রবিবার, ৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ বাংলার জন্য ক্লিক করুন
  
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

   শিক্ষা -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
ইবিতে অর্থনীতি বিভাগের প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের পুনর্মিলনী

ইবি, প্রতিনিধি:

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে (ইবি) অর্থনীতি বিভাগের প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের নিয়ে পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে ১৯৮৭-৮৮ থেকে ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষের সাবেক-বর্তমান শিক্ষার্থীরা অংশগ্রহণ করেন। দিনটি উপলক্ষে শনিবার (৪ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১০টায় মীর মশাররফ হোসেন একাডেমিক ভবন থেকে আনন্দ শোভাযাত্রা বের করা হয়।

শোভাযাত্রাটি ক্যাম্পাসের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে বীরশ্রেষ্ঠ হামিদুর রহমান মিলনায়তনে এসে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের মাধ্যমে শেষ হয়। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে পুনর্মিলনী উদযাপন কমিটির আহবায়ক ও অর্থনীতি বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক ড. কাজী মোস্তফা আরীফের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপাচার্য অধ্যাপক ড. শেখ আবদুস সালাম । বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. মাহবুবর রহমান, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. আলমগীর হোসেন ভুঁইয়া ও সামাজিক অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. এ. কে. এম. মতিনুর রহমান। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মিথিলা তানজিল।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপাচার্য অধ্যাপক ড. শেখ আবদুস সালাম বলেন, অর্থনীতি বিভাগ একটি চক্ষুষ্মান মানুষ তৈরির করার মতো বিভাগ। আমাদের এমন কোন সামাজিক কাজ নেই যেখানে অর্থনীতির প্রবেশ নেই। সুতরাং অর্থনীতি বিভাগ থেকে এমন একটি আয়োজন কাম্য ছিলো এবং তা হয়েছে। এমন আয়োজন শুধু অর্থনীতি বিভাগ থেকে নই প্রত্যেকটি বিভাগ থেকে হোক এ প্রত্যাশা রইলো।

এর আগে গত ৩ ফেব্রুয়ারি বিকেলে মীর মশাররফ হোসেন ভবন চত্বরে পিঠা উৎসব ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে বিভাগটি।

ইবিতে অর্থনীতি বিভাগের প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের পুনর্মিলনী
                                  

ইবি, প্রতিনিধি:

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে (ইবি) অর্থনীতি বিভাগের প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের নিয়ে পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে ১৯৮৭-৮৮ থেকে ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষের সাবেক-বর্তমান শিক্ষার্থীরা অংশগ্রহণ করেন। দিনটি উপলক্ষে শনিবার (৪ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১০টায় মীর মশাররফ হোসেন একাডেমিক ভবন থেকে আনন্দ শোভাযাত্রা বের করা হয়।

শোভাযাত্রাটি ক্যাম্পাসের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে বীরশ্রেষ্ঠ হামিদুর রহমান মিলনায়তনে এসে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের মাধ্যমে শেষ হয়। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে পুনর্মিলনী উদযাপন কমিটির আহবায়ক ও অর্থনীতি বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক ড. কাজী মোস্তফা আরীফের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপাচার্য অধ্যাপক ড. শেখ আবদুস সালাম । বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. মাহবুবর রহমান, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. আলমগীর হোসেন ভুঁইয়া ও সামাজিক অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. এ. কে. এম. মতিনুর রহমান। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মিথিলা তানজিল।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপাচার্য অধ্যাপক ড. শেখ আবদুস সালাম বলেন, অর্থনীতি বিভাগ একটি চক্ষুষ্মান মানুষ তৈরির করার মতো বিভাগ। আমাদের এমন কোন সামাজিক কাজ নেই যেখানে অর্থনীতির প্রবেশ নেই। সুতরাং অর্থনীতি বিভাগ থেকে এমন একটি আয়োজন কাম্য ছিলো এবং তা হয়েছে। এমন আয়োজন শুধু অর্থনীতি বিভাগ থেকে নই প্রত্যেকটি বিভাগ থেকে হোক এ প্রত্যাশা রইলো।

এর আগে গত ৩ ফেব্রুয়ারি বিকেলে মীর মশাররফ হোসেন ভবন চত্বরে পিঠা উৎসব ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে বিভাগটি।

একাদশে ভর্তির চতুর্থ ধাপের আবেদন শুরু ৬ ফেব্রুয়ারি
                                  

স্বাধীন বাংলা ডেস্ক :

অনলাইনে তিন ধাপে আবেদন করেও একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির বাইরে থাকা শিক্ষার্থীদের জন্য চতুর্থ ধাপে আবেদন শুরু হচ্ছে আগামী সোমবার (৬ ফেব্রুয়ারি)। এ ধাপের আবেদন করা যাবে ৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত। এরপর আবেদন যাচাই-বাছাই শেষে ১২ ফেব্রুয়ারি ফল প্রকাশ করা হবে।

বৃহস্পতিবার (২ ফেব্রুয়ারি) ঢাকা শিক্ষা বোর্ড থেকে এ সংক্রান্ত একটি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়েছে।

এতে বলা হয়, শিক্ষার্থী, অভিভাবক ও বিভিন্ন কলেজের অধ্যক্ষদের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ২০২২-২৩ শিক্ষাবর্ষে একাদশ শ্রেণিতে অনলাইনের মাধ্যমে ভর্তির জন্য চতুর্থ (সর্বশেষ) ধাপে আবেদন নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট শিক্ষার্থী, অভিভাবকসহ সবাইকে নির্ধারিত সময়সূচি অনুসরণ করতে বলা হয়েছে। ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের ওয়েবসাইটে www.dhakaeducationboard.gov.bd প্রবেশ করা কলেজের বিদ্যমান শূন্য আসনে সর্বনিম্ন পাঁচটি ও সর্বোচ্চ ১০টি প্রতিষ্ঠান নির্বাচন করতে বলা হয়েছে।

আরও বলা হয়, চতুর্থ ধাপে আবেদন ৬ ফেব্রুয়ারি শুরু হয়ে ৮ ফেব্রুয়ারি রাত ৮টা পর্যন্ত চলবে। ৯ ফেব্রুয়ারি আবেদন যাচাই-বাছাই। ফলাফল ১২ ফেব্রুয়ারি রাত ৮টায় প্রকাশ করা হবে। এ ধাপের শিক্ষার্থীদের সিলেকশন নিশ্চায়ন ও কলেজে ভর্তি ১২ থেকে ১৫ ফেব্রুয়ারি বিকেল ৫টা পর্যন্ত চলবে।

যেসব শিক্ষার্থী আগে আবেদন করেনি বা আবেদন করে কোনো কলেজে মনোনয়ন পায়নি তারা আবেদন করতে পারবে। এর বাইরে যেসব শিক্ষার্থী চূড়ান্ত মনোয়ন পেয়েও কোনো কারণে কলেজে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে ভর্তি হয়নি কিংবা নিশ্চায়ন করতে পারেনি, তারাও আবেদনের সুযোগ পাবে। ২০২২-২৩ শিক্ষাবর্ষে একাদশ শ্রেণির ভর্তি নীতিমালা-২০২২ অনুসরণ করে অনলাইন ছাড়া ম্যানুয়ালি কোনো ভর্তি করা হবে না। এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, অভিভাবক ও শিক্ষার্থীদের আবারও অবহিত করা হয়েছে।

কুবিতে সহকারী প্রক্টর লাঞ্ছিত, দুই ছাত্রলীগ নেতা শোকজ
                                  

কুবি, প্রতিনিধি:

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের(কুবি) সহকারী প্রক্টর ও নৃবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক অমিত দত্তকে লাঞ্ছনার অভিযোগে সেই দুই ছাত্রলীগ নেতাকে শোকজ নোটিশ দিয়েছে
প্রশাসন।

