রবিবার, ১৪ এপ্রিল 2024 বাংলার জন্য ক্লিক করুন
  
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

   রাজনীতি -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
শীর্ষ নেতাদের যা বললেন খালেদা জিয়া

স্বাধীন বাংলা প্রতিবেদন:

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, তাদের সঙ্গে সাক্ষাতের সময় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া বলেছেন জনগণের কল্যাণেই তিনি রাজনীতি করেছেন, রাষ্ট্রের কল্যাণের জন্য রাজনীতি করছেন। এখন যে তিনি অসুস্থ অবস্থায়, বন্দি অবস্থায় বলা যেতে পারে-সেটাও রাজনৈতিক কারণে আছেন। উনি এই কথাগুলোই বলেছেন।

বৃহস্পতিবার রাতে গুলশানের বাসভবন ‘ফিরোজা’য় খালেদা জিয়ার সঙ্গে বিএনপির সিনিয়র নেতাদের সঙ্গে সাক্ষাৎ শেষে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা জানান।

ফিরোজার মূল ফটকের সামনে মির্জা ফখরুল আরও বলেন, ঈদের দিন তিনি (খালেদা জিয়া) আমাদের ডাকেন, আমরা কথা বলি। পুরোপুরি সৌজন্যমূলক কথাবার্তা। কোনো রাজনৈতিক আলোচনা হয়নি। তিনি তো একজন রাজনৈতিক ব্যক্তি, দলের চেয়ারপারসন। তিনবার প্রধানমন্ত্রী ছিলেন। এখনো তিনি রাজনৈতিক কারণেই বন্দি হয়ে আছেন। আমরা সব সময় বলে আসছি অবিলম্বে তাকে মুক্তি দেওয়া উচিত। মুক্তি দিয়ে বিদেশে চিকিৎসার ব্যবস্থা করা উচিত। এ কথাটা এখনো জোর দিয়ে আপনাদের মাধ্যমে জাতিকে জানাতে চাই।

খালেদা জিয়া দেশবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন উল্লেখ করে মির্জা ফখরুল আরও বলেন, একই সঙ্গে স্বাস্থ্য ভালো থাকার জন্য দোয়া চেয়েছেন।

ঈদের শুভেচ্ছা জানাতে রাতে খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন বিএনপির ৯ সিনিয়র নেতা। রাত আটটায় গুলশানের বাসা ‘ফিরোজা’য় বিএনপি চেয়ারপারসনের সঙ্গে দেখা করতে যান দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের নেতৃত্বে স্থায়ী কমিটির আটজন সদস্য।

বিএনপি মহাসচিব ছাড়া অন্যরা হলেন- স্থায়ী কমিটির সদস্য জমির উদ্দিন সরকার, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, আবদুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান ও সেলিমা রহমান, ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান, হাফিজ উদ্দিন আহমেদ।

পরে লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টির (এলডিপি) প্রেসিডেন্ট কর্নেল (অব.) ড. অলি আহমদ এবং তার স্ত্রীও বিএনপি চেয়ারপারসনের সঙ্গে দেখা করে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করেন।

প্রায় ঘণ্টাব্যাপী বিএনপি নেতৃবৃন্দ দলের চেয়ারপারসনের সঙ্গে ঈদের শুভেচ্ছা ও কুশল বিনিময় করেন।

দুর্নীতির মামলায় দণ্ডিত হয়ে ২০১৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি কারাগারে যান সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া। দেশে করোনাভাইরাস সংক্রমণ শুরু হওয়ার পর ২০২০ সালের ২৫ মার্চ সরকারের নির্বাহী আদেশে শর্তসাপেক্ষে সাজা স্থগিত করে সাময়িকভাবে মুক্তি দেওয়া হয় তাকে। এরপর থেকে গুলশানের ওই বাসায় থাকছেন বিভিন্ন শারীরিক সমস্যায় আক্রান্ত ৭৯ বয়সি খালেদা জিয়া। যেখানে দলের নেতাকর্মীসহ অন্যরা তার সাক্ষাৎ পান না।

শীর্ষ নেতাদের যা বললেন খালেদা জিয়া
                                  

স্বাধীন বাংলা প্রতিবেদন:

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, তাদের সঙ্গে সাক্ষাতের সময় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া বলেছেন জনগণের কল্যাণেই তিনি রাজনীতি করেছেন, রাষ্ট্রের কল্যাণের জন্য রাজনীতি করছেন। এখন যে তিনি অসুস্থ অবস্থায়, বন্দি অবস্থায় বলা যেতে পারে-সেটাও রাজনৈতিক কারণে আছেন। উনি এই কথাগুলোই বলেছেন।

বৃহস্পতিবার রাতে গুলশানের বাসভবন ‘ফিরোজা’য় খালেদা জিয়ার সঙ্গে বিএনপির সিনিয়র নেতাদের সঙ্গে সাক্ষাৎ শেষে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা জানান।

ফিরোজার মূল ফটকের সামনে মির্জা ফখরুল আরও বলেন, ঈদের দিন তিনি (খালেদা জিয়া) আমাদের ডাকেন, আমরা কথা বলি। পুরোপুরি সৌজন্যমূলক কথাবার্তা। কোনো রাজনৈতিক আলোচনা হয়নি। তিনি তো একজন রাজনৈতিক ব্যক্তি, দলের চেয়ারপারসন। তিনবার প্রধানমন্ত্রী ছিলেন। এখনো তিনি রাজনৈতিক কারণেই বন্দি হয়ে আছেন। আমরা সব সময় বলে আসছি অবিলম্বে তাকে মুক্তি দেওয়া উচিত। মুক্তি দিয়ে বিদেশে চিকিৎসার ব্যবস্থা করা উচিত। এ কথাটা এখনো জোর দিয়ে আপনাদের মাধ্যমে জাতিকে জানাতে চাই।

খালেদা জিয়া দেশবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন উল্লেখ করে মির্জা ফখরুল আরও বলেন, একই সঙ্গে স্বাস্থ্য ভালো থাকার জন্য দোয়া চেয়েছেন।

ঈদের শুভেচ্ছা জানাতে রাতে খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন বিএনপির ৯ সিনিয়র নেতা। রাত আটটায় গুলশানের বাসা ‘ফিরোজা’য় বিএনপি চেয়ারপারসনের সঙ্গে দেখা করতে যান দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের নেতৃত্বে স্থায়ী কমিটির আটজন সদস্য।

বিএনপি মহাসচিব ছাড়া অন্যরা হলেন- স্থায়ী কমিটির সদস্য জমির উদ্দিন সরকার, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, আবদুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান ও সেলিমা রহমান, ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান, হাফিজ উদ্দিন আহমেদ।

পরে লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টির (এলডিপি) প্রেসিডেন্ট কর্নেল (অব.) ড. অলি আহমদ এবং তার স্ত্রীও বিএনপি চেয়ারপারসনের সঙ্গে দেখা করে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করেন।

প্রায় ঘণ্টাব্যাপী বিএনপি নেতৃবৃন্দ দলের চেয়ারপারসনের সঙ্গে ঈদের শুভেচ্ছা ও কুশল বিনিময় করেন।

