্ঘদিন পর বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদ ও আইনজীবী সমন্বয় পরিষদ পুরো প্যানেলে বিজয়ী হওয়ায় অভিনন্দন জানান ডেপুটি এটর্নি জেনারেল ব্যারিস্টার নূর উস সাদিক চৌধুরী।


   Page 1 of 56
     নগর - মহানগর
থমকে আছে রাজশাহী শিক্ষা বোর্ড উন্নয়ন
.............................................................................................
খুলনায় ট্রেনের টিকিট কালোবাজারি, যা বললেন স্টেশন মাস্টার
.............................................................................................
মেহেরপুরে সাংবাদিকদের নিয়ে ওরিয়েন্টেশন কর্মশালা
.............................................................................................
ফেনীতে এমপির মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর নিকট বিএমএমএফ’র স্মারকলিপি প্রদান
.............................................................................................
রংপুর সমাজ কল্যাণ সংস্থার আয়োজনে ঈদ উপহার বিতরণ
.............................................................................................
ঝালকাঠিতে জমজমাট শপিংমল
.............................................................................................
ফেনীতে জাতীয় আইনগত সহায়তা পালন
.............................................................................................
ভুল চিকিৎসায় রোগী মৃত্যুর অভিযোগ
.............................................................................................
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় লিগ্যাল এইড দিবস উপলক্ষে র‌্যালী ও আলোচনা সভা
.............................................................................................
নতুন পাঞ্জাবি-লুঙ্গির আশায় এতিমখানার শিশুরা
.............................................................................................
খুবি শিক্ষকের বিরুদ্ধে অপপ্রচার, কোটি টাকার ক্ষতিপূরণ মামলা
.............................................................................................
রাজশাহীতে ওষুধের দোকানে হামলা; মামলা নিতে গড়িমসি; ব্যবসায়ীদের আল্টিমেটাম
.............................................................................................
সেই যুবককে খুঁজে বের করার গল্প বললেন ফারিয়া
.............................................................................................
নারায়ণগঞ্জে আমরা সত্য কথা বলতে পারি না: আইভী
.............................................................................................
রাজশাহীতে স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতাকে হত্যা
.............................................................................................
ঠাকুরগাঁও আইনজীবি সমিতি নির্বাচনে বঙ্গবন্ধু আইনজীবি পরিষদের নিরঙ্কুশ বিজয়
.............................................................................................
ফরিদপুরে সাংবাদিকদের সাথে হাইওয়ে পুলিশের মতবিনিময় সভা
.............................................................................................
ছেলের বিরুদ্ধে মায়ের সংবাদ সম্মেলন
.............................................................................................
৩৭৫টি সিসি ক্যামেরার চোখ বেনাপোল স্থলবন্দর জুড়ে
.............................................................................................
হাসপাতালে ওষুধ কোম্পানীর প্রতিনিধিদের দৌরাত্ম্যে নাজেহাল রোগীরা
.............................................................................................
বরিশালে ইয়াবাসহ কারারক্ষী আটক
.............................................................................................
টিসিবির পণ্য বিতরণে অনিয়ম হলে কঠোর ব্যবস্থা: মসিক মেয়র
.............................................................................................
মানসিক ভারসাম্যহীন নারী জন্ম দিলেন ৩ সন্তান; হাসপাতাল থেকে বাচ্চা চুরি
.............................................................................................
পাবনায় পৌরকর্মচারীকে কুপিয়ে হত্যা: যুবলীগ নেতাসহ আটক ৪
.............................................................................................
ফুটপাত দখলমুক্ত করতে মসিকের অভিযান
.............................................................................................
বরিশালের মেয়ে শাকিলার কৃতিত্ব
.............................................................................................
হোটেল থেকে যুবকের লাশ উদ্ধার; প্রেমিকা আটক
.............................................................................................
বর্ণাঢ্য আয়োজনে ভারতের অতিথিদের নাগরিক সংবর্ধনা রাসিক মেয়রের
.............................................................................................
গণ টিকা কার্যক্রম সফল করতে ফরিদপুর পৌরসভার তৎপরতা
.............................................................................................
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ময়লা-আবর্জনার দুর্গন্ধে অতিষ্ট নগরবাসী
.............................................................................................
মাদারীপুরে মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত
.............................................................................................
শেবাচিম হাসপাতালের ৮ চিকিৎসককে একযোগে বদলি
.............................................................................................
রাজশাহীতে বাংলাদেশ-ভারত ৫ম সাংস্কৃতিক মিলনমেলার লোগো ও প্রোমো উন্মোচন
.............................................................................................
রাজশাহীতে ব্যাংক ম্যানেজারের বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগ
.............................................................................................
১০ কাউন্সিলরের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ এনে সাতক্ষীরা পৌর মেয়রের সংবাদ সম্মেলন
.............................................................................................
সাতক্ষীরার ডিসি করোনায় আক্রান্ত
.............................................................................................
ফরিদপুরে সাধারণ শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন
.............................................................................................
ডেলিভারির সময় নবজাতকের কপাল কেটে ফেলার অভিযোগ
.............................................................................................
গাজীপুর উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের প্রথম বোর্ডসভা অনুষ্ঠিত
.............................................................................................
ফরিদপুরে বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা
.............................................................................................
জয়নাল হাজারীর কবরে ভক্তের চিরকুট ‘ক্ষমা করবেন হে বীর’
.............................................................................................
ফরিদপুরে পৌর মেয়রকে নতুন বছরের শুভেচ্ছা
.............................................................................................
ফরিদপুর জেলা ছাত্রলীগের উদ্যোগে কম্বল বিতরণ অনুষ্ঠিত
.............................................................................................
গাজীপুরে মানুষের কংকাল চুরি, আতঙ্কে এলাকাবাসী
.............................................................................................
রোগীর চাপে বেহাল অবস্থায় ফেনী সদর হাসপাতাল
.............................................................................................
চাঁপাইনবাবগঞ্জে শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের আলোচনা সভা
.............................................................................................
মাদারীপুরে বিচার বিভাগের উদ্যোগে মহান বিজয় দিবস পালন
.............................................................................................
শরীয়তপুরে কৃষক দলের ৪১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন
.............................................................................................
ফরিদপুরে আন্তর্জাতিক দুর্নীতি বিরোধী দিবস উপলক্ষে মানববন্ধন
.............................................................................................
সাতক্ষীরা মুক্ত দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