গতকাল মঙ্গলবার (৩১ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় উপাচার্যের সাথে প্রক্টরিয়াল বডির এক জরুরি বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। আগামী দুই কার্যদিবসের মধ্যে `দায়িত্ব পালনকালে সহকারী প্রক্টরকে লাঞ্ছিত করার বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে না কেন?` এই মর্মে যৌক্তিক কারণ দর্শাতে বলা হয়।

শোকজ প্রাপ্ত দুই ছাত্রলীগ নেতা হলেন, শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত হল শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এনায়েত উল্লাহ এবং যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সালমান চৌধুরী।

গত সোমবার (৩০ জানুয়ারি) রাত নয়টার দিকে বঙ্গবন্ধু হলে রুমে অবস্থান করাকে কেন্দ্র করে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ কুবির কয়েকজন নেতাকর্মীর সাথে ছাত্রলীগের দ্বন্দ্ব হয়। ওইসময় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে প্রক্টরিয়াল বডি উপস্থিত হলে একপর্যায়ে সহকারী প্রক্টর অমিত দত্তকে `তুই` সম্বোধন করে মারার জন্য তেড়ে আসার অভিযোগ উঠে দুই ছাত্রলীগ নেতার বিরুদ্ধে। এই অভিযোগের প্রেক্ষিতে প্রশাসন শোকজের সিদ্ধান্ত নেয়।

শোকজ পাওয়ার বিষয় জানতে চাইলে অভিযুক্ত দুই নেতা এনায়েত উল্লাহ ও সালমান চৌধুরী বলেন, প্রশাসনের দেওয়া শোকজ লেটার আমরা হাতে পেয়েছি আজকে দুপুরে। আগামীকালের মধ্যে আমাদের যৌক্তিক ব্যাখ্যা জমা দিতে বলা হয়েছে। আমরা এটার উত্তর আজকে অথবা কালকের মধ্যে দিবো।

এবিষয়ে সালমান চৌধুরী আরো বলেন, এই আমাদের বিরুদ্ধে একটা মিথ্যা অভিযোগ। একজন শিক্ষক কী ধরণের এজেন্ডা নিয়ে আমাদেরকে এমন একটি শোকজ দিলো সেটা বুঝতে পারছি না। আমাদেরকে কেন এধরণের বিতর্কিত কর্মকান্ডের মধ্যে ফাঁসানো হচ্ছে সেটার বিরুদ্ধেও আমরা ব্যবস্থা নিবো।

এই বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. এ এফ এম আবদুল মঈন বলেন, এমন ঘটনা কেন করেছে এর সঠিক কারণ জানতে চেয়ে ওদের দুইজনকে শোকজ লেটার দেওয়া হয়েছে। তাদের দেওয়া এনসারের পর যদি অভিযোগ সত্যি হয় তাহলে প্রশাসনিকভাবে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে, কাউকে কোনো ছাড় দেওয়া হবে না।

ইবির নতুন প্রক্টর শাহাদৎ আজাদ
                                  

ইবি, প্রতিনিধি:

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) নতুন প্রক্টর হিসেবে দায়িত্ব পেয়েছেন ইংরেজি বিভাগের অধ্যাপক ড. শাহাদৎ হোসেন আজাদ। আগামী এক বছর তিনি এ পদে দায়িত্ব পালন করবেন। উপাচার্য অধ্যাপক ড. শেখ আবদুস সালাম তাকে এ পদে নিয়োগ দেন।

বুধবার (১ ফেব্রুয়ারী) ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার এইচ এম আলী হাসান স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে এ তথ্য জানানো হয়।

প্রজ্ঞাপন সূত্রে, গত ২২ ডিসেম্বর ২০২২ ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের অধ্যাপক ড. জাহাঙ্গীর হোসেনের প্রক্টর পদে দায়িত্বের মেয়াদ শেষ হয়। তবে বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্য ২৩ ডিসেম্বর ২০২২ হতে ২৮ জানুয়ারি ২০২৩ (২য় মেয়াদ) পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন প্রক্টর হিসেবে তাঁকে পুনঃনিয়োগদান করেন। এতে গত ২৯ জানুয়ারি নতুন পরিচালক হিসেবে অধ্যাপক ড. শাহাদৎ হোসেন আজাদ তাঁর স্থলাভিষিক্ত হন। তিনি অতিরিক্ত দায়িত্ব পালনকালে বিধি মোতাবেক সুযোগ-সুবিধা পাবেন।

অধ্যাপক ড. শাহাদৎ হোসেন আজাদ বলেন, আমাকে এ পদে নিয়োগদান করায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন সহ সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি। আমি আমার দায়িত্ব পালনে বিশ্ববিদ্যালয়ের সকলের সহযোগিতা কামনা করছি।

উল্লেখ্য, অধ্যাপক ড. জাহাঙ্গীর হোসেন দীর্ঘদিন একান্ত নিষ্ঠা ও আন্তরিকতার সাথে দায়িত্ব পালন করায় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের পক্ষ থেকে তাকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করা হয়।

কোর্ট রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি হাসিব, সম্পাদক জাহাঙ্গীর
                                  

মেহেরাবুল ইসলাম সৌদিপ:

কোর্ট রিপোর্টার্স ইউনিটির (সিআরইউ) আগামী দুই বছরের জন্য (২০২৩-২৪) ১১ সদস্যের নতুন কার্যনির্বাহী কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। কমিটিতে কালের কণ্ঠের সিনিয়র রিপোর্টার হাসিব বিন শহিদকে সভাপতি ও জাগো নিউজের সিনিয়র রিপোর্টার জাহাঙ্গীর আলমকে সাধারণ সম্পাদক করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (৩১ জানুয়ারি) ঢাকার নিম্ন আদালত প্রাঙ্গণে সংগঠনের অস্থায়ী কার্যালয়ে এক সাধারণ সভায় সংগঠনের উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট প্রশান্ত কুমার কর্মকার এ কমিটি ঘোষণা করেন।

কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন- সহ-সভাপতি পদে একাত্তর টেলিভিশনের সিনিয়র রিপোর্টার নাদিয়া শারমিন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পদে রাইজিং বিডির নিজস্ব প্রতিবেদক মামুন খান, সাংগঠনিক সম্পদক পদে কালবেলার নিজস্ব প্রতিবেদক মাসুদ রানা, কোষাধ্যক্ষ পদে সারাবাংলা ডটনেটের নিজস্ব প্রতিবেদক আরিফুল ইসলাম, দপ্তর সম্পাদক পদে ঢাকা পোস্টের নিজস্ব প্রতিবেদক নাইমুর রহমান নাবিল, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক পদে জনবাণীর নিজস্ব প্রতিবেদক আজহারুল ইসলাম সুজন ও তথ্য প্রযুক্তি ও প্রশিক্ষণ সম্পাদক পদে ভোরের কাগজের নিজস্ব প্রতিবেদক রকি আহমেদ।

এছাড়াও কমিটিতে কার্যনির্বাহী সদস্য হিসেবে দ্য ডেইলি স্টারের প্রতিবেদক এমরুল হাসান বাপ্পী ও মানবজমিনের নিজস্ব প্রতিবেদক রাশিম মোল্লাকে মনোনীত করা হয়েছে।

বিশ্ব নাগরিক হিসেবে নিজের স্বপ্নপূরণের জায়গা বিশ্ববিদ্যালয়: উপাচার্য
                                  

রাকিব হাসনাত, (পাবনা) প্রতিনিধি:

পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. হাফিজা খাতুন বলেণ, বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় হলো জ্ঞান অর্জনের মাধ্যমে নিজেকে বিকশিত, আলোকিত, পরিশীলিত করার জায়গা। বিশ্ব নাগরিক হিসেবে নিজের স্বপ্নপূরণের জায়গা। আলোর দিকে যাত্রা শুরুর সর্বোচ্চ প্রতিষ্ঠান। হোচট খেয়ে কীভাবে উঠে দাড়াতে হয় তা শেখার কৌশল শেখায় বিশ্ববিদ্যালয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের জ্ঞানকে নিজের মধ্যে আত্মস্থ করে দক্ষ মানব সম্পদের পাশাপাশি সুনাগরিক হিসেবে গড়ে উঠতে হবে। সর্বোপরি এখান থেকে জ্ঞান অর্জন, আহরণ ও জ্ঞান তৈরী করতে হবে। দেশটাকে ভালোবাসতে হবে, দেশকে বুকে ধারণ করে নিজকে, পরিবার, সমাজ ও দেশকে এগিয়ে নিতে হবে। সবার উপরে দেশমাতৃকা। যে সোনার বাংলার স্বপ্ন দেখেছিলেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। সেই বাংলাদেশ গড়ার জন্য দক্ষ মানবিক আদর্শ মানুষ হিসেবে গড়ে উঠতে হবে। তোমাদের মধ্য থেকে চতুর্থ শিল্প বিপ্লব উপযোগি নাগরিক এখান থেকে তৈরি হবে বলে আমি আশাকরি।

সোমবার (৩০ জানুয়ারি ) দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. এস এম মোস্তফা কামালের সভাপতিত্বে ২০২১-২০২২ শিক্ষাবর্ষের (১৪তম ব্যাচের) শিক্ষার্থীদের নবীনবরণ অনুষ্ঠানে উপাচার্য প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এমন কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, সবসময় ভালো চিন্তা করতে হবে কারণ ভালো চিন্তা  না করলে ভালো কাজ করা যায় না। তোমরা সময়টাকে সুষ্ঠুভাবে ব্যবহার করবে, পড়াশোনার পাশাপাশি এক্্রটা কারিকুলামে অংশগ্রহণ করতে হবে। সবাইকে সম্মান করতে শিখতে হবে। সকলের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হওয়ার বিষয়টি আত্মস্থ করতে হবে। ফুলের সুভাসের মতো নিজেকে মিলিয়ে ধরতে হবে। সহমর্মিতা, দৃঢ়তার বৈশিষ্ট্য অর্জন করে সকলের সমন্বয়ে এগিয়ে যেতে হবে। আলো- অন্ধকারের পার্থক্য বুঝতে, জানতে হবে। এটি নতুন বিশ্ববিদ্যালয় হলেও আমাদের শিক্ষকরা বিশ্বমানের। আমাদের তরুন শিক্ষকরা তোমাদের যোগ্য মানুষ হিসেবে গড়ে উঠতে সাহায্য করবেন। তোমাদের জন্য আমার দ্বার খোলা সবসময়। তিনি বলেন, আমরা সবাই মিলে ইউনিক বিশ্ববিদ্যালয়ে রুপান্তর করবো পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়কে।

এদিকে নবীনবরণকে কেন্দ্র করে ক্যাম্পাসে উৎসবমুখর ও আনন্দঘন পরিবেশ বিরাজ করে। নবীন শিক্ষার্থীদের বরণ করতে ক্যাম্পাস ছিল জাকমজমকপূর্ণ ও বর্ণিল। নবীন শিক্ষার্থীদের পদচারণায় ক্যাম্পাস ছিল কোলাহলমুখর। সকাল ১০টায় স্বাধীনতা চত্ত্বরে পবিত্র ধর্মগ্রন্থ পাঠের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের শুরু হয়। এরপর জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশন করা হয়। স্বাগত বক্তব্য দেন অনুষ্ঠানের আহবায়ক অধ্যাপক ড. এস এম মোস্তফা কামাল খান। এ পর্যায়ে নবীন শিক্ষার্থীদের ফুল দিয়ে বরণ করে নেয়া হয়।

বিশেষ অতিথি ট্রেজারার অধ্যাপক ড. কে এম সালাহ উদ্দীন বলেন, প্রতিটি শিক্ষাঙ্গন এক একটি বাংলাদেশ।  ৫৬ হাজার বর্গমাইলের বাংলাদেশকে বুকে ধারণ করে এগিয়ে যেতে হবে। এই বিশ্ববিদ্যালয়ের মানমর্যাদা বৃদ্ধি পাবে নবীন শিক্ষার্থীদের মাধ্যমে। তোমরা স্মার্ট বাংলাদেশ গড়বে।  আগামীর বাংলাদেশের জন্য প্রযুক্তি নির্ভর করে নিজেকে প্রস্তুত করতে হবে। ৪১ সালের উন্নত বাংলাদেশ গড়ার জন্য তোমাদের এক একজন দক্ষ কারিগর হতে হবে। চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় নিজেকে প্রস্তুত করতে হবে। ব্যর্থ মানুষকে কেউ মনে রাখে না। সফল মানুষ তৈরি করে বিশ্ববিদ্যালয়। তোমরা নিজেকে জানার চেষ্টা করবে সবসময়। নিজের প্রতিভা, মেধা, শক্তি সাহস বের করে আনতে হবে।

সভাপতির বক্তব্যে উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. এস এম মোস্তফা কামাল খান বলেন, রাষ্ট্র সমাজের  বিবর্তনে আলোকিত মানুষ গড়ার জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের সৃষ্টি হয়েছে। আগামী প্রজম্মের রুপকার তোমরা। জাতি ধর্মবর্ণ নির্বিশেষে এই জাতিকে এক  করেছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। তিনি পরাধীনতার শৃঙ্খল ভেঙে বাঙ্গালিকে নতুন দেশ, মানচিত্র দিয়েছে। তাঁকে সবসময় শ্রদ্ধায় স্মরণ করতে হবে। অভিভাবকদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, সন্তান বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়লেও সবসময় তার উপর নজর রাখতে হবে। সন্তান পড়ালেখা ছাড়াও অন্য কোনো ধরণের কর্মকান্ডের সাথে জড়িত তার খোঁজ খবর নিতে হবে।


এ সময় অরও উপস্থিত ছিলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর মোঃ কামাল হোসেন ডিনদের মধ্যে অধ্যাপক ড. মোঃ খায়রুল আলম, অধ্যাপক ড.দিলীপ কুমার সরকার, অধ্যাপক ড.মোঃ হাবিবুল্লাহ, অধ্যাপক ড. মোঃ কামরুজ্জামান, ড. মোঃ রাহিদুল ইসলাম ও ছাত্র উপদেষ্টা ড.সমীরণ কুমার সাহা, নতুন শিক্ষার্থদের মধ্যে জাহানারা খাতুন ও আরেফিন দুর্জয়। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন রেজিস্ট্রার বিজন কুমার ব্রহ্ম। শেষে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

পাঠ্যপুস্তকে ভুল : সংশোধন ও গাফিলতি তদন্তে কমিটি গঠন
                                  

স্বাধীন বাংলা রিপোর্ট : নতুন শিক্ষাক্রমের জন্য ছাপানো পাঠ্যপুস্তকের ভুল সংশোধনে বিশেষজ্ঞ এবং কেন ভুল হল তা তদন্তে প্রশাসনিক কমিটি গঠন করেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

সোমবার মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন- শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে এ দুই কমিটি অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের অধ্যাপক এবং নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য এম ওয়াহিদুজ্জামানকে বিশেষজ্ঞ কমিটির প্রধান করার সিদ্ধান্ত হয়েছে।

অন্যদিকে, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব খালেদা আক্তারকে প্রশাসনিক কমিটির প্রধান করার সিদ্ধান্ত হয়েছে।  

নতুন শিক্ষাক্রমে পাঠ্যবইয়ের ভুল-ভ্রান্তি, তথ্য বিকৃতি, সংশোধনী এবং এ বিষয়ে মন্ত্রণালয়ের পদক্ষেপ নিয়ে গত মঙ্গলবার আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইন্সটিটিউটে এক সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষামন্ত্রী কমিটি করার কথা জানিয়েছিলেন।

সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, একটি কমিটি হবে বিশেষজ্ঞদের নিয়ে, যারা কাজ করবেন ভুল সংশোধন নিয়ে। অন্য কমিটি হবে সরকারের সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের সমন্বয়ে, যারা এ ঘটনার পেছনে ‘কারো ইচ্ছাকৃত ভুল বা অস্থিরতা সৃষ্টির উদ্দেশ্য’ ছিল কি না তা অনুসন্ধান করবে।

কমিটি দুটির বিস্তারিত এখনও জানানো হয়নি। এ বিষয়ে আজকের মধ্যে আদেশ জারি করা হবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তা।

এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষার ফল ৮ ফেব্রুয়ারি
                                  

স্বাধীন বাংলা রিপোর্ট : এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফলাফল আগামী ৮ ফেব্রুয়ারি প্রকাশিত হবে।

আজ রবিবার সকালে আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় সাব কমিটির সভাপতি ও ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক তপন কুমার সরকার এ তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি জানান, আগামী ৭ থেকে ৯ ফেব্রুয়ারির মধ্যে ফল প্রকাশের জন্য শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে প্রস্তাব পাঠিয়েছিল আন্তঃশিক্ষা বোর্ড। প্রধানমন্ত্রী ৮ ফেব্রুয়ারি সময় দেওয়ায় ওই দিন ফল প্রকাশ করা হবে।

ফলাফল প্রকাশে দিন সকাল ১০টা মধ্যে শিক্ষামন্ত্রীর নেতৃত্বে দেশের সব শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান ও পরীক্ষা নিয়ন্ত্রকরা প্রধানমন্ত্রীর কাছে ফলাফলের সারসংক্ষেপ তুলে দেবেন। এরপর দুপুরে শিক্ষামন্ত্রী সংবাদ সম্মেলন করে এ পরীক্ষার ফলাফলের বিস্তারিত তুলে ধরবেন। এদিন দুপুর ১২টা থেকে শিক্ষা বোর্ডের ওয়েবসাইটে ও মোবাইল ফোনে এসএমএস করে ফলাফল জানা যাবে।

এবার ১২ লাখ তিন হাজার ৪০৭ শিক্ষার্থী এইচএসসি পরীক্ষায় অংশ নেন। অন্যদিকে মাদরাসা শিক্ষাবোর্ডের অধীনে আলিম পরীক্ষার্থী ছিলেন ৯৪ হাজার ৭৬৩। আর কারিগরি শিক্ষাবোর্ডের অধীনে এইচএসসি (বিএম/বিএমটি), এইচএসসি (ভোকেশনাল), ডিপ্লোমা-ইন-কমার্স পরীক্ষায় পরীক্ষার্থী সংখ্যা এক লাখ ২২ হাজার ৯৩১ জন।

গত বছরের ৬ নভেম্বর শুরু হয় এই পরীক্ষা। যা চলে ১৩ ডিসেম্বর পর্যন্ত। এরপর ১৫ থেকে ২২ ডিসেম্বর পর্যন্ত ব্যবহারিক পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়।

জবিতে দ্বাদশ রসায়ন অলিম্পিয়াড অনুষ্ঠিত
                                  

মেহেরাবুল ইসলাম সৌদিপ, (জবি) প্রতিনিধিঃ

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে (জবি) দ্বাদশ বাংলাদেশ রসায়ন অলিম্পিয়াড ২০২১ অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে অংশগ্রহণ করা দেশের বিভিন্ন কলেজের ৩৪০ জন শিক্ষার্থী থেকে সেরা ১০ জনকে পুরষ্কৃত করা হয়েছে।

বাংলাদেশ রসায়ন সমিতির আয়োজন ও রসায়ন বিভাগের যৌথ আয়োজনে শনিবার বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মিলনায়তনে এর মূল পর্বের সমাপনী অনুষ্ঠিত হয়েছে।

চলতি বছরের ১৪ জানুয়ারি অলিম্পিয়ার্ড কার্যক্রমের প্রাইমারি রাউন্ডের উদ্বোধন ভার্চুয়ালি অনুষ্ঠিত হয়। অলিম্পিয়াডে প্রাইমারি রাউন্ডে ৩৪০ জন প্রতিযোগী অংশগ্রহণ করে মূল পর্বের জন্য ৯৯জন নির্বাচিত হয়। ফাইনাল রাউন্ডে পরীক্ষার মাধ্যমে বাছাই করে ১০ জনকে বিজয়ী ঘোষণা করা হয়। এরা হলেন নটরডেম কলেজের আর্জ কর, ঢাকা রেসিডেন্সিয়াল মডেল কলেজের তামিম মো. রাঈদ, সরকারী তোলারাম কলেজের আহাদ ইসলাম তালুকদার, সোনারবাংলা কলেজের ইরফান আহমেদ, নটরডেম কলেজের সন্জয় কুমার, চট্রগ্রাম কলেজের নিলয় দেব, ঢাকা রেসিডেন্সিয়াল মডেল কলেজের লিহান হায়দার, চট্রগ্রাম কলেজের আয়মান রাফী, শহীদ স্মৃতি সরকারী কলেজের নিশাত সুলতানা এবং বীরশ্রেষ্ঠ নুর মোহাম্মদ পাবলিক কলেজের অভিষেক মজুমদার।

পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে সেরা ১০ জনকে সার্টিফিকেট, ক্রেস্ট, ক্যালকুলেটর উপহার দেয়া হয় এবং প্রথম স্থান অধিকারীর হাতে একটি ট্যাব তুলে দেয়া হয়। এই সেরা ১০ জনের মধ্যে বাছাইকৃত প্রথম ৪ জনকে প্রশিক্ষণ দিয়ে সুইজারল্যান্ড আন্তর্জাতিক রসায়ন অলিম্পিয়াডে প্রেরণ করা হবে।

রসায়ন বিভাগের চেয়ারম্যান ও অলিম্পিয়ার্ডের আহবায়ক অধ্যাপক ড. শামসুন নাহারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার অধ্যাপক ড. কামালউদ্দীন আহমদ, বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. মো. শাহজাহান এবং বাংলাদেশ ক্যামিকেল সোসাইটির সভাপতি মো. রজিউর রহমান মল্লিক। অলিম্পিয়াডের যুগ্ম আহবায়ক হিসেবে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন অধ্যাপক ড. এ কে এম লুৎফর রহমান।

এসময় ড. শামসুন নাহার বলেন, আগামীর বাংলাদেশকে বঙ্গবন্ধুর আদর্শে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য তোমাদের মতো ক্ষুদে রসায়নবিদদের অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে হবে। আন্তর্জাতিক রসায়ন অলিম্পিয়াডে অংশগ্রহণ করে দেশের সুনাম বৃদ্ধি করতে হবে।

বাংলাদেশ রসায়ন সভাপতি মো. রাজিউর রহমান মল্লিক বলেন, রসায়নে অবদান বৃদ্ধির জন্য প্রতিবছর আমরা জাতীয়ভাবে এই অনুষ্ঠান আয়োজন করে থাকি। বাংলাদেশ রসায়ন সমিতি এ উদ্যোগের মাধ্যমে শিক্ষার্থীরা দেশে বিদেশে যেন তার দক্ষতার পরিচয় দিতে সক্ষম হয় সেটাই আমাদের প্রচেষ্টা।

বাংলাদেশ রসায়ন অলিম্পিয়াডের চূড়ান্ত পরিক্ষা এবং ফলাফল ঘোষণা অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. কামালউদ্দীন আহমেদ।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, `বাংলাদেশ রসায়ন অলিম্পিয়াড ২০৪১ সালের আকাঙ্খা পূরণের উৎস, এই কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্য অর্জনে নতুন প্রজন্মকে এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে। রসায়ন মানুষের মৌলিক চাহিদা পুরণে সহায়তা করে। আমাদের কাঙ্খিত ২০৪১ সালের বাংলাদেশে পৌঁছাতে রসায়নের গুরুত্ব অপরিসীম।`

