রবিবার, ২ অক্টোবর 2022 বাংলার জন্য ক্লিক করুন
  
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

   চট্রগ্রাম -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
টেকনাফে থেমে থেমে গুলির শব্দ

জেলা প্রতিনিধি, কক্সবাজার
বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ির ঘুমধুম ও কক্সবাজারের উখিয়ার পর এবার টেকনাফ উপজেলার হোয়াইক্যং কানজড়পাড়া সীমান্তে নতুন করে গোলাগুলির শব্দ শোনা যাচ্ছে। সোমবার (২৬ সেপ্টেম্বর) ভোররাত থেকে একের পর এক মর্টারের মতো ভারী অস্ত্রের গোলার শব্দে কেঁপে ওঠে হোয়াইক্যং কানজড়পাড়া এলাকা। থেমে থেমে গোলাবর্ষণ অব্যাহত রয়েছে বলে জানান স্থানীয়রা।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন হোয়াইক্যং ইউনিয়ন পরিষদের কানজড়পাড়া ৫ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য (প্যানেল চেয়ারম্যান) শা্হ জালাল। তিনি বলেন, বেশ কয়েক দিন ধরে আমার ওয়ার্ড কানজড়পাড়া বড়ফিশারি সীমান্ত এলাকায় ভারী অস্ত্রের শব্দ শোনা যাচ্ছে। এই ভারী অস্ত্রের বিকট শব্দে জেলেরা আতঙ্কিত হয়ে নাফ নদীসহ সীমান্ত এলাকায় কাজ করতে যাচ্ছে না। শুধু কানজড়পাড়া এলাকায় নয়, হোয়াইক্যংর বিভিন্ন জায়গায় অস্ত্রের বিকট শব্দ শোনা যাচ্ছে। মাঝে মাঝে মায়ানমার সেনাবাহিনীর হেলিকপ্টার দেখা যায়।

উনছিপ্রাং এলাকার জেলে কালু মাঝি বলেন, সকালে নাফ নদীর পাশে মাছ শিকার করছিলাম। এ সময় বোমার মতো কিছু বিস্ফোরিত হয়। শব্দ শোনার সঙ্গে সঙ্গে আমি নৌকা থেকে পড়ে যায়।

টেকনাফে থেমে থেমে গুলির শব্দ
                                  

জেলা প্রতিনিধি, কক্সবাজার
বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ির ঘুমধুম ও কক্সবাজারের উখিয়ার পর এবার টেকনাফ উপজেলার হোয়াইক্যং কানজড়পাড়া সীমান্তে নতুন করে গোলাগুলির শব্দ শোনা যাচ্ছে। সোমবার (২৬ সেপ্টেম্বর) ভোররাত থেকে একের পর এক মর্টারের মতো ভারী অস্ত্রের গোলার শব্দে কেঁপে ওঠে হোয়াইক্যং কানজড়পাড়া এলাকা। থেমে থেমে গোলাবর্ষণ অব্যাহত রয়েছে বলে জানান স্থানীয়রা।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন হোয়াইক্যং ইউনিয়ন পরিষদের কানজড়পাড়া ৫ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য (প্যানেল চেয়ারম্যান) শা্হ জালাল। তিনি বলেন, বেশ কয়েক দিন ধরে আমার ওয়ার্ড কানজড়পাড়া বড়ফিশারি সীমান্ত এলাকায় ভারী অস্ত্রের শব্দ শোনা যাচ্ছে। এই ভারী অস্ত্রের বিকট শব্দে জেলেরা আতঙ্কিত হয়ে নাফ নদীসহ সীমান্ত এলাকায় কাজ করতে যাচ্ছে না। শুধু কানজড়পাড়া এলাকায় নয়, হোয়াইক্যংর বিভিন্ন জায়গায় অস্ত্রের বিকট শব্দ শোনা যাচ্ছে। মাঝে মাঝে মায়ানমার সেনাবাহিনীর হেলিকপ্টার দেখা যায়।

উনছিপ্রাং এলাকার জেলে কালু মাঝি বলেন, সকালে নাফ নদীর পাশে মাছ শিকার করছিলাম। এ সময় বোমার মতো কিছু বিস্ফোরিত হয়। শব্দ শোনার সঙ্গে সঙ্গে আমি নৌকা থেকে পড়ে যায়।

ভাটিয়ারীতে বগি লাইনচ্যুত, ঢাকা-চট্টগ্রাম ট্রেন চলাচল বন্ধ
                                  

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি : চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডের ভাটিয়ারীতে একটি ট্রেনের বগি লাইনচ্যুত হয়েছে। এতে ঢাকা-চট্টগ্রাম রুটে ট্রেন চলাচল বন্ধ রয়েছে।

শনিবার সকাল ১০টার দিকে ঢাকা থেকে চট্টগ্রামগামী বিজয় এক্সপ্রেস ট্রেনের একটি বগি লাইনচ্যুত হয়।

চট্টগ্রাম রেলওয়ে স্টেশন ম্যানেজার রতন কুমার চৌধুরী এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

ফৌজদারহাট পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ হাসান মাহমুদ জানান, ঢাকা থেকে চট্টগ্রামগামী বিজয় এক্সপ্রেস ট্রেনটি ভাটিয়ারীতে আসার পর একটি বগির চারটি চাকা লাইনচ্যুত হয়। এতে ঢাকা-চট্টগ্রাম রুটে ট্রেন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।

খবর পেয়ে রেলওয়ের উদ্ধারকারী টিম দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। ঢাকা-চট্টগ্রাম রুট সচল করতে তারা কাজ করছে। তবে সকাল ১০টার পর ঢাকামুখী কোনো ট্রেন না থাকায় এই মুহুর্তে ট্রেনের কোনো শিডিউল বিপর্যয় হয়নি। অল্প কিছু সময়ের মধ্যেই ঢাকা-চট্টগ্রাম রেল যোগাযোগ স্বাভাবিক হবে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

চবিতে ফের ছাত্রলীগের অবরোধ, ক্লাস-পরীক্ষা বন্ধ
                                  

চবি প্রতিনিধি : চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (চবি) ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি বর্ধিত করার দাবিতে অনির্দিষ্টকালের জন্য অবরোধের ডাক দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের একাংশ।

সোমবার সকাল থেকে ছাত্রলীগের শাখা কমিটিতে পদবঞ্চিত নেতা-কর্মীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটক বন্ধ করে দিয়ে অবরোধ শুরু করেন।

অবরোধের ফলে ক্যাম্পাস অচল হয়ে পড়েছে। শিক্ষক-কর্মকর্তাদের বহনকারী বাস চলাচল ও শাটল ট্রেন চলাচল বন্ধ রয়েছে। এতে বিভিন্ন বিভাগের পরীক্ষা থাকায় বিপাকে পড়েছেন শিক্ষার্থীরা।

নগরীর ষোলশহর ও ঝাউতলা স্টেশনে শত শত পরীক্ষার্থী নিয়ে আটকে আছে দুইটি শাটল। ইতোমধ্যে যোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগসহ কয়েকটি বিভাগে পরীক্ষা বাতিল করা হয়েছে।

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবহন বিভাগের কর্মকর্তা এস এম মোয়াজ্জেম হোসেন জানান, অবরোধের কারণে শিক্ষক-কর্মকর্তাদের বাস চলাচল করতে পারছে না। ফলে কোনো শিক্ষক ক্যাম্পাসে আসতে পারেননি।

পদবঞ্চিত ছাত্রলীগের একাংশের নেতা দেলোয়ার হোসেন জানান, কমিটি পুনর্গঠন করে বঞ্চিতদের মূল্যায়ন করার দাবিতে তারা শান্তিপূর্ণ আন্দোলন করছেন।