দুর্নীতির মামলায় দণ্ডিত হয়ে ২০১৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি কারাগারে যান সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া। দেশে করোনাভাইরাস সংক্রমণ শুরু হওয়ার পর ২০২০ সালের ২৫ মার্চ সরকারের নির্বাহী আদেশে শর্তসাপেক্ষে সাজা স্থগিত করে সাময়িকভাবে মুক্তি দেওয়া হয় তাকে। এরপর থেকে গুলশানের ওই বাসায় থাকছেন বিভিন্ন শারীরিক সমস্যায় আক্রান্ত ৭৯ বয়সি খালেদা জিয়া। যেখানে দলের নেতাকর্মীসহ অন্যরা তার সাক্ষাৎ পান না।

প্রথম বৈঠকেই নির্বাচনী এলাকার রাস্তা সংস্কারের দাবি এমপি জাহাঙ্গীরের
                                  

সাজ্জাদ হোসেন, মুরাদনগর:

দ্বাদশ জাতীয় সংসদের ‘সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটি’র প্রথম বৈঠক বুধবার দুপুরে জাতীয় সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত হয়।

বৈঠকে কুমিল্লার মুরাদনগরের এমপি জাহাঙ্গীর আলম সরকার তাঁর বক্তব্যে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য নির্বাচিত করায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে কৃতজ্ঞতা জানান। পরে তিনি সদ্য একনেক বৈঠকে পাশ হওয়া ইলিয়টগঞ্জ-মুরাদনগর-বাঞ্ছারামপুর সড়কের কাজ দ্রুত শুরু করার তাগিদ দেন। একই সাথে তিনি মুরাদনগর উপজেলার জনস্বার্থে বাস্তবায়ন জরুরী অসমাপ্ত কাজগুলো সমাধান করার বিষয়টিও বৈঠকে তুলে ধরেন।

সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির বৈঠকে কমিটির সভাপতি রেজওয়ান আহাম্মদ তৌফিক সভাপতিত্ব করেন। কমিটির সদস্য ওবায়দুল কাদের, মো. মুজিবুল হক, জাহাঙ্গীর আলম সরকার, মো. আবু জাহির, সেখ সালাহউদ্দিন, আব্দুল্লাহ-আল-কায়সার, মোহাম্মদ গোলাম ফারুক ও মোছা. নাছিমা জামান ববি বৈঠকে অংশগ্রহণ করেন।

বৈঠকে পরিচিতি পর্ব, সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয় এবং অধিনস্থ বিভাগ ও দপ্তরগুলোর কার্যক্রম বিষয়ক সংক্ষিপ্ত আলোচনা হয়। বৈঠকে আসন্ন ঈদ উল ফিতর উপলক্ষ্যে সড়ক পথে ঘরমুখো মানুষের বাড়ি যাওয়া ও ফেরত আসা নির্বিঘ্ন করতে মন্ত্রণালয়কে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণের সুপারিশ করা হয়।

বৈঠকে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব এ বি এম আমিন উল্লাহ নুরী, সেতু বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত সচিব ও প্রধান প্রকৌশলী, বিআরটিএ ও বিআরটিসির চেয়ারম্যান, মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব, সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সচিব একেএমজি কিবরিয়া মজুমদার, বিভিন্ন দপ্তর ও সংস্থা প্রধানসহ মন্ত্রণালয় ও বাংলাদেশ জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

ছাত্রলীগ ঢাবিতে ফ্যাসিবাদ কায়েম করে বুয়েটে গণতন্ত্র চায় : ছাত্রদল
                                  

স্বাধীন বাংলা প্রতিবেদন:

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বুয়েট) ক্যাম্পাসে ছাত্র রাজনীতির চর্চা থাকবে কি থাকবে না সেই সিদ্ধান্ত শুধুমাত্র বুয়েট শিক্ষার্থীরাই নেবে বলে জানিয়েছে ছাত্রদল। বুধবার (৩ এপ্রিল) দুপুর ১২টায় ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাগর রুনি মিলনায়তনে এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানাই ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় কমিটি।

লিখিত বক্তব্যে ছাত্রদলের সভাপতি রাকিবুল ইসলাম রাকিব বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিন ছাত্ররাজনীতির আতুড়ঘর এবং গণতন্ত্র চর্চার তীর্থস্থান হিসেবে খ্যাত ছিল। কিন্তু ছাত্রলীগ গত পনের বছর ধরে এককভাবে মধুর ক্যান্টিন দখলে রেখে বিশ্ববিদ্যালয়ের গণতন্ত্র চর্চার কফিনে শেষ পেরেক মেরে দেয়।

তিনি বলেন, মধুর ক্যান্টিনে নিষ্ঠুর ফ্যাসিবাদ কায়েম করে বুয়েটে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করতে যাওয়া একটি প্রহসন। এর পেছনে রাজনীতি চর্চার কোনো উদ্দেশ্য নেই বরং বুয়েটের ক্যান্টিন, মেস, দোকানপাট থেকে চাঁদাবাজি এবং উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ড থেকে টেন্ডারবাজি করতে না পারার হতাশা থেকে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় নেতা ছাত্রলীগ সমর্থক নগণ্য সংখ্যক বিপথগামী বুয়েটের শিক্ষার্থীর সহায়তায় ক্যাম্পাসে পুনরায় লুটপাট এবং সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড শুরু করার ষড়যন্ত্র করেছে।

তিনি বলেন, বুয়েটে ছাত্রলীগের কার্যক্রম চালু করার পদক্ষেপ বুয়েটের সাধারণ শিক্ষার্থীদের জীবনের নিরাপত্তার জন্য হুমকিস্বরূপ। বুয়েটের শিক্ষার্থীরা এখন শঙ্কিত এই কারণে যে, ছাত্রলীগের কার্যক্রম পুনরায় চালু হলে তাদের পড়াশোনা এবং ক্লাস পরীক্ষা বাদ দিয়ে ছাত্রলীগের মিছিল-মিটিং, গেস্টরুমে হাজিরা দিতে হবে। তাদের কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ না করলে শারীরিক নির্যাতনের শিকার হতে হবে। ছাত্রলীগের ক্যাডারদের বিরাগভাজন হলে হল থেকে বিতাড়িত করা হতে পারে। বুয়েটের প্রতিটি শিক্ষার্থী আতঙ্কিত কারণ যেকোনো মুহূর্তে তাদের যে কারো জীবনে ছাত্রলীগের নির্যাতনে আবরারের মতো মর্মান্তিক পরিণতি নেমে আসতে পারে। ছাত্রলীগের উপস্থিতিতে বুয়েটের সাধারণ শিক্ষার্থীদের জীবনের নিরাপত্তাহীনতা এবং একাডেমিক পড়াশোনার ক্ষতির আশঙ্কাকে আমরা অত্যন্ত যৌক্তিক মনে করছি। এ বিষয়ে আমরা অত্যন্ত উদ্বিগ্ন।