এছাড়া তিনি উপস্থিত সকল অবিভাবক, কৃতকার্য এবং যারা পরীক্ষায় কৃতকার্য হতে পারেননি তাদের সকলকেই শুভেচ্ছা প্রদান করেন।

নবীনদের বরণ করে নিল ইবির সিওয়াইবি
                                  

মাহমুদুুল হাসান, (ইবি) প্রতিনিধি:

খাদ্যে ভেজাল প্রতিরোধ ও ভোক্তাদের অধিকার নিয়ে কাজ করা তরুণ ভোক্তাদের সংগঠন কনজুমার ইয়ুথ বাংলাদেশ (সিওয়াইবি) ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় শাখার নবীন বরণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার (২৮ জানুয়ারি) দুপুর আড়াই টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের জিমনেসিয়ামের সামনে এই আয়োজন করে সংগঠনটি।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক আজিজুল হক মিরাজ। পরে নবীন সদস্যদের ফুল দিয়ে বরণ করে নেওয়া হয়। এসময় কয়েকজন নবীন সদস্য তাদের অনুভূতি ব্যক্ত করেন।

সংগঠনটির অর্থ সম্পাদক গোলাম রাব্বানির সঞ্চালনায় ভোক্তাদের অধিকার ও দায়িত্ব সম্পর্কে বক্তব্য রাখেন সহ সভাপতি আল আমিন হোসেন, অভিযোগের পদ্ধতি ও প্রতিকার সম্পর্কে বক্তব্য রাখেন সাংগঠনিক সম্পাদক আতিকুর রহমান এবং ভোক্তা অধিকার আইন সম্পর্কে বক্তব্য রাখেন আইন সম্পাদক নওরীন নুসরাত
স্নিগ্ধ। সমাপনী বক্তব্য রাখেন সংগঠনটির সভাপতি শাহেদুল ইসলাম। পরে মধ্যাহ্নভোজের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি হয়।

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে সাম্প্রদায়িকতার কোনো সুযোগ নেই : উপাচার্য
                                  

মেহেরাবুল ইসলাম সৌদিপ, (জবি) প্রতিনিধিঃ

ব্যাপক উৎসাহ, উদ্দীপনা ও আনুষ্ঠানিকতার মধ্য দিয়ে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে (জবি) যথাযোগ্য মর্যাদায় সনাতন ধর্মাবলম্বী শিক্ষার্থীদের অন্যতম ধর্মীয় উৎসব সরস্বতী পূজা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

পূজা উপলক্ষে বৃহস্পতিবার (২৬ জানুয়ারি) সকাল ৮ টা থেকে দিনব্যাপী চলে নানা আয়োজন। বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় পূজা উদযাপন পরিষদের উদ্যোগে এবং বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের সহযোগিতায় পূজার আয়োজন করা হয়।

এবার বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হল এবং পোগোজ ল্যাবরেটরি স্কুল অ্যান্ড কলেজ সহ জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে মোট ৩৭টি মন্ডপে সরস্বতী পূজা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. ইমদাদুল হক এবং কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. কামালউদ্দীন আহমদ পূজামন্ডপসমূহ পরিদর্শন করেন। এসময় বিভিন্ন অনুষদের ডিন, ইনস্টিটিউটের পরিচালক, বিভিন্ন বিভাগের চেয়ারম্যান, প্রক্টর, শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

পূজা মণ্ডপ পরিদর্শন শেষে উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. ইমদাদুল হক বলেন, ধর্ম যার যার, উৎসব সবার। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে সাম্প্রদায়িকতার কোনো সুযোগ নেই। আমাদের সকলকে অসাম্প্রদায়িক চেতনা বাস্তবায়ন করতে হবে। আমরা ক্যাম্পাসকে অসাম্প্রদায়িক করে তুলবো। সবার জন্য উন্মুক্ত। ক্যাম্পাসে সারাবছর সকল ধরণের সাংস্কৃতিক উৎসব অনুষ্ঠিত হবে।

এর আগে সকাল ১০ টায় পূজা শুরু হয়। এসময় প্রতিমা স্থাপন, বাণী আর্চনা ও পুস্পাঞ্জলি প্রদান করা হয়। এছাড়া ধর্মালোচনা শেষে দুপুরে শিক্ষার্থীদের মধ্যে প্রসাদ বিতরণ করা হয়।

সকাল থেকেই পূজা দেখতে ভিড় করে দর্শনার্থী ও শিক্ষার্থীরা। তাদের পদচারণায় মুখরিত হয়ে ওঠে ক্যাম্পাস। পূজা উপলক্ষে ক্যাম্পাসকে সুন্দর করে সাজিয়ে তুলতে রঙ্গিন করে আঁকা হয়েছে আলপনা।

এদিন উৎসবমুখর পরিবেশে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। সকাল থেকেই মন্ডপগুলোতে পূজা দেখতে ভিড় করে দর্শনার্থীরা। শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও দর্শনার্থীদের পদচারণায় মুখরিত হয়ে উঠে ক্যাম্পাস।

পূজা শুরু হওয়ার সাথে সাথেই ঢাকের তালে আর উলুধ্বনিতে মুখরিত হয়ে উঠে ক্যাম্পাস। মণ্ডপগুলোতে  হিন্দু ধর্মাবলম্বী শিক্ষার্থীরা বিদ্যার দেবী সরস্বতীর সামনে প্রার্থনা করছে। অনেকে প্রসাদ গ্রহণ করছে। এছাড়াও বিশ্ববিদ্যালয়ের মুসলিম শিক্ষার্থীদের তাদের হিন্দু বন্ধুদের সাথে কুশল বিনিময় করতে দেখা যায়।

সনাতন ধর্মাবলম্বী শিক্ষার্থীরা প্রার্থনা, সব ধর্ম-বর্ণের মানুষের সমন্বয়ে জ্ঞাননির্ভর এক অসাম্প্রদায়িক চেতনা প্রতিষ্ঠা করাই এ পূজার লক্ষ্য। সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির মাধ্যমে সকল অন্ধকার দূরীভূত হয়ে আলোর পথ প্রসারিত হবে।

গনিত বিভাগের মণ্ডপে পূজা করতে আসা শিক্ষার্থী জয়ন্তী রাণী রায় বলেন, ‘আমাদের বিদ্যার দেবী সরস্বতী। সকাল থেকেই অনেক আনন্দ লাগছে আর ক্যাম্পাসে উৎসবমুখর পরিবেশ বিরাজ করছে। আমাদের সকলের বিদ্যা এবং জ্ঞান যেন আরও বৃদ্ধি পায় দেবীর কাছে সেটাই প্রার্থনা করেছি।`

বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সদস্য সচিব ড. পরিমল বালা বলেন, ‘সরস্বতী পূজার মাধ্যমে অন্ধকার থেকে আলোতে যাত্রার প্রার্থনা করা হয়ে থাকে। প্রকৃত শিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে সারা বিশ্বের অন্ধকার দূরীভূত হবে এবং আলোকিত মানুষ হিসেবে গিড়ে উঠার জন্য প্রার্থনা করা হয় এদিন। আমার আড়ম্বরপূর্ণভাবে পূজা উদযাপনের জন্য সর্বোচ্চ চেষ্টা করেছি।`

দিনব্যাপী এ আয়োজনে নিরাপত্তার কোনো ঘাটতি থাকছে না বলে জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. মোস্তফা কামাল। তিনি বলেন, ‘সুন্দরভাবে পূজা উদযাপিত হচ্ছে। সার্বিক নিরাপত্তায় জন্য প্রক্টরিয়াল বডির সদস্যরা ও পুলিশ বাহিনী কাজ করছে।’

বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের উদ্যোগে আয়োজিত সরস্বতী পূজায় অন্যান্য বছরের মতো এবারও বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে আর্থিক অনুদান প্রদান করা হয়েছে। গত বছর একটি মাত্র পূজামন্ডপে কেন্দ্রীয়ভাবে সরস্বতী পূজার আয়োজন করা হয়েছিল। প্রায় তিন বছর পর আবারও বড় পরিসরে উদযাপিত হয়েছে সরস্বতী পূজা।

অমর একুশে বই মেলায় আসছে কুবির তিন শিক্ষকের বই
                                  

কুবি, প্রতিনিধি:

আসন্ন অমর একুশে বইমেলা ২০২৩ এ প্রকাশিত হতে যাচ্ছে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুবি) বাংলা বিভাগের তিন শিক্ষকের নতুন চারটি বই।এর মধ্যে দুটি গবেষণামূলক গ্রন্থ ও দুটি সম্পাদিত গ্রন্থ রয়েছে।

জানা যায়, তাম্রলিপি প্রকাশনী থেকে অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ গোলাম মাওলার গবেষণামূলক গ্রন্থ `জীবনানন্দ দাশের উপন্যাস পাঠ ও বিবেচনা` নৈঋতা ক্যাফে প্রকাশনী থেকে অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ শামসুজ্জামান মিলকীর গবেষণামূলক গ্রন্থ `বাংলাদেশের কথাসাহিত্য নিয়ে` ও কলি প্রকাশনী থেকে সহকারী অধ্যাপক নূর মোহাম্মদ রাজু সম্পাদিত ম্যাক্সিম গোর্কির `মা`, ও `চে গুয়েভারার ডায়েরি` আসবে। বই মেলার প্রথম দিন থেকে বইগুলো মেলায় পাওয়া যাবে।

জীবনানন্দ দাশের উপন্যাস পাঠ ও বিবেচনা` অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ গোলাম মাওলার বত্রিশ তম বই। এছাড়া বাজারে আসছে তার `বাংলাদেশের সৃজনশীল সাহিত্যে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা` বইটির দ্বিতীয় সংস্করণ।

অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ গোলাম মাওলা বলেন, `জীবনানন্দ দাশকে কবি হিসেবে সবাই চিনে কিন্তু ঔপন্যাসিক হিসেবে জীবনানন্দকে আমাদের পাঠক সমাজ এখনও চিনে না। কারণ জীবনানন্দ দাশ জীবিত অবস্থায় তার কোন উপন্যাস প্রকাশিত হয়নি। আমি এই বইয়ে মূলত ঔপন্যাসিক জীবনানন্দকে তুলে ধরতে চেয়েছি।

এছাড়া `বাংলাদেশের কথা সাহিত্য নিয়ে` বইটি অধ্যাপক ড.মুহাম্মদ শামসুজ্জামান মিলকীর অষ্টম বই। এর আগে তার আরো সাতটি বই প্রকাশিত হয়েছে।

অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ শামসুজ্জামান মিলকী বলেন, এটি আমার গবেষণা প্রবন্ধের সংকলণ। বিভিন্ন সময় বিভিন্ন জার্নালে প্রকাশিত আমার যে গবেষণা প্রবন্ধগুলো আছে সেগুললকে একটা বই আকারে প্রকাশ করেছি। এই প্রবন্ধগুলো বাংলাদেশের সাহিত্যের ৪৭ পরবর্তী বিভিন্ন দিক নিয়ে লেখা। এজন্য আমি বইটির নামকরণ করেছি `বাংলাদেশের কথা সাহিত্য নিয়ে।` এখানে ছোটগল্প, উপন্যাস বিষয়ে লেখা আছে।

এছাড়াও সহকারী অধ্যাপক নূর মোহাম্মদ রাজু সম্পাদিত দুটি বই তার চতুর্থ ও পঞ্চম গ্রন্থ। এ বিষয়ে সহকারী অধ্যাপক নূর মোহাম্মদ রাজু বলেন , `এবারের বইমেলায় আমার দুটি সম্পাদনা গ্রন্থ আসছে। এর আগে দুটি গবেষণা ও একটি কাব্যগ্রন্থ প্রকাশ পেলেও সম্পাদনা এবারই প্রথম। এর মধ্যে রয়েছে `চে গুয়েভারার ডায়েরি` ও ম্যাক্সিম গোর্কির `মা`। দু`টি গ্রন্থই কলি প্রকাশনি থেকে বের হচ্ছে। জনপ্রিয় এই গ্রন্থ দুটি সম্পাদনা করতে পেরে আমি আনন্দিত।

টুর্নামেন্টের দাবিতে ইবির প্রধান ফটকে তালা
                                  

মাহমুদুল হাসান, (ইবি) প্রতিনিধি:

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে (ইবি) আন্তঃবিভাগ ক্রিকেট টুর্নামেন্ট চালুর দাবিতে প্রধান ফটকে তালা দিয়ে আন্দোলন করেছে শিক্ষার্থীরা।

বুধবার (২৫ জানুয়ারি) দুপুর ২টার দিকে এ দাবিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকে তালা লাগিয়ে বিক্ষোভ করেন তারা। পরে প্রক্টরিয়াল বডির আশ্বাসে আন্দোলন স্থগিত করে তালা খুলে দেয় তারা। এর আগে বেলা ১২টার দিকে একই দাবিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের শারীরিক শিক্ষা বিভাগের প্রধান ফটকে তালা ঝুঁলিয়ে দেন শিক্ষার্থীরা।

আন্দোলনকারীদের দাবি, গত তিন বছর ধরে বিশ্বদ্যিালয়ে বার্ষিক ফুটবল, ক্রিকেটসহ অন্যান্য টুর্নামেন্টগুলো আয়োজন করা হচ্ছে না। এছাড়া আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় টুর্নামেন্টগুলোতে টিম পাঠাতে অনীহা প্রকাশ করে কর্র্তৃপক্ষ। এই খাতে আমরা প্রতি বছর ফি দিলেও আন্দোলন করে আমাদের টুর্নামেন্টে অংশ নিতে হয়।

আন্তঃবিভাগ ফুটবল, ক্রিকেটসহ অন্যান্য টুর্নামেন্ট চালুর দাবিতে বুধবার বেলা ১২টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের শারীরিক শিক্ষা বিভাগে তালা ঝুঁলিয়ে বিক্ষোভ করে শিক্ষার্থীরা। এ সময় অফিসে থাকা কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা অবরুদ্ধ হয়ে পড়েন। সেখানে দেড় ঘণ্টা অবস্থানের পর দুপুর ২টার দিকে তারা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকে তালা ঝুঁলিয়ে দেয় শিক্ষার্থীরা। এ সময় ক্যাম্পাস হতে কুষ্টিয়া-ঝিনাইদহগামী শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের বাসগুলো আটকা পড়ে। প্রায় ৩০ মিনিট ধরে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ করতে থাকেন। পরে প্রক্টরিয়াল বডির আশ্বাসে তালা খুলে দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরের সাথে আলোচনায় বসে শিক্ষার্থীরা। এতে দ্রুত সময়ের মধ্যে খেলা চালুর আশ্বাস দেয় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর।

এ বিষয়ে শারীরিক শিক্ষা বিভাগের পরিচালক ড. মোহাম্মদ সোহেল বলেন,‘আমরা আন্তঃবিভাগ ক্রিকেট টুর্নামেন্ট চালুর জন্য বিভাগগুলোতে চিঠি পাঠানোর ব্যবস্থা করেছি। এছাড়াও অন্যান্য খেলাগুলো চালুর বিষয়ে ভিসির সাথে বসে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।’