চবিতে পদবঞ্চিত নেতাদের কমিটিতে অর্ন্তভুক্ত, পদধারী নেতাদের যোগ্যতা অনুযায়ী ক্রমানুসারে পুনঃমূল্যায়ন ও বিবাহিত, চাকরিজীবী নেতাদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়ার দাবিতে সেপ্টেম্বর মাসজুড়ে বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করা হচ্ছে। এরই ধারাবাহিকতায় সোমবার সকাল ৬টা থেকে এই অবরোধ শুরু করেন ছাত্রলীগের ছয় গ্রুপের নেতাকর্মীরা। দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত অনির্দিষ্টকালের এই অবরোধ চলবে বলে জানান তারা।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. রবিউল হাসান ভূঁইয়া বলেন, ‘এটা তাদের সাংগঠনিক দাবি, তারা সংগঠনকে জানাক। কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয়ের সাথে এর কোনও সম্পর্ক আছে কি? তারা নিজেরাই বিবেচনা করুক বিশ্ববিদ্যালয় ক্ষতিগ্রস্ত কেন হবে। আমরা বিষয়টা সমাধানের চেষ্টা করছি।’

স্বাধীন বাংলা/এআর

চকরিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের নবগঠিত কমিটি সংবর্ধিত
                                  

ইউসুফ বিন হোসাইন, চকরিয়া (কক্সবাজার)
কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের নবগঠিত কমিটির নেতৃবৃন্দকে স্বাগত জানিয়ে সংবর্ধনা ও আনন্দ মিছিল করেছে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা। মিছিল শেষে নতুন কমিটির নেতৃবৃন্দদের বরণ করে নেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব জাফর আলম এমপি, সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জামাল উদ্দিন জয়নাল ও পৌর যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক আজিজুল ইসলাম সুহেল সহ নেতৃবৃন্দরা।

শনিবার(১৭ সেপ্টেম্বর) বিকাল ০৩ঃ০০ ঘটিকায় চকরিয়া হারবাং ইনানী রিসোর্ট থেকে বিশাল গাড়ি বহর নিয়ে ছাত্রলীগ নেতৃবৃন্দরা সংবর্ধনা দিয়ে (চট্টগ্রাম -কক্সবাজার) মহাসড়ক হয়ে চকরিয়া পৌর শহরে প্রবেশ করে।

গত (৩১ জুলাই) কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি সম্পাদকের সাক্ষরিত একটি প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ কমিটির জানান দেন তারা। কমিটি ঘোষণার পর পর আগস্ট মাস চলে আসলে শোকাবহ এ দিনে দলীয় নেতাকর্মীরা ফুলেল শুভেচছা ও সংবর্ধনা দিতে না পারায় আজ সংবর্ধিত করেন এ কমিটিকে।

কমিটি ঘোষণার পর থেকে সেই কমিটিতে আওয়ামী লীগের অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের সকল নেতাকর্মীরা সন্তোষ জানিয়েছেন। এ কমিটিকে স্বাগত জানিয়ে পৌর শহর ও উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে আনন্দ মিছিল ও মিষ্টি বিতরণ করে আসছে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। এরই মাঝে আজ শনিবার নতুন কমিটির নেতৃবৃন্দকে স্বাগত জানিয়ে সংবর্ধনা ও আনন্দ মিছিল করেছে চকরিয়া উপজেলা ছাত্রলীগ।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জামাল উদ্দিন জয়নাল, পৌর যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক আজিজুল ইসলাম সুহেল সহ অসংখ্য আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দরা।

এতে নবগঠিত কমিটির সভাপতি আরহান মাহামুদ রুবেল বলেন, বঙ্গবন্ধুর আদর্শে ছাত্রলীগ অবিচাল ছিলো, আছে,থাকবে। আমাদের দেওয়া দায়িত্ব আমরা সবসময়ই পালন করতে প্রস্তুত।

ঘুমধুম কেন্দ্রের সব পরীক্ষা হবে কুতুপালং হাই স্কুলে
                                  

স্বাধীন বাংলা ডেস্ক
বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার তুমব্রু সীমান্তের জিরো পয়েন্ট এলাকায় গোলাবর্ষণের ঘটনায় চলমান মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট পরীক্ষার (এসএসসি) ঘুমধুম উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রটি বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ঘুমধুম উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রের পরিবর্তে শনিবার (১৭ সেপ্টেম্বর) থেকে উখিয়ার কুতুপালং হাই স্কুলে এ পরীক্ষা নেওয়া হবে।

শুক্রবার (১৬ সেপ্টেম্বর) রাতে চট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ড এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে। শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মুস্তফা কামরুল আখতার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে আমাদের জানানো হয়েছে, ঘুমধুম উচ্চ বিদ্যালয়ের আশপাশের এলাকায় গোলাবর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। তারা আমাকে ঘুমধুম উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রটি পরিবর্তন করতে বলেছেন। কেন্দ্র পরিবর্তন করে উখিয়ার হাই স্কুলে স্থানান্তরের তাৎক্ষণিক নির্দেশনা দিয়েছি। শনিবার থেকে ঘুমধুম কেন্দ্রের পরীক্ষা কুতুপালং হাই স্কুলে অনুষ্ঠিত হবে।

তিনি আরও বলেন, বিষয়টি শিক্ষামন্ত্রী ও উপমন্ত্রীকে জানানো হয়েছে। সচিবের সঙ্গে ফোনে কথা হয়েছে, তিনি অনুমতি দিয়েছেন। আগামীকাল লিখিত অনুমোদন দেওয়া হবে। এ বিষয়ে জেলা প্রশাসনের সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরাও কাজ করছেন।

চট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান বলেন, শিক্ষার্থীদের যাতায়াতের জন্য ঘুমধুম কেন্দ্রে প্রশাসনের পক্ষ থেকে কিছু যানবাহন রাখা হবে। ইতোমধ্যে মাইকিংয়ের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

ঘুমধুম উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রের হল সুপার ও বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক খাইরুল বশর মুঠোফোনে জানিয়েছেন, আমরা রাতেই প্রশাসনের নির্দেশনা পেয়ে কুতুপালং হাই স্কুল কেন্দ্রে এসেছি। পরীক্ষার সার্বিক প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে। আমাদের কেন্দ্রের ৪১৯ জন পরীক্ষার্থী এখানে বাংলা দ্বিতীয় পত্র পরীক্ষায় অংশ নেবে।

এ বিষয়ে বান্দরবান জেলা প্রশাসক ইয়াসমিন পারভিন তিবরীজি বলেন, দুর্ঘটনা এড়াতে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার্থীদের কেন্দ্র সরিয়ে কক্সবাজারে স্থানান্তর করা হয়েছে। ঘুমধুম উচ্চ বিদ্যালয়ের সব পরীক্ষার্থীদের যথাসময়ে কুতুপালং হাই স্কুলে উপস্থিত হতে অনুরোধ জানান জেলা প্রশাসক।

চট্টগ্রাম এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে: ব্যয় বাড়ছে ১ হাজার ৫০ কোটি
                                  

স্বাধীন বংলা ডেস্ক
চট্টগ্রাম এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে প্রকল্পে এক ধাক্কায় ব্যয় বাড়ছে প্রায় ১ হাজার ৫০ কোটি টাকা। সেই সঙ্গে তিন বছরের এই প্রকল্পটির বাস্তবায়ন মেয়াদ বেড়ে দাঁড়াচ্ছে সাত বছরে। মঙ্গলবার (১৩ সেপ্টেম্বর) জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় ‘চট্টগ্রাম শহরের লালখান বাজার হতে শাহ-আমানত বিমানবন্দর পর্যন্ত এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে নির্মাণ’ প্রকল্পটি প্রথম সংশোধনের জন্য তোলা হচ্ছে।