তিনি আরও বলেন, সাংবিধানিক অধিকারের কথা বলে ছাত্রলীগ বুয়েটে ছাত্ররাজনীতি ফিরিয়ে আনার যে কথা বলেছে তা একটি নিষ্ঠুর প্রতারণা। ছাত্র রাজনীতির নামে তারা ক্যাম্পাসে একক দখলদারিত্ব এবং ছাত্র নির্যাতনের টর্চার সেল পুনঃপ্রতিষ্ঠা করতে চাচ্ছে। ছাত্রলীগ ক্যাম্পাসগুলোতে ‘টোটালিটারিয়ান ভায়োলেন্ট অ্যাক্টিভিজম’ করছে। ক্যাম্পাসে ভায়োলেন্স এবং টর্চারকে ছাত্ররাজনীতি বলা যায় না। ছাত্র রাজনীতি চালু করতে হলে সকল ক্যাম্পাসে এবং হলে সকল রাজনৈতিক রাজনৈতিক সংগঠনের সহাবস্থান নিশ্চিত করা আবশ্যক।

তিনি বলেন, সংগঠনকে অবাধে রাজনৈতিক কার্যক্রম চালানোর সুযোগ দিতে হবে। সকল শিক্ষার্থীকে স্বাধীনভাবে মতপ্রকাশের সুযোগ দিতে হবে। কিন্তু এসবের কোনো কিছু না করে ছাত্রলীগের সভাপতিসহ কেন্দ্ৰীয় নেতাদের সঙ্গে রাতের আঁধারে মিটিং করে বুয়েটের ছাত্রকল্যাণ পরিদপ্তরের পরিচালক (ডিএসডব্লিউ) ছাত্রলীগের দখলদারিত্ব পুনঃপ্রতিষ্ঠা করার ষড়যন্ত্রে শামিল হয়েছে। ভবিষ্যতে বুয়েটের কোনো শিক্ষার্থী নির্যাতনের শিকার হলে তার দায়দায়িত্ব ছাত্রলীগকে এবং বুয়েটের প্রশাসনকে বহন করতে হবে।

তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল, বুয়েটসহ দেশের সকল ক্যাম্পাসে ছাত্র সংসদ নির্বাচন এবং সহাবস্থান দাবী করছি। বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল একটি গণতান্ত্রিক ছাত্রসংগঠন হিসেবে সুস্থ ধারার গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে রাজনীতি চর্চায় বিশ্বাসী। বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল বুয়েটের সাধারণ শিক্ষার্থীদের মতামতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হয়ে ক্যাম্পাসে অপরাজনীতির বিরুদ্ধে চলমান আন্দোলনের প্রতি সংহতি প্রকাশ করছে।

সংবাদ সম্মেলনে ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় কমিটি এবং ঢাকার বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

একাত্তরের মতো ভারত এবারও আমাদের পাশে দাঁড়িয়েছে: কাদের
                                  

স্বাধীন বাংলা প্রতিবেদন:

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহণ ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ভারত বাংলাদেশের নির্বাচন নিয়ে দেশি-বিদেশি ষড়যন্ত্রের খেলা; একাত্তরেও এই খেলা চলেছিল। এই অশুভ খেলায় একাত্তরের মতো ভারতসহ কিছু বন্ধু এবারও আমাদের পাশে দাঁড়িয়েছে।

শনিবার (৩০ মার্চ) দুপুরে বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে রংপুর বিভাগের আওয়ামী লীগের নেতাদের সঙ্গে মতবিনিময় সভার শুরুতে এসব কথা বলেন তিনি।

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ভারত আমাদের পাশে দাঁড়িয়েছে। দুঃসময়ে, একাত্তরে পাশে দাঁড়িয়েছে। এই অশুভ খেলায় একাত্তরের মতো ভারতসহ কিছু বন্ধু এবারও আমাদের পাশে দাঁড়িয়েছে। এটা হলো ভারতের অপরাধ। সে ভারতীয় পণ্য বর্জন করতে বলে। রাজনীতির এই নোংরা খেলা পাকিস্তান আমলে বঙ্গবন্ধুর বিরুদ্ধে যে অশুভ খেলা—- ভারত বিরোধিতা, ঠিক একই অশুভ খেলা আবার শুরু হয়েছে। সব কিছু হারিয়ে বিএনপি এখন ভারত বিরোধিতায় নেমেছে। অ্যান্টি ইন্ডিয়া ক্যাম্পেইন।

তিনি বলেন, ভারতীয় পণ্য যারা বর্জন করতে বলে, তাদের রান্না ঘরে, তাদের ড্রেসিং রুমে, তাদের শোবার ঘরে ভারত। এটা হলো বাস্তবতা।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘দল ফ্রি স্টাইল নয়। কারো দায়িত্বজ্ঞানহীন বক্তব্যের দায় দল নেবে না। এক্ষেত্রে দল সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেবে।’

তিনি বলেন, সাংগঠনিক প্রক্রিয়ায় যেসব দেয়াল আছে সেসব ভেঙে দিতে হবে। উপজেলা নির্বাচন উন্মুক্ত করে দিয়ে দল দেখতে চায় কতটুকু প্রতিদ্বন্দ্বিতা হয়। কোনো মন্ত্রী এমপির অন্যায্য প্রভাব বরদাশত করা হবে না। নির্বাচন সম্পূর্ণভাবে সুষ্ঠু নির্বাচন দেখতে চায় দল। কোন বাধা মেনে নেওয়া হবে না।

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, জাতীয় নির্বাচনের মধ্য দিয়ে নির্বাচন নিয়ে মানুষের ভয় কেটে গেছে। বিএনপি কী বলল না বলল এটা বিচার করে দেশের রাজনীতি চলবে না। তারা নির্বাচনে না গেলেও ৪২ শতাংশ মানুষ ভোট দিয়েছে। বিদেশিরাও এ বাস্তবতা বুঝতে পেরে সরকারের সঙ্গে সহযোগিতা করছে।

আওয়ামী লীগ ও সরকার সঠিক পথে আছে। এই মুহূর্তে বাংলাদেশের সার্বিক অবস্থা স্থিতিশীল। দেশবাসীর বিভ্রান্ত হওয়ার কারণ নেই বলেও উল্লেখ করেন ওবায়দুল কাদের।

বিএনপি পাকিস্তানি কায়দায় ভারত বিরোধিতা করছে: ওবায়দুল কাদের
                                  

স্বাধীন বাংলা প্রতিবেদন:

বিএনপি পাকিস্তানি কায়দায় ভারত বিরোধিতা শুরু করেছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

শনিবার (২৩ মার্চ) সকাল সাড়ে ১০টায় রাজধানীর তেজগাঁওয়ে ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে ইফতার সামগ্রী বিতরণ অনুষ্ঠানে এমন মন্তব্য করেন তিনি।

ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপি আবারও পাকিস্তানি কায়দায় ইস্যু না পেয়ে ভারত বিরোধিতা শুরু করেছে। জনগণ ভোট দিয়ে শেখ হাসিনাকে নির্বাচিত করেছে। তারপরও বলে ভারত নির্বাচিত করেছে আমাদের। ভারত নির্বাচন বানচালের ষড়যন্ত্র প্রতিহতে সব সময় আমাদের পাশে দাঁড়িয়েছে।