এ বিষয়ে প্রক্টর অধ্যাপক ড. জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন,‘ শারীরিক শিক্ষা বিভাগের পরিচালকের সাথে কথা বলে শনিবারের ভেতরে বিষয়টি সমাধান করা হবে।’

জবিতে মার্কেটিং বিভাগে নবীন শিক্ষার্থীদের বরণ
                                  

জবি, প্রতিনিধি:

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) মার্কেটিং বিভাগের ১৬ তম ব্যাচ এর নবীন শিক্ষার্থীদের বরণ করে নেয়া হয়েছে। ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী বরণের অনুষ্ঠানটি আয়োজন করে জবি মার্কেটিং ক্লাব।

মার্কেটিং বিভাগের ৫১৩ নম্বর কক্ষে ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থীদের জন্য অনুষ্ঠানটি আয়োজন করা হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মার্কেটিং বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. শেখ রফিকুল ইসলাম। অনুষ্ঠানে নবীনদের উদ্দেশ্যে বক্তব্য রাখেন বিভাগের শিক্ষক অধ্যাপক ড. ইমরানুল হক এবং সহযোগী অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ মাহফুজ। এসময় নবীনদের বরণ করে নিতে অন্যান্য সিনিয়র ব্যাচের শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি একটি উৎসবমুখর পরিবেশ সৃষ্টি করে।

অনুষ্ঠানে মার্কেটিং বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. শেখ রফিকুল ইসলাম শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেন, নবীনরা যেন বিশ্ববিদ্যালয়ের সময়টুকু উপভোগ করার পাশে তার সর্বোত্তম সঠিক ব্যবহার করে। মার্কেটিং বিভাগ নানানভাবে শিক্ষার্থীদের পাশে আছে। তাদের একাডেমিক, এক্সট্রা কারিকুলার অ্যাক্টিভিটিস থেকে শুরু করে যেকোনো ধরনের সাহায্য তারা বিভাগ থেকেই গ্রহণ করতে পারবে। মার্কেটিং বিভাগের ক্লাব গুলোর মাধ্যমে শিক্ষার্থীরা নিজেদের স্কিল ডেভেলপমেন্ট এর অনেক সুযোগ সুবিধা ভোগ করতে পারবে।

অনুষ্ঠানে মার্কেটিং ক্লাবের সভাপতি রায়হান জাব্বার নতুন শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় এর প্রথম বর্ষ থেকেই শিক্ষার্থীরা যেন নিজেদের মেলে ধরে এবং নতুন কিছু শেখার তাগিদ নিয়ে এগিয়ে যায়। মার্কেটিং এর শিক্ষার্থী হিসেবে তাদের কমিউনিকেশন স্কিল ডেভেলপমেন্ট এর প্রতিও তিনি সচেতন হবার পরামর্শ প্রদান করেন।

সিনিয়রের সঙ্গে বেয়াদবি করায় শাবিপ্রবিতে ছাত্রলীগের মারামারি
                                  

শাবিপ্রবি, প্রতিনিধিঃ

সিনিয়রের সাথে বেয়াদবি করা নিয়ে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে হাতাহাতি ও মারামারির ঘটনা ঘটেছে।

বুধবার সকাল সাড়ে ১১টার দিকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের সামনে এ ঘটনা ঘটে বলে জানা গেছে।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, বিশ্ববিদ্যালয় এলাকা সংলগ্ন নয়াবাজার এলাকায় চায়ের দোকানে পায়ের উপর পা তুলে বসা নিয়ে ইংরেজি বিভাগের স্নাতকোত্তরের শিক্ষার্থী রিশাদ ঠাকুর ও জিওগ্রাফি অ্যান্ড এনভায়রনমেন্ট বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী আব্দুর রব নাঈমের কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে নাঈম তার সিনিয়র রিশাদকে মারদর করে। এসময় রিশাদ ঠাকুর চোখে আঘাত প্রাপ্ত হয়।

মারদরের পর রিশাদ হল এ ফিরলে নাঈম আবারো তাকে মারার চেষ্টা করে। এসময় সিনিয়ররা বসে সমাধান করার চেষ্টা করলে নাঈম আবারো ক্ষিপ্ত হয়। এরমধ্যে উভয় পক্ষের মধ্যে হাতাহাতি হয়। হাতাহাতির ঘটনায় নাঈম পড়ে গিয়ে আঘাত পায়। পরবর্তীতে তাকে সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজে ভর্তি করা হয়।

তবে খলিলুর রহমান ও সুমন মিয়া বলেন, ‘ভুল বুঝাবুঝি থেকে এ ঘটনা ঘটেছে। বিষয়টি সমাধান করে দেয়া হয়েছে।’

এ বিষয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের প্রাধ্যক্ষ মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান খান বলেন, ‘সিনিয়র জুনিয়রের মধ্যে একটি অনাকাঙ্খিত ঘটনা ঘটেছে। খবর পেয়ে দ্রুত হলে আসি। পরে দুই গ্রুপের নেতাদের সাথে বসে বিষয়টি সমাধান করে দেয়া হয়েছে। আহত শিক্ষার্থীকে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

দেশের ৬০ শতাংশ প্রতিবন্ধী শিশু আনুষ্ঠানিক শিক্ষার বাইরে : ইউনিসেফ
                                  

স্বাধীন বাংলা ডেস্ক: 

দেশের মোট প্রতিবন্ধী শিশুর ৬০ শতাংশ আনুষ্ঠানিক শিক্ষার বাইরে রয়েছে। প্রতিবন্ধী শিশুদের (৫-১৭ বছর বয়সী) মধ্যে মাত্র ৬৫ শতাংশ শিশু প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এবং মাত্র ৩৫ শতাংশ শিশু মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে নথিভুক্ত রয়েছে বলে জানিয়েছে ইউনিসেফ। দেশের বিপুলসংখ্যক প্রতিবন্ধী শিশু মূলধারার শিক্ষার বাইরে থাকায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছে সংস্থাটি।

মঙ্গলবার (২৪ জানুয়ারি) শিশুদের উন্নতি ও নিরাপত্তা নিয়ে কাজ করা জাতিসংঘের সহযোগী প্রতিষ্ঠান ইউনিসেফের সহায়তায় বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর (বিবিএস) এক জরিপে এ তথ্য উঠে আসে।

জরিপে দেখা গেছে, প্রতিবন্ধী শিশুদের মধ্যে যারা আনুষ্ঠানিক শিক্ষা গ্রহণ করছে, তারা তাদের বয়স অনুপাতে শিক্ষাগতভাবে গড়ে দুই বছরের বেশি সময় পিছিয়ে রয়েছে।

জরিপের তথ্য অনুসারে, বাংলাদেশের ১ দশমিক ৭ শতাংশ শিশু ‘প্রতিবন্ধী ব্যক্তির অধিকার ও সুরক্ষা আইন, ২০১৩’-এ সংজ্ঞায়িত ১২ ধরনের প্রতিবন্ধিতার অন্তত একটি প্রতিবন্ধিতা নিয়ে বেঁচে আছে। অন্যদিকে ৩ দশমিক ৬ শতাংশ শিশুর অন্তত এক ধরনের ‘ফাংশনাল ডিফিকাল্টি’ রয়েছে। ফাংশনাল ডিফিকাল্টির বিভিন্ন ধরনের মধ্যে রয়েছে দেখা, শোনা, আঙুল ব্যবহার করে সূক্ষ্ম কাজ করা, যোগাযোগ, শেখা, খেলা বা আচরণ নিয়ন্ত্রণ।

জরিপে বলা হয়েছে, প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের মধ্যে যারা কাজ করার বয়সী, তাদের মাত্র এক-তৃতীয়াংশ কর্মরত। যেখানে পুরুষদের তুলনায় নারীদের কাজে নিযুক্ত না থাকার সম্ভাবনা অনেক বেশি। আর যদিও প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের মধ্যে যারা সরকারিভাবে নিবন্ধিত, তাদের ৯০ শতাংশ সামাজিক সুরক্ষা হিসেবে ভাতা পান। বেশিরভাগ প্রতিবন্ধী ব্যক্তি (প্রায় ৬৫ শতাংশ) অনিবন্ধিত থেকে যায়।