পরিকল্পনা কমিশনের কর্মকর্তারা জানান, গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের এই প্রকল্পটি জুলাই ২০১৭ থেকে জুন ২০২০ সালে বাস্তবায়নের লক্ষ্যে একনেক সভায় অনুমোদন দেওয়া হয়। এরপর প্রকল্পটির ব্যয় বৃদ্ধি ছাড়া দুইবার মেয়াদ বৃদ্ধি করে জুলাই ২০১৭ থেকে জুন ২০২২ সাল পর্যন্ত করা হয়। কিন্তু এসময়েও প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করতে না পারায় প্রথম সংশোধন করতে চাইছে বাস্তবায়নকারী সংস্থা চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ। মঙ্গলবার একনেকে প্রকল্পটি অনুমোদন হলে জুন ২০২৪ পর্যন্ত সময় বাড়ানো হবে। চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন এলাকায় প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করা হচ্ছে।

কর্মকর্তারা আরও জানান, ২০১৭ সালে প্রকল্পটি অনুমোদনের সময় এর মূল ব্যয় ছিল ৩ হাজার ২৫০ কোটি ৮৩ লাখ টাকা। বর্তমানে প্রথম সংশোধনের মাধ্যমে ব্যয় ৪ হাজার ২৯৮ কোটি ৯৫ লাখ টাকা করার প্রস্তাব করেছে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়। প্রথম সংশোধনের মাধ্যমে প্রকল্পটির ব্যয় বাড়ছে ১ হাজার ৪৮ কোটি টাকা।

প্রকল্প সংশোধনের কারণে গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয় জানায়, কিছু নতুন অঙ্গ অন্তর্ভুক্তি; কিছু অঙ্গের পরিমাণ ও ব্যয় হ্রাস/বৃদ্ধি; এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের অ্যালাইনমেন্টে পরিবর্তনের ফলে ফাউন্ডেশন, সাব-স্ট্রাকচার; সুপার-স্ট্রাকচারের ডিজাইন এ পরিবর্তন; অর্থায়নের ধরন পরিবর্তন এবং প্রকল্পের বাস্তবায়ন মেয়াদ দুই বছর বৃদ্ধির জন্য প্রকল্পটি সংশোধন করা হচ্ছে।

প্রকল্পের উদ্দেশ হচ্ছে— চট্টগ্রাম শহর এলাকা ও এর দক্ষিণাঞ্চলের মধ্যে উন্নত যোগাযোগ ব্যবস্থা স্থাপন; চট্টগ্রাম শহরের মধ্যে অবস্থিত চট্টগ্রাম এক্সপোর্ট প্রসেসিং জোন (সিইপিজেড), কর্ণফুলী এক্সপোর্ট প্রসেসিং জোনের (কেইপিজেড) সঙ্গে সংযোগ স্থাপন; চট্টগ্রাম শহর কেন্দ্রে ভ্রমণ দূরত্ব ও ভ্রমণ সময় হ্রাস করা এবং বিদ্যমান যানজট নিরসন; বিমানবন্দরে যাতায়াতের পথ সুগম করা এবং কর্ণফুলী নদীর তলদেশে নির্মাণাধীন বঙ্গবন্ধু টানেলের সঙ্গে সরাসরি সংযোগ স্থাপন।

প্রধান কার্যক্রম হচ্ছে— ৫৯৬.১৮ কাঠা ভূমি অধিগ্রহণ ও ক্রয়; ১৩ হাজার ৩৯ বর্গমিটার স্থাপনার ক্ষতিপূরণ; ২ লাখ ৮৩ হাজার ৭৫০ বর্গমিটার এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে নির্মাণ; ৩ লাখ ৯১ হাজার ৬৭৭ বর্গমিটার রিকনস্ট্রাকশন অব রোড পেভমেন্ট; ২০ হাজার ২২৩ বর্গমিটার রোড মার্কিং; ৩ লাখ ৮ হাজার ৯৪৭ বর্গমিটার রোড মেইনটেনেন্স; ১ হাজার ৪৬টি বৈদ্যুতিক পোল স্থানান্তর; ৩ হাজার ৩৬৯টি এলইডি লাইট স্থাপন; ১০০টি সিসি টিভি ক্যামেরা (ক্যাবল এবং নেটওয়ার্কিং ব্যবস্থাসহ); ১২টি টোল প্লাজা নির্মাণ; টিঅ্যান্ডটি পোল স্থানান্তর; ২ লাখ ৮৩ হাজার ৭৫০ বর্গমিটার প্লাম্বিং সিস্টেম (ফ্লাইওভার ও র‌্যাম্পসহ); ৬৬৬ মিটার আরসিসি ড্রেন; ৩ হাজার ৯২১ মিটার ব্রিক ড্রেন নির্মাণ; ২ লাখ ৪৯ হাজার ৩১৫ বর্গমিটার সৌন্দর্যবর্ধন (ল্যান্ডস্কেপিং); ৮ হাজার ৪৯১ ঘনমিটার মেডিয়ান নির্মাণ; এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে কার্যক্রম মনিটরিং ভবন এবং ১৩টি ইলেকট্রিক্যাল কন্ট্রোল রুম নির্মাণ; গ্যাস লাইন স্থানান্তর এবং ওয়াসা লাইন স্থানান্তর করা।

পরিকল্পনা কমিশনের ভৌত অবকাঠামো বিভাগের সদস্য (সচিব) সত্যজিত কর্মকার বলেন, প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে চট্টগ্রাম শহরের সঙ্গে চট্টগ্রাম ইপিজেড ও কর্ণফুলী ইপিজেডের সংযোগ স্থাপন হবে। এছাড়া শহর কেন্দ্রে ভ্রমণ দূরত্ব কমার পাশাপাশি যানজট নিরসন এবং বিমানবন্দর ও নির্মাণাধীন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান টানেলে যাতায়াত সহজ হবে। প্রকল্পটি ২০২২-২৩ অর্থবছরের এডিপিতে ৪৪৫ কোটি টাকা বরাদ্দসহ অন্তর্ভুক্ত আছে।

মেয়াদোত্তীর্ণ ৩৮২ কনটেইনার পণ্য ধ্বংস করা হবে
                                  

স্বাধীন বাংলা প্রতিবেদক :
দীর্ঘদিন ধরে চট্টগ্রাম বন্দরে পড়ে থাকা ৩৮২ কনটেইনারে নিলাম অযোগ্য পণ্য ধ্বংসের উদ্যোগ নিয়েছে চট্টগ্রাম কাস্টমস কর্তৃপক্ষ। রোববার (১১ সেপ্টেম্বর) থেকে এসব পণ্য ধ্বংসের কাজ শুরু হবে। পণ্যগুলো সবই নিলাম অযোগ্য এবং মেয়াদোত্তীর্ণ বিধায় ধ্বংস করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। শনিবার (১০ সেপ্টেম্বর) বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কাস্টম হাউস চট্টগ্রামের নিলাম শাখার ডেপুটি কমিশনার সন্তোষ সরেন।

তিনি বলেন, জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের জারিকরা স্থায়ী আদেশ অনুযায়ী গঠিত ধ্বংস কমিটি ২৯ আগস্ট সভা করেছে। সভায় সিদ্ধান্ত হয়েছে বন্দরের রেফার্ড কনটেইনার ১৩৬টি, ড্রাই কনটেইনার ৩২টি ও বিভিন্ন অফডকে ড্রাই ২১৪টি কনটেইনারবাহী ধ্বংসযোগ্য (পঁচনশীল) পণ্যচালানের ধ্বংস কার্যক্রম ১১ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হবে।

এজন্য চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের ডাম্পিং স্টেশনের পাশের একটি খালি জায়গা চিহ্নিত করা হয়েছে। জায়গাটি চট্টগ্রামের আউটার রিং রোড সংলগ্ন হালিশহরের আনন্দবাজারে অবস্থিত। পরিবেশ অধিদপ্তর থেকেও অনুমোদন মিলেছে এ বিষয়ে। এর আগেও একই জায়গায় পণ্য ধ্বংস করেছিল চট্টগ্রাম কাস্টমস। কাস্টম হাউস সূত্রে জানা গেছে, ধ্বংসযোগ্য পণ্যচালানের মধ্যে রয়েছে পেঁয়াজ, আপেল, ড্রাগন ফ্রুটস, কমলা, আদা, ডালিম, ধনে, আঙ্গুর, ফ্রোজেন লিজার্ড ফিসসহ বিভিন্ন ধরনের পণ্য।