তিনি বলেন, পাকিস্তান আমল থেকে যে অপপ্রচার শুনেছি, কোনো রাজনৈতিক ইস্যু যখন থাকে না তখন একটাই ইস্যু আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে নিয়ে আসে। আগে বঙ্গবন্ধুর বিরুদ্ধে আনতো আর এখন শেখ হাসিনার বিরুদ্ধে আনে, সেটা হচ্ছে ভারত বিরোধীতার ইস্যু।

বিএনপি অবাক করা দল মন্তব্য করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, এক নেতা বলে বাংলাদেশকে স্বাধীন করার জন্য আপনারা সহযোগিতা করেছেন। আরেকজন বলে ভারতীয় পণ্য বর্জন করুন। এখন এই দলের নেতায় নেতায় মতের কোনো মিল নেই। মঈন খান বলে এক কথা, রিজভী বলে আরেক কথা। আবার সিঙ্গাপুর থেকে ফখরুল সাহেব বলেন আরেক কথা।

স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষ্যে ৩ দিনের কর্মসূচি ঘোষণা বিএনপির
                                  

স্বাধীন বাংলা প্রতিবেদন:

মহান স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে তিন দিনের কর্মসূচি ঘোষণা করেছে বিএনপি। দিবসটি উপলক্ষে আগামী ২৫ মার্চ রাজধানীতে মুক্তিযোদ্ধা সমাবেশের আয়োজন করবে দলটি।

রাজধানীর গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে বৃহস্পতিবার দুপুরে এক সংবাদ সম্মেলনে এ কর্মসূচি ঘোষণা করেন বিএনপির প্রচার বিষয়ক সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানি।

এ সময় বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান মেজর (অব.) হাফিজ উদ্দিন আহমদ, ঢাকা মহানগর বিএনপি ভারপ্রাপ্ত আহ্বায়ক ড. ফরহাদ হালিম ডোনার, চেয়ারপারসনের বিশেষ সহকারী অ্যাডভোকেট শামসুর রহমান শিমুল বিশ্বাস, যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স, রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুদু, বিলকিস জাহান শিরিনসহ অন্যান্য নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

স্বাধীনতা দিবসের তিন দিনের কর্মসূচির প্রথম দিন ২৫ মার্চে রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে মুক্তিযোদ্ধা সমাবেশ করা হবে। সকাল ১০টায় শুরু হয়ে দুপুর ১২টায় সমাবেশ শেষ হবে। স্বাধীনতা দিবস ২৬ মার্চ ভোর ৬টায় নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে দলীয় ও জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হবে।

সকাল ৭টায় গুলশানে দলের চেয়ারপারসনের কার্যালয় থেকে সাভারে জাতীয় স্মৃতিসৌধের উদ্দেশে রওনা করবেন নেতাকর্মীরা। স্মৃতিসৌধে শ্রদ্ধা নিবেদনের পর রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে দলের প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হবে।

পরের দিন ২৭ মার্চ রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউটে স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা আয়োজন করবে বিএনপি।

অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে শামীম ওসমান
                                  

নিজস্ব সংবাদদাতা:

নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ-সদস্য একেএম শামীম ওসমান বুকে ব্যথার কারণে রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন।

সেখানে ভর্তির পর তার এনজিওগ্রাম করা হলে সবকিছু স্বাভাবিক পাওয়া যায়। বর্তমানে তিনি সুস্থ আছেন।

মঙ্গলবার সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে বিষয়টি জানিয়েছেন তার ছেলে অয়ন ওসমান। এদিকে শামীম ওসমানের সুস্থতা কামনায় সবার কাছে তার পরিবারের সদস্যরা দোয়া চেয়েছেন।

সাকিব আমার কাছে এসেছিল, উৎসাহ না পেয়ে ফিরে গেছেসাকিব আমার কাছে এসেছিল, উৎসাহ না পেয়ে ফিরে গেছে
                                  

স্বাধীন বাংলা প্রতিবেদন:

ক্রিকেট তারকা সাকিব আল হাসানের সঙ্গে ছবি নিয়ে মনের মাধুরী মিশিয়ে নানান ধরনের সংবাদ পরিবেশন করা হচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান মেজর (অবসরপ্রাপ্ত) হাফিজ উদ্দিন আহমেদ। মঙ্গলবার বনানীর বাসায় সংবাদ সম্মেলনে এ মন্তব্য করেন তিনি।

সম্প্রতি একটি জাতীয় দৈনিক পত্রিকায় হাফিজ উদ্দিন আহমেদকে নিয়ে প্রকাশিত প্রতিবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

হাফিজ বলেন, ভাবমূর্তি ক্ষুণ্নের অপচেষ্টা এ সংবাদে লক্ষ্য করেছি। ৭৯ বছর বয়স... আমার জীবন খোলা বই... গত ৩২ বছর ধররে বিএনপিতে। ৪ মাস পর এমন সংবাদ অবমাননাকর, মানহানিকর। জাতীয়তাবাদের পরিক্ষীত সৈনিক হিসেবে জাতীয়তাবাদী শক্তিকে সার্ভিস দিতে চাই। নিজে খেলোয়াড় ছিলাম বলে ক্রীড়াবিদদের প্রতি দুর্বলতা আছে।

তিনি বলেন, বাংলাদেশের রাজনীতি অত্যন্ত নোংরা, দেশে গণতন্ত্র নেই। নির্বাচনের সময় নানান কলাকৌশল গ্রহণ করে। যারা ক্ষমতায় থাকে বিরোধীদের ভাগিয়ে এনে প্রতিপক্ষকে ক্ষতিগ্রস্ত করতে চায়। এবারও নির্বাচনের আগে ‘কিংস পার্টি’ গজিয়ে ওঠে। সামরিকবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত ৩-৪ জন কর্মকর্তা নতুন রাজনৈতিক দল গঠনের পরামর্শ দেয়। আমি বলেছি, সাধারণ মানুষ ছাড়া রাজনীতিতে টিকে থাকার সুযোগ নেই। সরকারের পক্ষ থেকে যারা যোগাযোগ করেছে, তারা ধরে নিয়েছিল আমি বিএনপি ত্যাগ করতে উদগ্রীব।

হাফিজ বলেন, অবসরপ্রাপ্ত দুজন সামরিক কর্মকর্তা বিএনএম গঠন করে, সাকিব আল হাসানকে আমার কাছে নিয়ে আসে। নির্বাচনের ৪-৫ মাস আগে আমার কাছ থেকে উৎসাহ না পেয়ে সাকিব চলে যায়।

তিনি বলেন, বিএনএম-এ যোগ দেওয়ার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছিল, আমি যোগ দিইনি। এটা গোপন করার বিষয় না। সাকিব আমার কাছ থেকে উৎসাহ না পেয়ে, সহজে নির্বাচিত হতে নিজের পছন্দ বেছে নিয়েছে। বিএনএম-এর জন্য নিবন্ধনের জন্য নির্বাচন কমিশনে কাউকে পাঠাইনি।