বাংলাদেশে ইউনিসেফের প্রতিনিধি শেলডন ইয়েট বলেন, বাংলাদেশে প্রতিবন্ধী শিশুদের মধ্যে কতজন শিক্ষা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে, তা তুলে ধরেছে নতুন এ তথ্য। এ শিশুদের জন্য আমাদের আরও অনেক কিছু করা দরকার।

বিবিএসের প্রকল্প পরিচালক ইফতেখাইরুল করিম বলেন, রিপোর্টে প্রকাশিত তথ্য-উপাত্ত বাংলাদেশে প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের অধিকার নিশ্চিত করার জন্য পরিকল্পনা ও উদ্যোগ প্রণয়নে সরকারকে সহায়তা করবে।


   Page 1 of 49
     শিক্ষা
ইবিতে অর্থনীতি বিভাগের প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের পুনর্মিলনী
.............................................................................................
একাদশে ভর্তির চতুর্থ ধাপের আবেদন শুরু ৬ ফেব্রুয়ারি
.............................................................................................
কুবিতে সহকারী প্রক্টর লাঞ্ছিত, দুই ছাত্রলীগ নেতা শোকজ
.............................................................................................
ইবির নতুন প্রক্টর শাহাদৎ আজাদ
.............................................................................................
কোর্ট রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি হাসিব, সম্পাদক জাহাঙ্গীর
.............................................................................................
বিশ্ব নাগরিক হিসেবে নিজের স্বপ্নপূরণের জায়গা বিশ্ববিদ্যালয়: উপাচার্য
.............................................................................................
পাঠ্যপুস্তকে ভুল : সংশোধন ও গাফিলতি তদন্তে কমিটি গঠন
.............................................................................................
এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষার ফল ৮ ফেব্রুয়ারি
.............................................................................................
জবিতে দ্বাদশ রসায়ন অলিম্পিয়াড অনুষ্ঠিত
.............................................................................................
নবীনদের বরণ করে নিল ইবির সিওয়াইবি
.............................................................................................
জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে সাম্প্রদায়িকতার কোনো সুযোগ নেই : উপাচার্য
.............................................................................................
অমর একুশে বই মেলায় আসছে কুবির তিন শিক্ষকের বই
.............................................................................................
টুর্নামেন্টের দাবিতে ইবির প্রধান ফটকে তালা
.............................................................................................
জবিতে মার্কেটিং বিভাগে নবীন শিক্ষার্থীদের বরণ
.............................................................................................
সিনিয়রের সঙ্গে বেয়াদবি করায় শাবিপ্রবিতে ছাত্রলীগের মারামারি
.............................................................................................
দেশের ৬০ শতাংশ প্রতিবন্ধী শিশু আনুষ্ঠানিক শিক্ষার বাইরে : ইউনিসেফ
.............................................................................................
কুবিতে ব্যবস্থাপনা বিভাগকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন আইন বিভাগ
.............................................................................................
শিক্ষাক্রম প্রণয়ন কমিটি মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্ত উপেক্ষা করেছে: শিক্ষামন্ত্রী
.............................................................................................
১৪৪টি আসন ফাঁকা রেখে কুবিতে নবীন বরণ
.............................................................................................
ভর্তি ফি বৃদ্ধির প্রতিবাদে শাবিপ্রবিতে ছাত্রফ্রন্ট-ছাত্রদলের বিক্ষোভ
.............................................................................................
শাবিতে আমেনা-আজফর ট্রাস্টের অর্থ ২ লাখ থেকে বেড়েছে ২৫ লাখে
.............................................................................................
বিশেষায়িত বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে আরও কাজ করতে হবে: শিক্ষামন্ত্রী
.............................................................................................
ইবি ছাত্র ইউনিয়নের সভাপতি সোহান, সম্পাদক সুইট
.............................................................................................
ভিসি অ্যাওয়ার্ড পেলেন কুবির ১৭ জন শিক্ষক
.............................................................................................
শাবিপ্রবিতে চলছে শিক্ষক সমিতি নির্বাচনে ভোটগ্রহণ
.............................................................................................
শাবিপ্রবির নির্মাণাধীন ভবন থেকে পড়ে আহত শ্রমিকের মৃত্যু
.............................................................................................
জবিতে খাওয়ার বিল চাওয়ায় ক্যান্টিন কর্মীকে রড দিয়ে পেটালো ছাত্রলীগ নেতা
.............................................................................................
পাঠ্য বই নিয়ে অভিযোগ : দায় স্বীকার করলেন ড. জাফর ইকবাল
.............................................................................................
জবি শিক্ষার্থীদের এডমিট আটকে পিকনিকের চাঁদা উত্তোলন
.............................................................................................
স্মার্ট বাংলাদেশ গড়তে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ : উপাচার্য
.............................................................................................
শাবিপ্রবিতে স্বেচ্ছায় রক্তদান কর্মসূচী পালন করেছে ছাত্রলীগ
.............................................................................................
এইচএসসির ফল ১২ ফেব্রুয়ারির মধ্যে
.............................................................................................
বাংলা ভাষা সাহিত্য পরিষদের নেতৃত্বে রিয়াদ-তানভীর
.............................................................................................
শাবিপ্রবির নতুন হিসাব পরিচালক সোহেল উদ্দিন আহম্মদ
.............................................................................................
শাবিপ্রবিকে শিক্ষা ও গবেষণায় বিশ্বমানের করতে বদ্ধ পরিকর: উপাচার্য
.............................................................................................
প্রকৌশলীদের বিশ্ববিদ্যালয়ে দক্ষ হলেই চলবে না, কার্য ক্ষেত্রেও দক্ষ হতে হবে : শাবি উপাচার্য
.............................................................................................
পাঠ্য বইয়ে ভুল থাকলে সংশোধন হবে: শিক্ষামন্ত্রী
.............................................................................................
কুবিতে বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন উপলক্ষে আলোচনা সভা
.............................................................................................
শাবিপ্রবিতে প্রকৌশল গবেষণা বিষয়ে আন্তর্জাতিক সম্মেলন শুরু
.............................................................................................
নতুন নিয়মে ঢাবির ভর্তি পরীক্ষা, আবেদন শুরু ২৭ ফেব্রুয়ারি
.............................................................................................
মাস্টার্স ফাইনাল পরীক্ষা শুরু ৯ ফেব্রুয়ারি
.............................................................................................
শাবিপ্রবিতে বৈজ্ঞানিক গবেষকদের নিয়ে আন্তর্জাতিক সম্মেলন
.............................................................................................
চবিতে বিভিন্ন ঘটনায় ১৮ শিক্ষার্থী বহিষ্কার
.............................................................................................
কুবিতে বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস পালিত
.............................................................................................
শাবিপ্রবি থেকে ইউজিসি ফেলোশিপ পেলেন সামিউল ইসলাম
.............................................................................................
নুরের শাস্তির দাবিতে কুবি মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের মানববন্ধন
.............................................................................................
শাবিপ্রবির শিক্ষক সমিতি নির্বাচন আগামী ১৮ জানুয়ারি
.............................................................................................
জবির আইকিউএসির পরিচালক আইন-উল হুদা, অতিরিক্ত পরিচালক সরোয়ার-রফিকুল
.............................................................................................
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ফেলোশিপ পেলেন ইবির ৪২ শিক্ষার্থী
.............................................................................................
বিশ্বসেরার তালিকায় জবির ৯৫ গবেষক
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
    2015 @ All Right Reserved By dailyswadhinbangla.com

Developed By: Dynamic Solution IT