কাস্টমস কর্তৃপক্ষ জানায়, প্রতিদিন ২৫-৩০ টি কনটেইনারের ধ্বংসযোগ্য পণ্য ধ্বংস করার পরিকল্পনা আছে। পর্যায়ক্রমে ৩৮২টি কনটেইনার নিরবচ্ছিন্নভাবে পরিবেশ সম্মত উপায়ে ধ্বংস করার পরিকল্পনা রয়েছে। ধ্বংস করা কনটেইনার চট্টগ্রাম বন্দর থেকে অন্যত্র সরিয়ে নেওয়া সম্ভব হবে। এতে চট্টগ্রাম বন্দরের কিছু জায়গা খালি হবে।

খাগড়াছড়ির গুইমারার অনগ্রসর গ্রাম আগা ওয়াকছড়ি
                                  

খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি
খাগড়াছড়ি জেলার গুইমারা উপজেলার অনগ্রসর একটি জনপদ আগা ওয়াকছড়ি। হাফছড়ি ইউপির দুই নম্বর ওয়ার্ডের এই গ্রামটিতে অর্ধশত মারমা জনগোষ্ঠী পরিবারের দুর্বিসহ জীবন-যাপন। নেই কোন বিশুদ্ধ পানিয় জলের ব্যাবস্থা একমাত্র ঝিরির ময়লাক্ত পানিতে খাওয়া, গোসল, রান্নাবান্না। আর অধীকাংশ পরিবারই ছন ও বেড়ার ছাপরার নিচে দুর্বিসহ জীবন-যাপন করছে।

মানিকছড়ি উপজেলার জামতলা থেকে পূর্বদিকে ৮/৯ কিলোমিটার দুর্গম রাস্তা পেরিয়ে আগা ওয়াকছড়ি। সেখানে এক, একটি টিলায় একটি মারমা পরিবার ছোট্ট, ছোট্ট, ছনের ঘরে বসবাস। কোন, কোন ঘরের চারপাশ খোলা। আর এই বিশাল এলাকায় অর্ধশত পরিবার বসবাস করলে কোথাও টিউবওয়েল বা কূয়া বা ছড়াও নেই। একটি মাত্র ঝিরি থেকে মগ,থাল দিয়ে পানি তুলে কলসি বা পাতিলে ভরতে হয়। এক কলস পানিতে ভরতে ৫/৭ মিনিট সময় লাগে। এক জনের পর একজন অপেক্ষা করে পানি সংগ্রহ করতে হয়।

এমন দুর্বিসহ পরিবেশে মানবেতর জীবনযাপন করছে মারমা পরিবারগুলো। গত কয়েকদিন আগে কয়েকজন সংবাদকর্মী এলাকাটিতে ঘুরতে গিয়ে এসব দৃশ্য চোখে পরে। কথা হয় এলাকার রাম্প্রু মারমা ও তার স্ত্রীর সাথে, বাংলায় তেমন কথা বলতে না পারলেও খাদ্য, বস্ত্র, পানি ও খোলা ঘরে রাত্রি যাপনসহ দুর্বিসহ কষ্টের কথা সহজেই বুঝে নেওয়া যায়। তারা বললেন, এই এলাকায় কাজ-কর্ম নেই, স্বামীর একটি চোখ অন্ধ। বাচ্চাদের মুখে ঠিকমত ভাত দিতে পারি না। আর ভাত দিলেও পানি খেতে চাইলে মরে যেতে ইচ্ছা করে। কারণ পানির একমাত্র উৎস ওই দূরের ঝিরি। জঙ্গলে ঢাকা ঢালুতে গিয়ে ঘণ্টার পর ঘণ্টা দাঁড়িয়ে থেকে পানি তোলা খুব কষ্টদায়ক।

গ্রামের যুবক অংহ্লাপ্রু মারমা জানালেন, বাড়িতে মেহমান আসলে ভাত,তরকারী কম-বেশি খাওয়াতে পারি। কিন্তু পানি দিতে পারি না। নির্বাচন এলে মেম্বার, চেয়ারম্যান প্রার্থীরা আসে। ভোট শেষে, সব শেষ। আর কেউ আসে না। জঙ্গল মঙ্গল হয় না। জনপদ অনগ্রসর ও পিছিয়ে থাকা মারমা জনগোষ্ঠীর দুর্ভোগের বিষয়টি স্বীকার করে ইউপি সদস্য উগ্য মারমা বলেন, এই দুর্গম এলাকায় বরাদ্দ আনার চেষ্টা করছি। গুইমারা উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক ও উপজেলা চেয়ারম্যান মেমং মারমা বলেন অতি সত্বর গ্রামটিতে বিশুদ্ধ পানিয় জলের চাহিদা পুরনসহ উন্নয়ন মুলক কাজ শুরু করা হবে।

রাঙ্গামাটি জেলা পরিষদের ৮৩ কোটি টাকার বাজেট ঘোষণা
                                  

পিংকি আক্তার (রাঙ্গামাটি):
২০২২-২০২৩ অর্থ বছরের জন্য ৮৩ কোটি টাকার প্রস্তাবিত বাজেট ঘোষণা করেছে রাঙ্গামাটি জেলা পরিষদ। শিক্ষা, তথ্য ও প্রযুক্তি এবং পাহাড়ের যোগাযোগ অবকাঠামোকে অগ্রাধিকার দিয়ে রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের ২০২২-২০২৩ অর্থ বছরের বাজেট ঘোষণা করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (৮ সেপ্টেম্বর) সকাল ১১টায় জেলা পরিষদ এনেক্স ভবনে পরিষদের নতুন অর্থ বছরের এই বাজেট ঘোষণা করেন রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অংসুইপ্রু চৌধুরী। বাজেটে সরকার হতে উন্নয়ন এবং সংস্থাপন ব্যয়, আপদকালীন খাতে প্রাপ্তির প্রত্যাশায় ৮০ কোটি টাকা এবং পরিষদের নিজস্ব খাত থেকে ৩ কোটি টাকাসহ মোট ৮৩ কোটি টাকার বাজেট পেশ করা হয়েছে।

নতুন অর্থ বছরের বাজেটে শিক্ষা এবং তথ্য ও প্রযুক্তি খাতে বরাদ্দ ধরা হয়েছে ১১কোটি ৫৬ লক্ষ টাকা, যোগাযোগ ও অবকাঠামো খাতে বরাদ্দ ধরা হয়েছে ১১ কোটি ৫৬ লক্ষ টাকা, ধর্মীয় খাতে ৯ কোটি ৫২ লক্ষ টাকা, পূূর্ত (গৃহ/অবকাঠামো নির্মাণ) খাতে ৮ কোটি ১৬ লক্ষ টাকা, সমাজ কল্যাণ, আর্থ সামাজিক প্রতিবন্ধী ও নারী উন্নয়ন খাতে ৮ কোটি ১৬ লক্ষ টাকা, স্বাস্থ্য, পরিবার কল্যাণ ও সুপেয় পানি বাবদ ৮ কোটি ১৬ লক্ষ টাকা, কৃষি, মৎস ও প্রাণীসম্পদ খাতে ৬ কোটি ১২ লক্ষ টাকা, জলবায়ু পরিবর্তন ও পরিবেশ (বৃক্ষ রোপন, বনায়ন) খাতে ১কোটি ৩৬ লক্ষ টাকা, ক্রীড়া ও সংস্কৃতি খাতে ৬৮ লক্ষ টাকা, ত্রাণ ও পুণর্বাসন খাতে ৬৮ লক্ষ টাকা, পর্যটন খাতে ৬৮ লক্ষ টাকা, ভূমি ও হাটবাজার বাবদ ৬৮ লক্ষ টাকা, এবং পরিষদের আয় বর্ধক প্রকল্পসহ বিবিধ ক্ষেত্রে প্রস্তাবিত বরাদ্দ ৬৮ লক্ষ টাকা ধরা হয়েছে।