সম্পাদক ও প্রকাশক : মোহাম্মদ আখলাকুল আম্বিয়া
নির্বাহী সম্পাদক: মাে: মাহবুবুল আম্বিয়া
যুগ্ম সম্পাদক: প্রদ্যুৎ কুমার তালুকদার

সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক কার্যালয়: স্বাধীনতা ভবন (৩য় তলা), ৮৮ মতিঝিল বাণিজ্যিক এলাকা, ঢাকা-১০০০। Editorial & Commercial Office: Swadhinota Bhaban (2nd Floor), 88 Motijheel, Dhaka-1000.
সম্পাদক কর্তৃক রঙতুলি প্রিন্টার্স ১৯৩/ডি, মমতাজ ম্যানশন, ফকিরাপুল কালভার্ট রোড, মতিঝিল, ঢাকা-১০০০ থেকে মুদ্রিত ও প্রকাশিত ।
ফোন : ০২-৯৫৫২২৯১ মোবাইল: ০১৬৭০৬৬১৩৭৭

Phone: 02-9552291 Mobile: +8801670 661377
ই-মেইল : dailyswadhinbangla@gmail.com , editor@dailyswadhinbangla.com, news@dailyswadhinbangla.com

 

    2015 @ All Right Reserved By dailyswadhinbangla.com

Developed By: Dynamic Solution IT