হাফিজ আরও বলেন, সরকারের বিভিন্ন অপকর্ম লুকিয়ে জনদৃষ্টি ভিন্নদিকে নিতে বিএনএম-এর সঙ্গে জড়িয়ে অপপ্রচার চালাচ্ছে। নিজেদের উচ্চাশা চরিতার্থ না হওয়ায় হতাশায় ভুগে বিষেদগার করছে।

তিনি বলেন, দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতিতে মানুষ দিশেহারা। বিএনপি ক্ষমতায় থাকতে, খেজুরের বদলে বরই খাবার পরামর্শ দেয়নি।

এসময় নিজের সাম্প্রতিক কারাবাস প্রসঙ্গে হাফিজ বলেন, ১২ বছর আগের মামলায় ২১ মাস কারাদণ্ড! এটা কখনো কল্পনাও করিনি। মিথ্যা মামলায় কারাগারে যাওয়া ব্যথিত করেছে। আদালত থেকে ডিভিশন দেওয়া হলেও জেল কর্তৃপক্ষ ডিভিশন দেয়নি।

পদোন্নতি পেলেন বিএনপির ৩ নেতা
                                  

স্বাধীন বাংলা প্রতিবেদন:

বিএনপির কেন্দ্রীয় তিন নেতাকে পদোন্নতি দেওয়া হয়েছে। মঙ্গলবার (১৯ মার্চ) বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানানো হয়।

এতে বলা হয়েছে, বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মাসুদ আহমেদ তালুকদারকে দলের চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য, জাতীয় নির্বাহী কমিটির গণশিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক অধ্যক্ষ সেলিম ভুঁইয়াকে সাংগঠনিক সম্পাদক (কুমিল্লা বিভাগ) এবং জাতীয় নির্বাহী কমিটির সহ-আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক মোহাম্মদ রাশেদুল হককে আন্তর্জাতিক সম্পাদক পদে মনোনীত করা হয়েছে।

দল আশা প্রকাশ করে, উল্লিখিত নেতারা দলকে সুসংগঠিত করতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবেন।

ভারত পাশে ছিল বলেই নির্বাচনে বড় বড় রাষ্ট্র অশুভ হস্তক্ষেপ করতে পারেনি: ওবায়দুল কাদের
                                  

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহণ ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ভারত পাশে ছিল বলেই বাংলাদেশের নির্বাচনে বিশ্বের বড় বড় রাষ্ট্র অশুভ হস্তক্ষেপ করতে পারেনি।

রাজধানীর ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দিরে বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদের দ্বিবার্ষিক সম্মেলনে শনিবার ওবায়দুল কাদের বলেন, বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে দীর্ঘদিনের যে সন্দেহ ও অবিশ্বাসের দেয়াল ছিল তা ভেঙে দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও সেদেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। ভারতের সঙ্গে সম্পর্ক ভালো বলে সিট মহল বিনিময়ের ৬৮ বছরের যে সমস্যা তার শান্তিপূর্ণ সমাধান করেছেন। তিস্তাসহ অভিন্ন নদীর পানির বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। এর সমাধানও অবশ্যই হবে, ধৈর্য ধারণ করতে হবে। গায়ে পড়ে ভারতের সঙ্গে সম্পর্ক তিক্ততা করে সমস্যা সমাধান সম্ভব নয়।

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, সামাজিক মাধ্যমে যে ইন্ডিয়া আউট ক্যাম্পেইন এটি সমীচীন নয়। তিনি প্রশ্ন রেখে বলেন, ভারতবিরোধী মনোভাব কেন জাগ্রত করার চেষ্টা করা হচ্ছে? যারা নির্বাচনে আসেনি এটি তাদের অপপ্রচারে একটা ঢাল। আওয়ামী লীগ যখন ক্ষমতায় থাকে তখন ভারত বিরোধীতায় লিপ্ত হয় একটি মহল। এখনো তারা সেটি করছে।

বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি জে এল ভৌমিকের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. চন্দ্রনাথ পোদ্দারের সঞ্চালনায় সম্মেলনে আরও বক্তব্য রাখেন খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী অধ্যাপক ডা. সামন্ত লাল সেন, পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা, বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট রানা দাস গুপ্তসহ সনাতন ধর্মের অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

নির্বাচনের ফল কোথাও কোথাও পূর্বনির্ধারিত ছিলো, সংসদে জিএম কাদের
                                  

স্বাধীন বাংলা প্রতিবেদন:

গত জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিয়ে সংসদে অভিযোগ তুলেছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের। তিনি ফলাফল জালিয়াতির অভিযোগ এনে বলেন, দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে তিন ধরনের নির্বাচন হয়েছে। কোথাও কোথাও ইলেকশন যেভাবেই হোক ফলাফল একটা পূর্ব নির্ধারিত ছিল এবং শিট বানিয়ে দেয়া হয়েছে।

গতকাল মঙ্গলবার জাতীয় সংসদ অধিবেশনে সরকারি দলের সদস্যরা ব্যাপকভাবে এই বক্তব্যের প্রতিবাদ জানাতে থাকলে জিএম কাদের হেসে বলেন, এটা নাও হতে পারে। রাষ্ট্রপতির ভাষণের ওপর আনা ধন্যবাদ প্রস্তাব নিয়ে আলোচনা এবং দ্বাদশ জাতীয় সংসদের প্রথম অধিবেশনের সমাপনী ভাষণে জিএম কাদের বিগত নির্বাচন নিয়ে বক্তব্য শুরু করতেই অধিবেশন কক্ষে হট্টগোল শুরু হয়।

সংসদ নেতা ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপস্থিতিতে নির্বাচন সংক্রান্ত বক্তব্যে এই হট্টগোল বাড়তে থাকে। সরকারি দলের সদস্যরা মাইক ছাড়াই নানা মন্তব্য করতে থাকেন। বিরোধী দল জাতীয় পাটির সদস্যরাও পাল্টা মন্তব্য করতে থাকেন। এই পরিস্থিতি সংসদ অধিবেশনে অচলাবস্থা সৃষ্টি হলে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী সংসদ সদস্যদের শান্ত হওয়ার জন্য একাধিকবার আহ্বান জানান। পরে জিএম কাদের বক্তব্য শেষ করেন।

এ সময় জিএম কাদের বলেন, আমার কাছে মনে হয়েছে তিন ধরনের ইলেকশন হয়েছে। কোনো কোনো এলাকায় সবগুলো সুষ্ঠু ইলেকশন হয়েছে। সেখানে কোনো ডিস্টার্বেন্স হয়নি। সাধারণত প্রতিযোগিতাহীন ইলেকশন হয়েছে। সেখানে কোনো শক্ত প্রার্থী ছিল না। সেখানে সরকারের সদিচ্ছা ছিল। শতভাগ সুষ্ঠু হয়েছে। তবে উপস্থিতি কম ছিল। আরেকটা হয়েছে ফ্রি স্টাইল। সেখানে মাসল পাওয়ার (পেশি শক্তি) এবং মানি অবাধে ব্যবহার করা হয়েছে। সেটার মাধ্যমে ভোটকেন্দ্র দখল করা হয়েছে। বেশিরভাগ সময় এখানে সরকারি দল এবং বিদ্রোহী প্রার্থী স্বতন্ত্র প্রার্থী বা আমাদের প্রার্থীদের বাধা দিয়েছে। আরেকটা ছিল ইলেকশন যেভাবেই হোক ফলাফল একটা পূর্ব নির্ধারিত ছিল এবং শিট বানিয়ে দেয়া হয়েছে।