২০২২-২০২৩ অর্থ বছরের প্রস্তাবিত বাজেটে উন্নয়ন খাতে ৬৮ কোটি টাকা, সংস্থাপন খাতে ১০ কোটি টাকা, আপদকালীন খাতে ২কোটি টাকা এবং বিভিন্ন খাতে ৩কোটি টাকা ব্যয় হবে।

সভায় এসময় রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের মূখ্য নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ আশরাফুল ইসলাম, জেলা পরিষদের নির্বাহী প্রকৌশলী বিরল বড়ুয়া, পার্বত্য জেলা পরিষদ সদস্য অংসুছাইন চৌধুরী, ঝর্না খীসা, বিপুল ত্রিপুরা, মোঃ আব্দুর রহিম, সবির কুমার চাকমা প্রবর্তক চাকমা, আসমা আকতার,নিউচিং মারমা সহ জেলার ইলেকট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়ার গণমাধ্যম কর্মীগণ উপস্থিত ছিলেন।

রাঙ্গামাটিতে ৭৫৩ শিক্ষার্থীকে শিক্ষাবৃত্তি প্রদান
                                  

পিংকি আক্তার, রাঙ্গামাটি:

প্রতিষ্ঠালগ্ন হতে পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ড বাস্তবায়নের পাশাপাশি পার্বত্য এলাকার শিক্ষা উন্নয়নের ক্ষেত্রেও বিরাট ভূমিকা রেখে চলেছে। পিছিয়ে পড়া শব্দটি আর ব্যবহার না করে আমরা অগ্রসর ও উন্নত-সমৃদ্ধি পার্বত্য চট্টগ্রাম এবং উন্নয়ন-সমৃদ্ধ বাংলাদেশ বিনির্মাণে লক্ষ্যে এগিয়ে যাব। পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের আয়োজনে রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলার মেধাবী শিক্ষার্থীদের মাঝে শিক্ষাবৃত্তি বিতরণ অনুষ্ঠানে পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান নিখিল কুমার চাকমা প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, বর্তমানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বলিষ্ঠ নেতৃত্বের কারণে পার্বত্য চট্টগ্রাম অঞ্চলের আনাচে-কানাচে বিভিন্ন জায়গায় পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের উদ্যোগে উন্নয়নের ছোঁয়া পৌঁছে দেয়া হচ্ছে। তাই উন্নত সমৃদ্ধ বাংলাদেশ বিনির্মানে শোষনমুক্ত ও বৈষম্যহীন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠিত করতে শিক্ষার্থীদের অগ্রণী ভূমিকা পালনের আহবান জানান তিনি।

বুধবার সকাল ১১টায় রাঙামাটি পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের প্রধান কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে শিক্ষাবৃত্তি বিতরণ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

এ সময় পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের পক্ষ থেকে ২০২০-২০২১ অর্থবছরে শিক্ষাবৃত্তি প্রদানের জন্য আবেদনের প্রেক্ষিতে রাঙ্গামাটির ১০ উপজেলার ৭৫৩ জন কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া ছাত্র-ছাত্রীকে এই শিক্ষা বৃত্তির জন্য মনোনীত করা হয়েছে। এর মধ্যে কলেজ পর্যায়ে ৩৯০ জন শিক্ষার্থীকে জন প্রতি ৭ হাজার টাকা এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩৬৩ জন শিক্ষার্থীকে জন প্রতি ১০ হাজার টাকা করে শিক্ষাবৃত্তি প্রদান করে।

শিক্ষাবৃত্তি বিতরণে এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের ভাইস চেয়ারম্যান নুরুল আলম চৌধুরী, বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী তুষিত চাকমা, বোর্ডের সদস্য প্রশাসন ইফতেখার আহমেদ, সদস্য বাস্তবায়ন হারুন অর রশীদ, সদস্য পরিকল্পনা মো: জসিম উদ্দিন,সহ গণমাণ্য ব্যক্তিবর্গ ও বিভিন্ন কলেজের শিক্ষার্থীরা।

রাঙ্গামাটিতে ৩২ ঘন্টার হরতালের ডাক পিসিএনপি’র
                                  

পিংকি আক্তার, রাঙ্গামাটি:

পার্বত্য চট্টগ্রাম ভূমি বিরোধ নিষ্পত্তি কমিশন আইন বাতিল, ৭ দফা দাবী বাস্তবায়নসহ আগামী বুধবার রাঙামাটিতে পার্বত্য ভূমি কমিশন চেয়ারম্যানের বৈঠক বাতিলের দাবীতে মঙ্গলবার সকাল ৬ টা থেকে বুধবার দুপুর ২টা পর্যন্ত রাঙামাটি শহর এলাকায় টানা ৩২ ঘন্টার হরতালের ডাক দিয়েছে পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক পরিষদ।

সোমবার সকাল ১১টায় রাঙামাটি স্থানীয় একটি রেস্টুরেস্টে সাংবাদিক সম্মেলনের মাধ্যমে এই কর্মসূচীর ঘোষণা করে পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটি।

এসময় সাংবাদিক সম্মেলনে উপস্থিত সকল নেতৃবৃন্দের পক্ষে বক্তব্য রাখেন, পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক পরিষদের চেয়ারম্যান কাজী মুজিবুর রহমান। এছাড়া সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক আলমগীর কবির, কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক আনিসুর জামান ডালিম, যুগ্ম-সম্পাদক রুহুল আমিন, কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সাধারণ সম্পাদক এস এম মাসুম রানা, রাঙামাটি জেলা কমিটির মহিলা পরিষদের সাধারণ সম্পাদক আসমা মল্লিক, সাংগঠনিক সম্পাদক লাভলী আক্তারসহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন।

পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক পরিষদের ৭ দফা দাবী গুলো হলো- পার্বত্য চট্টগ্রাম ভূমি বিরোধ নিষ্পত্তি কমিশনে জনসংখ্যা অনুপাতে সকল জাতি গোষ্ঠী থেকে সমান সংখ্যক সদস্য নিশ্চিত করতে হবে। পার্বত্য চট্টগ্রামে ভূমি বিরোধ নিষ্পত্তি এর কার্যক্রম শুরুর পূর্বে, ভূমির বর্তমান অবস্থা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে ভূমি জরিপ সম্পন্ন করতে হবে। জাতি-ধর্ম নির্বিশেষে সকল সম্প্রদায়ের মানুষের ভূমির উপর ন্যায্যতা প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে দেশের সংবিধানের সাথে সাংঘর্ষিক ভূমি কমিশন সংশোধনী আইন ২০১৬ এর ধারা সমূহ বাতিল করতে হবে। পার্বত্য চট্টগ্রামের ভূমি ব্যবস্থাপনা দেশের প্রচলিত আইন অনুযায়ী প্রবর্তন করতে হবে এবং সমতলের ন্যায় জেলা প্রশসকগণকে ভূমি বিরোধ নিষ্পত্তির অধিকার দিতে হবে। কমিশন কর্তৃক ভূমি বিরোধ নিষ্পত্তির কারনে কোন ব্যক্তি ক্ষতিগ্রস্থ হলে তাকে পার্বত্য চট্টগ্রামে সরকারী খাস জমিতে পূনর্বাসনের ব্যবস্থা করতে হবে। পার্বত্য চট্টগ্রামে তথাকথিত রীতি, প্রথা ও পদ্ধতির পরিবর্তে দেশে বিদ্যমান ভূমি আইন অনুসারে ভূমি ব্যবস্থাপনা কার্যক্রম পরিচালনা করতে হবে। বাংলাদেশ সরকারের আদেশ অনুযায়ী জেলা প্রশাসক কর্তৃক বন্দোবস্তীকৃত অথবা কবুলিয়ত প্রাপ্ত মালিকানা থেকে কাউকে উচ্ছেদ করা যাবে না।

চকরিয়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় বৃদ্ধ নিহত
                                  

চকরিয়া প্রতিনিধি:

কক্সবাজারের চকরিয়ায় যাত্রীবাহী বাসের ধাক্কায় হিরেন্দ্র শীল (৮০) নামে এক বৃদ্ধ পথচারী নিহত হয়েছেন। শুক্রবার সকাল ৯টার দিকে চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের বানিায়ারছড়া স্টেশনে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত হিরেন্দ্র শীল উপজেলার ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ড ঘুনিয়া হিন্দু পাড়ার বিমল চন্দ্র শীলের ছেলে।  

প্রত্যক্ষদর্শী লোকজন জানায়, সকালে বৃদ্ধ হিরেন্দ্র মহাসড়কের বানিয়ারছড়া স্টেশনে রাস্তা পার হচ্ছিলেন। এ সময় চট্টগ্রামগামী একটি বাস তাকে ধাক্কা দিলে গুরুতর আহত হয়ে ঘটনাস্থলে মারা যান তিনি।   

চিরিঙ্গা হাইওয়ে পুলিশ পরিদর্শক মুর্শেদুল আলম ভুঁইয়া বলেন, ঘটনাস্থলে পৌঁছে লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। ড্রাইভার বাস নিয়ে পালিয়ে গেছে। এ বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

উখিয়ায় সমাজিক সম্প্রীতি বিষয়ক ডায়ালগ অনুষ্ঠিত
                                  

কক্সবাজার জেলা প্রতিনিধি :
উখিয়া উপজেলার জালিয়া পালং ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিদের নিয়ে অষ্ট্রেলিয়ান এইড-এর অর্থায়নে, ব্রাক-এর সার্বিক সহযোগিতায়, পালস ( প্রোগ্রাম ফর হেল্পলেস এন্ড লেগড় সোসাইটি) কর্তৃক ৩১ আগষ্ট জালিয়া পালং ইউনিয়ন পরিষদ হল রুমে আয়োজিত সমাজিক সম্প্রীতি বিষয়ক "ডায়ালগ" অনুষ্ঠান জালিয়া পালং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এস এম সৈয়দ আলমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়।

অনুষ্টানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন উখিয়া প্রেস ক্লাবের সভাপতি সাঈদ মুহাম্মদ আনোয়ার। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন) উখিয়া উপজেলা শাখার সভাপতি নুর মোহাম্মদ সিকদার।

পালস-এর ফিল্ড ফ্যাসিলিটেটর ছলিম উল্লাহ কাদের-এর সঞ্চালনায় অনুষ্টিত ডায়ালগ অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন জালিয়া পালং ইউনিয়ন পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান সাহাব উদ্দিন, প্যানেল চেয়ারম্যান ফরিদা ইয়াছমিন ও সোনারপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক বাবুল আবছার ও পালস-এর ফিল্ড ফ্যাসিলিটের মুর্তজা হাসান মাসুদ।

সভায় বক্তারা বলেন, সামাজিক সম্প্রীতি বিনষ্টকারীরা সে যেই হোক তাদের চিহ্নিত করে আইনের আওতায় আনতে হবে। সমাজিক সম্প্রীতি রক্ষা করার ক্ষেত্রে জনপ্রতিনিধিদের ভূমিকা অপরিসীম। জনগনের ভোটের নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিরা হলো সমাজের অতন্দ্র প্রহরী।

বাঁশখালীর দুর্গম পাহাড়ে অস্ত্র তৈরির কারখানা
                                  

স্বাধীন বাংলা ডেস্ক
চট্টগ্রামের বাঁশখালীতে দুর্গম পাহাড়ি এলাকায় অস্ত্র তৈরির কারখানার সন্ধান পেয়েছে র‌্যাব। সেখানে অভিযান চালিয়ে দশটি অস্ত্র এবং অস্ত্র তৈরির বিপুল পরিমাণ সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় জাকির হোসেন নামে অস্ত্র তৈরির এক কারিগরকে র‌্যাব গ্রেফতার করেছে র‌্যাব।

বুধবার (৩১ আগস্ট) সকালে র‌্যাব-৭-এর সিনিয়র সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) নূরুল আবছার এসব তথ্য জানান। দুপুরে সংবাদ সম্মেলন শেষে গ্রেফতার জাকির হোসেনকে বাঁশখালী থানায় হস্তান্তর করা হবে বলেও জানান তিনি। এর আগে বাঁশখালীতে অস্ত্র তৈরির কারখানায় অভিযান নিয়ে সকাল ১১টায় চান্দগাঁও ক্যাম্পে এক প্রেস ব্রিফিং আয়োজন করা হয়।

পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়ার শর্তে মুক্তি
                                  

স্বাধীন বাংলা প্রতিবেদক
চট্টগ্রামে মামলার অভিযোগ গঠনের দিন দুই আসামি দোষ স্বীকার করায় কারাদণ্ডের পরিবর্তে এক বছর পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়ার শর্তে প্রবেশনে দুই মাদক বিক্রেতাকে মুক্তি দেন আদালত। এ সময় দুটি এতিমখানায় বাংলা অনুবাদসহ দুটি কুরআন শরিফ দেওয়ার আদেশ দিয়েছেন আদালত। মুক্তি পাওয়া আব্দুর রহিম (৩০) ও মোহাম্মদ হোসেন (৪২) এক কেজি গাঁজাসহ নগরীর বন্দর থানায় গ্রেপ্তার হয়েছিলেন।

সোমবার (২৯ আগস্ট) চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট কাজী শরীফুল ইসলামের আদালত এ আদেশ দিয়েছেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন চট্টগ্রাম আদালতের সহকারী পাবলিক প্রসিকিউটর (এপিপি) মোহাম্মদ রায়হাদ চৌধুরী (রনি)।

তিনি বলেন, গত ২২ মে বন্দর থানার পোর্ট কলোনি ১ নম্বর রোডের নতুন মার্কেট জামে মসজিদের সামনে থেকে এক কেজি গাঁজাসহ মোহাম্মদ হোসেন ও আব্দুর রহিমকে গ্রেপ্তারের ঘটনায় বন্দর থানায় মামলা দায়ের করা হয়। গাঁজা জব্দের মামলায় দুই আসামির বিরুদ্ধে সোমবার অভিযোগ গঠনের দিন ধার্য ছিল। অভিযোগ গঠনের সময় আদালতে উপস্থিত হয়ে দুই আসামি দোষ স্বীকার করেন।

তিনি বলেন, এই সময় আদালত দুই আসামিকে এক বছর পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়ার ও দুটি এতিমখানায় দুজনকে বাংলা অনুবাদসহ দুটি কুরআন শরিফ দেওয়ার আদেশ দিয়েছেন। পরে তাদের মুক্তি দিয়েছেন আদালত। তিনি বলেন, আসামিরা আদালতে উপস্থিত হয়ে দোষ স্বীকার করেছেন। আদালত সবকিছু পর্যালোচনা করে এ রায় দিয়েছেন।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, গেল ২২ মে গাঁজাসহ গ্রেপ্তারের ঘটনায় বন্দর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মাসুদুর রহমান বাদী হয়ে দুজনের নামে মামলা দায়ের করেন। গত ২৯ জুন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা বন্দর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) ইয়াছিন আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেন। সোমবার অভিযোগপত্র গঠনের দিন ছিল।

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে পুলিশের সাড়াশি অভিযান; আতঙ্কে উখিয়ার রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী গ্রুপ
                                  

কক্সবাজার জেলা প্রতিনিধি:
মিয়ানমারে সৃষ্টি সহিংসতায় গত ২০১৭ সালের ২৫ আগস্ট মিয়ানমার থেকে রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠী ব্যাপকভাবে বাংলাদেশে পালিয়ে আসার ৫ বছর পূর্ণ হয়েছে গতকাল। সংকটকালে কয়েক দফা প্রত্যাবাসনের উদ্যোগ নিলেও নাগরিকত্ব ও নিরাপত্তা নিশ্চিত না হওয়ায় স্বেচ্ছায় রোহিঙ্গারা ফেরত যায়নি। ফলে প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়া স্থবির হয়ে পডেছে।