বিরোধী দলীয় নেতা বলেন, সব দল নির্বাচনে আসলে এবং বাধা ছাড়াই ভোট হলে ১৫ শতাংশ ভোট গ্রহণযোগ্য। আওয়ামী লীগ বিএনপিসহ সব বড় দল নির্বাচনে অংশ নিলে এই মুহূর্তে ৯০ থেকে ৯৫ শতাংশ ভোট পড়বে। আওয়ামী লীগ বা বিএনপির মতো একটি দল না এলে অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন করা কঠিন। এতে মানুষ ভোটি দিতে আসে না। তিনি আরো বলেন, যে প্রেক্ষাপটে ছিল তাতে ৪২ শতাংশ ভোট দিতে গেলে সব ভোটকেন্দ্রের সামনে ৮ ঘন্টা লাইন থাকার কথা। কিন্তু তা ছিল না। ..এসময় সংসদ সদস্যরা হইচই শুরু করেন। জিএম কাদের বলেন, অনেকে বলেছেন ঘণ্টায় তিন চারটার বেশি ভোট হয়নি। আমি আমার কথা বলছি না। ধারণার কথা বলছি।

তিনি আরো বলেন, দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সংবিধান মোতাবেক ও প্রচলিত আইন অনুযায়ী বৈধ হিসাবে গণ্য করা যায়। আইন অনুযায়ী তা বৈধ হয়েছে। কেউ বেআইনি ঘোষণা করেনি। কিন্তু সিংহভাগ মানুষ মনে করে ভাল নির্বাচন হয়নি, সঠিকভাবে জনমতের প্রতিফলন হয়েছে বলে মনে করে না। আমি মনে করি আইন কানুন ব্যাপকভাবে লঙ্ঘিত হয়েছে। যারা দেখার কথা তারা এড়িয়ে গেছেন অনেক সময় লঙ্ঘনে সহায়তা করেছে।

মেগা প্রকল্প নামে মেগা দুর্নীতি করছে সরকার: বিএনপি নেতা জামাল
                                  

প্রশান্ত কুমার দাস:

দ্রব্যমূল্যের সীমাহীন উর্ধ্বগতিতে সাধারণ মানুষের ভোগান্তির প্রতিবাদ ও আসন্ন রমজানকে সামনে রেখে নিত্যপণ্যের উর্ধ্বগতির প্রতিবাদে মানববন্ধন করেন তৃণমূল নাগরিক আন্দোলন। সোমবার প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন করেন তারা।

এ সময় মানববন্ধনে সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি মফিজুর রহমান লিটন। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা সাবেক চিফ হুইপ জয়নুল আবেদীন ফারুক।

মানববন্ধনে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বিএনপির ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক রফিকুল ইসলাম জামাল বলেন, সরকারের পাতানো নির্বাচন, দ্রব্যমূল্যের সীমাহীন ঊর্ধ্বগতি সাধারণ মানুষের ভোগান্তি দিন দিন বেড়েই চলছে। মেগা প্রকল্পের নামে মেগা দুর্নীতি করছে সরকার। সরকারের দুর্নীতি ঠেকাতে সাধারণ মানুষকে সচেতন হওয়ার দাবি তুলেছেন তিনি।

এ সময় তিনি আরো বলেন, সরকার মানুষের ভোটাধিকার ভোট প্রয়োগের ক্ষমতায় হস্তক্ষেপ করেছে। সরকার ডামি নির্বাচনের নামে সাধারণ মানুষের সাথে প্রতারণা করেছে। সরকার অবৈধভাবে ক্ষমতা দখল করে আছে। বর্তমান সরকারকে তিনি ডামি সরকার বলে উল্লেখ করেন। সরকারের বিরুদ্ধে জনগণের টাকা আত্মসাৎ এর অভিযোগ করেন তিনি। ৭ই জানুয়ারি যে নির্বাচন হয়েছে তা ছিল সরকারের একক নির্বাচন। জনগণ স্বতঃস্ফূর্তভাবে অংশগ্রহণ করেনি।

চিকিৎসার জন্য সিঙ্গাপুর গেলেন মির্জা ফখরুল
                                  

স্বাধীন বাংলা প্রতিবেদন:

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর চিকিৎসার জন্য সিঙ্গাপুর গিয়েছেন। আজ সোমবার সকাল ৮টা ৪০ মিনিটে তিনি হযরত শাহজালাল বিমানবন্দর থেকে সিঙ্গাপুরের উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ করেন।

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের বিজি-৫৮৪ ফ্লাইটে ঢাকা ছাড়েন তিনি। তার সঙ্গে যাচ্ছেন স্ত্রী রাহাত আরা বেগম।

সিঙ্গাপুরে একটি হাসপাতালে চিকিৎসার শিডিউল থাকায় তাকে দেশটিতে যেতে হচ্ছে বলে জানা গেছে।

গত বছরের ২৯ অক্টোবর বাসা থেকে গ্রেফতার হওয়ার প্রায় সাড়ে তিন মাস পর গত মাসে মুক্তি পান মির্জা ফখরুল। দীর্ঘসময় কারাগারে থাকায় তার শারীরিক জটিলতাগুলো বেড়েছে বলে পারিবারিক ঘনিষ্ঠ সূত্রে জানা গেছে। ইতোমধ্যে তাকে এক হাতে লাঠির সহযোগিতা নিয়ে হাঁটতে হচ্ছে।

দলীয় সূত্র বলছে, বিএনপির সিনিয়র নেতাদের কেউ কেউ দেশের বাইরে যেতে পারেন। কেউ কেউ ঈদের পর বিদেশে যাবেন দীর্ঘমেয়াদে চিকিৎসার কাজে। ইতোমধ্যে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু ও সালাহউদ্দিন আহমেদ দেশের বাইরে অবস্থান করছেন।

এর আগে বিএনপির আন্দোলন চলাকালে গত ২৪ আগস্ট সিঙ্গাপুরে যান বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। সে সময় তার সঙ্গে স্ত্রী ও কন্যা গিয়েছিলেন।

উপজেলা নির্বাচনে না আসলে বিএনপিকে ভুলের খেসারত দিতে হবে: সেতুমন্ত্রী
                                  

নোয়াখালী প্রতিনিধি:

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, জাতীয় নির্বাচনে বিএনপি না এসে যে ভুল করেছে, উপজেলা নির্বাচনে না আসলে জাতীয় নির্বাচনের মতো সেই ভুলের খেসারত দিতে হবে বিএনপিকে।