কিন্তু পাঁচ বছর পার হলেও তাদের মিয়ানমারে ফিরে যাওয়ার কোনো লক্ষণ দেখা যাচ্ছে না। এরইমধ্যে রোহিঙ্গা শিবিরে খুনোখুনি, অপহরণ, ধর্ষণ, মাদক ব্যবসা, চাঁদাবাজি, মানবপাচারসহ ১৪  অপরাধের সঙ্গে জড়িত কক্সবাজারের উখিয়ায় বসবাসরত কতিপয় রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী গ্রুপের সাথে জড়িত অপরাধীরা।

কক্সবাজার জেলা পুলিশের অপরাধ কর্মকাণ্ডে জড়িত রোহিঙ্গাদের দমনে সব সময় কঠোর অবস্থান মধ্যে ছিলো, ফলে রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীরা ক্যাম্পে দিনের বেলায়  তাদের রাজত্ব কায়েমে ব্যর্থ হয়েছে।

কক্সবাজার জেলা পুলিশ সুপার মোঃ হাসানুজ্জামান জানান, বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির মাধ্যমে রোহিঙ্গা ক্যাম্প ও হোস্ট কমিউনিটিতে যেসব রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী গ্রুপ অশান্তি সৃষ্টি করার পায়তারা করেছে, তাদেরকে সাথে সাথে আইনে আওতায় আনা হচ্ছে । মাদক পাচারসহ অন্যান্য অপরাধে জড়িত রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীর কোন ধরনের ছাড় দেয়নি উখিয়া থানা পুলিশ। বাংলাদেশী জনগোষ্ঠী ও নিরহ রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীকে নিরাপদ রাখতে এই অভিযান অব্যাহত থাকবে।

পুলিশ সুপার মোঃ হাসানুজ্জামান আরো জানান, স্থানীয়দের জানমাল রক্ষার পাশাপাশি রোহিঙ্গা ক্যাম্পের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে উখিয়া থানার পুলিঁম ইতিমধ্যে (২০১৭ সালের ২৫ আগস্ট থেকে ২০২২ সালের ১১ আগস্ট পর্যন্ত) রোহিঙ্গা ক্যাম্পে বিভিন্ন অপরাধে মোট ১৮৯ টি মামলা দায়ের করা হয়েছে। যেখানে সন্ত্রাসী গ্রুপের সাথে জড়িত এমন রোহিঙ্গা  গ্রেপ্তার করা হয়েছে ৪শ জনের মতো। বিগত ৫ বছরে অস্ত্র উদ্ধার মামলা ৯২ টি, হত্যা মামলা ৭৬ টি, ডাকাতির প্রস্তুতি মামলা হয়েছে ২১ টি। এছাড়া বিভিন্ন অভিযানে পুলিশ বিপুল পরিমানে অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে। যার মধ্যে দেশীয় পিস্তল ১১, বিদেশী পিস্তল ৩টি, এলজি ২৫, একনলা বন্দুক ২৮টি, পাইপ গান ৭টি, ওয়ান শুটার গান ২৫টি ,ম্যাগাজিন ৭টি, কুড়াল ১টি, চাপাতি ২৮টি, রামদা ৪৭টি, কিরিচ ১৩টি, চুরি ২১টি, কার্তুজ ১১৩টি, গুলি ৫৭১, রাইফেল ১টি উদ্ধার করা হয়েছে।

উখিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ শেখ মোহাম্মদ আলী জানান, জেলা পুলিশ সুপারের নির্দেশ ও সার্বিক তত্ত্বাবধানে উখিয়া থানা পুলিশ কঠোর অবস্থান গ্রহণ করে সন্ত্রাসী রোহিঙ্গাদের দমনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে যাচ্ছে এবং ভবিষ্যতে মাদক, অস্ত্র উদ্ধার ও অপরাধী আটক কার্যক্রম আরো জোরদার করে স্থানীয়দের পাশাপাশি শান্তি প্রিয় নিরহ রোহিঙ্গাদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে দৃঢ়ভাবে কাজ করে যাবে পুলিশ।

উখিয়া প্রেস ক্লাবের সভাপতি সাঈদ মুহাম্মদ আনোয়ার প্রত্যাবাসন বিলম্বিত হওয়ায় উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেন, সবচেয়ে উৎকণ্ঠার বিষয় রোহিঙ্গারা নানা অবৈধ কারবারের সঙ্গে জড়িয়ে সারা দেশে ছড়িয়ে পড়ছে। তারা জন্ম নিবন্ধন সনদ,  জাতীয় পরিচয়পত্র, পাসপোর্ট তৈরি  করে নিচ্ছে  কতিপয় জনপ্রতিনিধিদের  সহযোগিতায়। বিভিন্ন স্থানে বিয়ে করে বাংলাদেশিদের সাথে সম্পর্ক গড়ে তুলছে। এই মুহুর্তে রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসনের কোন বিকল্প নেই। আন্তর্জাতিক সংস্থা গুলো মায়ানমারের উপর চাপ সৃষ্টি করতে ব্যর্থতা পরিচয় দিয়েছে।
 
তিনি আরো বলেন ক্যাম্প প্রশাসন, এপিবিএন ক্যাম্পের আইন শৃঙ্খলা রক্ষায় কাজ করলে, সন্ধ্যার পর থেকে ভোর পর্যন্ত  তা আর সন্তোষজনক থাকে না। তাই এই মুহুর্তে উখিয়া থানা পুলিশের জনবল বৃদ্ধির মাধ্যমে ক্যাম্প অভ্যন্তরে ধারাবাহিক থানা পুলিশের অভিযান অব্যাহত রাখা জরুরি। পাশাপাশি সরকারি গোয়েন্দা সংস্থারও জনবলও বৃদ্ধি করতে হবে এবং গোয়েন্দা সংস্থার সংস্থা তৎপরতা আরো অনেক  জোরদার করা জরুরি । উখিয়া থানার বর্তমান অফিসার ইনচার্জ শেখ মোহাম্মদ আলী কতৃক ক্যাম্পের ভিতরে পরিচালিত সকল অভিযানেই সফলতা দেখাতে সক্ষম হয়েছে, সেই কারনে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে জেলা ও থানা পুলিশের তৎপরতা আরো বৃদ্ধি ও সাড়াশি অভিযান জোরালো করার দাবী স্থানীয় জনগোষ্ঠীর পক্ষ থেকে জোরদার হচ্ছে।

উখিয়া প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক রতন কান্তি দে বলেন, রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসন বিলম্ব দীর্ঘ হলে সামাজিকসহ নানাভাবে নিরাপত্তার ঝুঁকি ও পরিবেশ বিপর্যয়ে পড়ে স্থানীয় জনগোষ্ঠী।

স্থানীয় বাসিন্দা, জনপ্রতিনিধি এবং সংশ্লিষ্ট বিশেষজ্ঞরা বলছেন, দিন যত যাচ্ছে রোহিঙ্গাদের মধ্যে অপরাধপ্রবণতা ততই বাড়ছে। এর মধ্যে ক্যাম্পে আরাকান রোহিঙ্গা স্যালভেশন আর্মিসহ (আরসা) অন্তত সাত-আটটি গ্রুপ সক্রিয়, বর্তমানে সকল সন্ত্রাসী গ্রুপ একজোট হয়েছে প্রত্যাবাসন বিলম্ব করার জন্য, প্রত্যাবাসনের পক্ষে অবস্থান নেওয়া রোহিঙ্গা নেতাদের তারা একের  পর হত্যা করে চলছে, এতে মিয়ানমারের পরোক্ষ ও প্রত্যক্ষ ইন্ধনও রয়েছে। মিয়ানমার থেকে তাদের সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড পরিচালনায় জন্য মাদক,অস্ত্র, স্বর্ণ দিয়ে  সহযোগিতাও করা হচ্ছে।


   Page 1 of 55
     চট্রগ্রাম
টেকনাফে থেমে থেমে গুলির শব্দ
.............................................................................................
ভাটিয়ারীতে বগি লাইনচ্যুত, ঢাকা-চট্টগ্রাম ট্রেন চলাচল বন্ধ
.............................................................................................
চবিতে ফের ছাত্রলীগের অবরোধ, ক্লাস-পরীক্ষা বন্ধ
.............................................................................................
চকরিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের নবগঠিত কমিটি সংবর্ধিত
.............................................................................................
ঘুমধুম কেন্দ্রের সব পরীক্ষা হবে কুতুপালং হাই স্কুলে
.............................................................................................
চট্টগ্রাম এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে: ব্যয় বাড়ছে ১ হাজার ৫০ কোটি
.............................................................................................
মেয়াদোত্তীর্ণ ৩৮২ কনটেইনার পণ্য ধ্বংস করা হবে
.............................................................................................
খাগড়াছড়ির গুইমারার অনগ্রসর গ্রাম আগা ওয়াকছড়ি
.............................................................................................
রাঙ্গামাটি জেলা পরিষদের ৮৩ কোটি টাকার বাজেট ঘোষণা
.............................................................................................
রাঙ্গামাটিতে ৭৫৩ শিক্ষার্থীকে শিক্ষাবৃত্তি প্রদান
.............................................................................................
রাঙ্গামাটিতে ৩২ ঘন্টার হরতালের ডাক পিসিএনপি’র
.............................................................................................
চকরিয়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় বৃদ্ধ নিহত
.............................................................................................
উখিয়ায় সমাজিক সম্প্রীতি বিষয়ক ডায়ালগ অনুষ্ঠিত
.............................................................................................
বাঁশখালীর দুর্গম পাহাড়ে অস্ত্র তৈরির কারখানা
.............................................................................................
পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়ার শর্তে মুক্তি
.............................................................................................
রোহিঙ্গা ক্যাম্পে পুলিশের সাড়াশি অভিযান; আতঙ্কে উখিয়ার রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী গ্রুপ
.............................................................................................
লংগদুতে গোলাগুলি : ঘটনাস্থলে লাশ খুঁজে পায়নি নিরাপত্তা বাহিনী
.............................................................................................
রোহিঙ্গা ক্যাম্পের ন্যাড়া পাহাড় এখন সবুজ হয়ে আসছে
.............................................................................................
শের-ই-বাংলা মেডিকেলে তালা ঝুলিয়ে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ
.............................................................................................
ঈশা খাঁ ঘাঁটির মসজিদে বোমা বিস্ফোরণে ৫ জেএমবির মৃত্যুদণ্ড
.............................................................................................
সেনাবাহিনীর গাড়ি খাদে পড়ে নিহত ১, আহত ৩
.............................................................................................
সাড়ে ৮ কোটি টাকার কাজ ভাগিয়ে নিতে ভুয়া টেন্ডার
.............................................................................................
শহর পরিষ্কারের কেরামতি শিখতে জাপান যাচ্ছে চসিক কর্মকর্তা
.............................................................................................
বিদ্যালয়ের গেট ভেঙে প্রাণ গেল শিশু শিক্ষার্থীর
.............................................................................................
রোহিঙ্গা ক্যাম্পে গোলাগুলি, নিহত ২
.............................................................................................
সভাপতি হওয়ায় চকরিয়া ছাত্রলীগ সভাপতি রুবেলের কৃতজ্ঞতা প্রকাশ
.............................................................................................
চট্টগ্রাম বিমান বন্দরের রানওয়ে বন্ধ
.............................................................................................
স্কুল ভবন নির্মাণের সময় সিঁড়ি ছিটকে দুই শ্রমিক নিহত
.............................................................................................
ভাড়া নির্ধারণের দাবিতে রাঙ্গামাটিতে গণপরিবহন বন্ধ
.............................................................................................
চট্টগ্রামে বন্ধ গণপরিবহন
.............................................................................................
আলীকদমে বিরোধের জের ধরে বসতবাড়িতে আগুন
.............................................................................................
কানাইঘাট প্রেস ক্লাবের উদ্যোগে বন্যাপরবর্তী স্বাস্থ্যসেবা প্রদান
.............................................................................................
দক্ষিণ চট্টলার মইজ্জারটেকে চলছে গলাকাটা ভাড়া আদায়ের মহোৎসব
.............................................................................................
আলীকদমে রাস্তার উপর ধান রোপন করে প্রতিবাদ
.............................................................................................
গেটম্যান ছিলেন না, মামলা হবে : পুলিশ
.............................................................................................
চট্টগ্রামে ফেরার পথে সেই ট্রেনে কাটা পড়ে আরও একজন নিহত
.............................................................................................
বঙ্গোপসাগরে ১০ ট্রলার ডাকাতি, মাছ ও মালামাল লুট
.............................................................................................
চট্টগ্রামে ট্রেনের ধাক্কায় মাইক্রোবাসের ১১জন নিহত
.............................................................................................
চকরিয়া-মহেশখালী সড়কে শিক্ষার্থীদের, টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ
.............................................................................................
টেকনাফের সেই ইউএনও অবশেষে চট্টগ্রামে
.............................................................................................
প্রধানমন্ত্রীকে কটূক্তিকারী সেই ইকবাল ইউনুছ এখনও অধরা!
.............................................................................................
বাবার মোটরসাইকেল থেকে পড়ে কলেজছাত্রীর মৃত্যু
.............................................................................................
চট্টগ্রামে মদের দুটি বড় চালান জব্দ
.............................................................................................
দুর্নীতির রিপোর্ট করায় সাংবাদিককে বেজন্মা বললেন ইউএনও
.............................................................................................
নিচু জায়গায় নির্মাণ করা উপহারের ঘর পানিতে ভাসছে
.............................................................................................
হালদায় অবৈধ জালে মারা পড়ছে বিপন্ন প্রজাতির ডলফিন
.............................................................................................
পুলিশের হাতে পুরস্কৃত হলেন সাহসী রিকশা চালক হান্নান
.............................................................................................
উপজেলা আ.লীগের সম্মেলনকে ঘিরে সরগরম আনোয়ারার রাজনীতির মাঠ
.............................................................................................
আলীকদম রিপোর্টাস ক্লাবের সভাপতি শুভ রঞ্জন, সম্পাদক জয় দেব
.............................................................................................
‘বঙ্গবন্ধু টানেল’ আরও একটি স্বপ্ন ছোঁয়ার প্রতীক্ষায় দেশ
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

সম্পাদক ও প্রকাশক : মোহাম্মদ আখলাকুল আম্বিয়া
নির্বাহী সম্পাদক: মাে: মাহবুবুল আম্বিয়া
যুগ্ম সম্পাদক: প্রদ্যুৎ কুমার তালুকদার

সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক কার্যালয়: স্বাধীনতা ভবন (৩য় তলা), ৮৮ মতিঝিল বাণিজ্যিক এলাকা, ঢাকা-১০০০। Editorial & Commercial Office: Swadhinota Bhaban (2nd Floor), 88 Motijheel, Dhaka-1000.
সম্পাদক কর্তৃক রঙতুলি প্রিন্টার্স ১৯৩/ডি, মমতাজ ম্যানশন, ফকিরাপুল কালভার্ট রোড, মতিঝিল, ঢাকা-১০০০ থেকে মুদ্রিত ও প্রকাশিত ।
ফোন : ০২-৯৫৫২২৯১ মোবাইল: ০১৬৭০৬৬১৩৭৭

Phone: 02-9552291 Mobile: +8801670 661377
ই-মেইল : dailyswadhinbangla@gmail.com , editor@dailyswadhinbangla.com, news@dailyswadhinbangla.com

 

    2015 @ All Right Reserved By dailyswadhinbangla.com

Developed By: Dynamic Solution IT