আজ সোমবার বিকালে নিজ নির্বাচনী এলাকা নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে মায়ের মৃত্যুবার্ষিকীর উপলক্ষে কাঙ্গালী ভোজ শেষে গণমাধ্যম কর্মিদের তিনি এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী আরো বলেন, উপজেলা নির্বাচন আমরা সবার জন্য উন্মুক্ত রেখেছি। এবারের জাতীয় নির্বাচনেও নৌকা মার্কা ছিল, এর বাহিরে যারা স্বতন্ত্র করতে চেয়েছে তাদেরকে অনুমতি দেওয়া হয়েছে।

বিএনপিকে উদ্দেশ্য করে মন্ত্রী বলেন, ২৮ তারিখে তারা যেভাবে পালিয়ে গেছে, আবারো ওই রকম কিছু করতে গেলে পালাতে হবে।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, নোয়াখালী-২ আসনের সাংসদ আলহাজ্ব মোরশে আলম, নোয়াখালী জেলা প্রশাসক দেওয়ান মাহবুবুর রহমান প্রমূখ।

পিলখানা হত্যাকাণ্ডের বিষয় খালেদা জিয়া আগেই জানতেন: বিমানমন্ত্রী
                                  

স্বাধীন বাংলা প্রতিবেদন:

পিলখানা হত্যাকাণ্ড ঘটবে এ বিষয়ে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া আগেই জানতেন বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগ সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য এবং বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটনমন্ত্রী মুহাম্মদ ফারুক খান।

তিনি বলেন, আমরা জানি, সেদিন ঘটনার কিছু পূর্বে বেগম জিয়ার বাসা থেকে একটি কালো রঙের গাড়ি কোনো প্রটোকল না নিয়ে বেরিয়ে গেছে। এতে প্রমাণিত হয়ে তিনি জানতেন ঘটনা ঘটবে।

রোববার (২৫ ফেব্রুয়ারি) সকালে রাজধানীর বনানীতে সামরিক কবরস্থানে পিলখানা হত্যায় শহীদ সেনা কর্মকর্তাদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন।

পিলখানা হত্যার মাস্টারমাইন্ডরা একেবারেই বাইরে রয়ে গেছে। তাদের কি কখনো পাওয়া যাবে না? সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে ফারুক খান বলেন, মাস্টারমাইন্ডদের ব্যাপারে খোঁজ-খবর নিচ্ছি আমরা। ঘটনার পেছনে যারা কুশীলব, কিছুটা তো আমরা জানি কারা ছিল।

এ ঘটনার বিচার যাতে সুষ্ঠুভাবে হয়, তার জন্য কাজ চলছে। যারা এর পেছনে আছে তাদের খুঁজে বের করা হবে, বলেন মন্ত্রী।

ফারুক খান বলেন, দুটি মামলা হয়েছে, একটি হত্যার ও একটি বিস্ফোরকের মামলা। বিচারের যে নিয়ম, সেই নিয়ম তো আমাদের পালন করতে হবে। সেটা না হলে আবার অন্য দিক থেকে ক্ষতিগ্রস্ত হবো। আমি শুনেছি, বিচারের কার্যক্রম প্রায় শেষ পর্যায়ে আছে।

তিনি বলেন, যারা হত্যাকাণ্ডের শিকার হয়েছেন, তাদের পরিবারের পক্ষ থেকে এবং আমাদের পার্টি- আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকেও আমরা দাবি করি, আমরা আশা করি যে, অতি দ্রুততার সঙ্গে এই মামলার মীমাংসা হবে এবং যারা দোষী তাদের কঠোর শাস্তি হবে।

এর সঙ্গে যারা যারা জড়িত সবার শাস্তি হবে এবং এই ধরনের ঘটনা যাতে আর কখনো বাংলাদেশে না ঘটতে পারে তার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। আগামীতেও নেওয়া হবে বলে জানান মন্ত্রী।

শেখ হাসিনা খাঁটি ঈমানদার: প্রতিমন্ত্রী শফিক চৌধুরী
                                  

বিশ্বনাথ(সিলেট)প্রতিনিধি :

জনেত্রী শেখ হাসিনা একজন খাঁটি ঈমানদার, খাাঁটি মুসলমান ও খাঁটি দেশ প্রেমিক। তিনি পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়েন, তাহজ্জুদের নামাজ পড়েন, ফজরের নামাজ পড়ে এরপর কুরআন তিলাওয়াত করে রাষ্ট্রীয় কাজ শুরু করেন। যে কারণে বাংলাদেশ আজ উন্নয়নে ভরপর। আল্লাহ রাব্বুল আল আমীনের উপর তার বিশ্বাস আছে আমরারও আল্লাহ রাব্বুল আল আমীনের উপর বিশ্বাস রয়েছে। আগে আল্লাহ বাদে শেখ হাসিনা।

প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী শফিকুর রহমান চৌধুরী শুক্রবার (২৩ ফেব্রুয়ারী) রাত সাড়ে ৯টায় ইউনিয়নের লালটেক আলহাজ্ব তাহির আলী উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠে বিশ্বনাথ অলংকারি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে সংবর্ধিত অতিথির বক্তব্যে এসব মন্তব্য করেন।

শফিকুর রহমান চৌধুরী বলেন, আল্লাহ ছাড়া কোনো মালিক নেই। আল্লাহর হুকুমে সব কিছু হয়। জননেত্রী শেখ হাসিনা থাকলে বাংলাদেশ থাকবে এবং ততদিন বাংলাদেশ নিরাপদ থাকবে। সেই জন্য আমরা মনে করি যে শেখ হাসিনার সরকার বার বার দরকার।

নিজের এমপি ও মন্ত্রী হওয়া প্রসঙ্গে শফিকুর রহমান চৌধুরী বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনার কাছে আমি চিরঋণী। তিনি মনোনয়ন দিয়েছিলেন সংসদ সদস্য হিসাবে। আপনারা নির্বাচিত করেছেন। এমপি হয়ে যখন সংসদ সদস্য হিসাবে শপথ গ্রহণ করার পর নেত্রীকে কদমবুছি করে যখন দোয়া নিলাম তখনই বুঝতে পারলাম নেত্রী কতটুকু মায়া করেন, স্নেহ করেন। এরপর শুনতে পারলাম মন্ত্রী পরিষদে একজন মন্ত্রী হিসাবে আমাকে দায়িত্ব দিয়েছেন। সারা সিলেটে আমরা কাংঙ্খীত উন্নয়ন থেকে বঞ্চিত ছিলাম। আমরা এখন সেই উন্নয়ন পাবো। শেখ হাসিনা বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ সোনার বাংলা হিসাবে রুপান্তরিত করতে চান। আমরা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে এই বাংলাদেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে চাই। তাই শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলার মানুষ ঐক্যবদ্ধ। সবাই শেখ হাসিনার পক্ষে ও উন্নয়নের পক্ষে।

অলংকারী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. হীরা মিয়ার সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক তফজ্জুল আলীর সঞ্চালনায় প্রতিমন্ত্রী শফিকুর রহমান চৌধুরী আরো বলেন, আওয়ামীলীগ করলে মানুষ ত্যাগ করা শিখে। আওয়ামীলীগই একমাত্র সংগঠন যে সংগঠন করলে দেশে উন্নয়ন হয়। আওয়ামী লীগ করলে একজন মানুষ মাতা উচ্চ করো দাঁড়ায়। ত্যাগের রাজনীতি করে আওয়ামী লীগ, ভোগ বিলাসের রাজনীতি করে না আওয়ামী লীগ। বিএনপি, জামাত, জাতীয় পাটি ও অন্যান্য সংগঠনগুলো ভোগ বিলাসের রাজনীতি করে। তারা মানুষের সম্পদ লোট করে আঙ্গুল থেকে কলাগাছ আর কলাগাছ থেকে বটগাছ হয়। আজকে তারেক জিয়া বিদেশে বসে সড়যন্ত্র করছে। সেই সড়যন্ত্রের মাধ্যমে ৭ তারিখের নির্বাচন ভন্ডুল করতে চেয়েছিল। ৭ তারিখের নির্বাচন যাতে না হয় এটা চেয়েছিল। অনেক সড়যন্ত্র করে ছিলো কিন্তু বাংলার মানুষ জননেত্রী শেখ হাসিনার পক্ষে ঐক্যবদ্ধ হয়ে ৭ তারিখের নির্বাচনে তার দাঁত ভাঙা জবাব দিয়েছে।

মন্ত্রী বলেন, বিশ্বনাথ ও ওসমানীনগরের মানুষ আমাকে ভোট দেয় নাই, ভোট দিয়েছে উন্নয়নের পক্ষে। যে কারণে উন্নয়নের পক্ষে বাংলাদেশ। উন্নয়নে ভরপুর বাংলাদেশ। উন্নয়নের মহাসড়কে বাংলাদেশ জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে। আজকে আমরা সেই উন্নয়নে মহাসড়কে চলতে চাই। যে কারণে বিশ্বনাথ ও ওসমানীনগরের মানুষ নৌকায় ভোট দিয়েছে। আমি বিশ্বাস করি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমার মায়ের সমতুল্য। তিনি আমাকে অনেক স্নেহ মমতা করেন বোনের মত, ভাইয়ের মত। আমি মনে করি আমরা উন্নয়ন থেকে বঞ্চিত হবো না। তিনি জানেন বিগত দশ বৎসর আমরা উন্নয়ন থেকে বঞ্চিত ছিলাম। সেই উন্নয়নের পক্ষে বিশ্বনাথ ওসমানীনগরের মানুষ ভোট দিয়েছে। আমরা সবাই মনে করেছিলাম যে, উন্নয়নের পক্ষে হয়ত রাজনৈতিক কারণে আমরা অলংকারি ইউনিয়নে ভোট কম পাবো। কিন্তু অলংকারি ইউনিয়নের সাধারণ মানুষ প্রমাণ করে দিয়েছে তারা উন্নয়নের পক্ষে শেখ হাসিনার পক্ষে।

 


   Page 1 of 138
     রাজনীতি
শীর্ষ নেতাদের যা বললেন খালেদা জিয়া
.............................................................................................
প্রথম বৈঠকেই নির্বাচনী এলাকার রাস্তা সংস্কারের দাবি এমপি জাহাঙ্গীরের
.............................................................................................
ছাত্রলীগ ঢাবিতে ফ্যাসিবাদ কায়েম করে বুয়েটে গণতন্ত্র চায় : ছাত্রদল
.............................................................................................
একাত্তরের মতো ভারত এবারও আমাদের পাশে দাঁড়িয়েছে: কাদের
.............................................................................................
বিএনপি পাকিস্তানি কায়দায় ভারত বিরোধিতা করছে: ওবায়দুল কাদের
.............................................................................................
স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষ্যে ৩ দিনের কর্মসূচি ঘোষণা বিএনপির
.............................................................................................
অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে শামীম ওসমান
.............................................................................................
সাকিব আমার কাছে এসেছিল, উৎসাহ না পেয়ে ফিরে গেছেসাকিব আমার কাছে এসেছিল, উৎসাহ না পেয়ে ফিরে গেছে
.............................................................................................
পদোন্নতি পেলেন বিএনপির ৩ নেতা
.............................................................................................
ভারত পাশে ছিল বলেই নির্বাচনে বড় বড় রাষ্ট্র অশুভ হস্তক্ষেপ করতে পারেনি: ওবায়দুল কাদের
.............................................................................................
নির্বাচনের ফল কোথাও কোথাও পূর্বনির্ধারিত ছিলো, সংসদে জিএম কাদের
.............................................................................................
মেগা প্রকল্প নামে মেগা দুর্নীতি করছে সরকার: বিএনপি নেতা জামাল
.............................................................................................
চিকিৎসার জন্য সিঙ্গাপুর গেলেন মির্জা ফখরুল
.............................................................................................
উপজেলা নির্বাচনে না আসলে বিএনপিকে ভুলের খেসারত দিতে হবে: সেতুমন্ত্রী
.............................................................................................
পিলখানা হত্যাকাণ্ডের বিষয় খালেদা জিয়া আগেই জানতেন: বিমানমন্ত্রী
.............................................................................................
শেখ হাসিনা খাঁটি ঈমানদার: প্রতিমন্ত্রী শফিক চৌধুরী
.............................................................................................
জামিন পেলেন ফখরুল-খসরু, কারামুক্তিতে বাধা নেই
.............................................................................................
খালেদা জিয়ার সাবেক উপদেষ্টা এখন আ.লীগ নেতা
.............................................................................................
সংরক্ষিত আসনের মনোনয়ন ফরম বিক্রি করেছে আ.লীগ
.............................................................................................
বিএনপি-জামাত থেকে সতর্ক থাকতে বললেন গণপূর্তমন্ত্রী
.............................................................................................
ভালো কথা বললেও আপনারা ক্ষেপে যান, সাংবাদিকদের আইনমন্ত্রী
.............................................................................................
বিএনপিকে নিয়ে নয়, দ্রব্যমূল্য নিয়ে চিন্তিত: কাদের
.............................................................................................
নির্বাচন নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের বক্তব্যে অস্বস্তিতে নেই আ.লীগ: কাদের
.............................................................................................
মির্জাপুরে স্বতন্ত্র প্রার্থীর কর্মীর উপর হামলা, থানায় অভিযোগ
.............................................................................................
জাপা মহাসচিব মুজিবুল হক চুন্নুর চ্যালেঞ্জ
.............................................................................................
ডামি নির্বাচনের মাধ্যমে দেশের গণতন্ত্রকে ধ্বংস করেছে সরকার: রিজভী
.............................................................................................
বিকালে আ.লীগের যৌথসভা
.............................................................................................
জাতীয় পার্টির সকল পদ-পদবী থেকে পদত্যাগ করলেন নিয়াজ উদ্দিন
.............................................................................................
মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের জামিন শুনানি আজ
.............................................................................................
সাভার-আশুলিয়ায় চাদাবাজ রাখবেন না বলে ঘোষণা নবনির্বাচিত এমপি সাইফুলের
.............................................................................................
আইজিপির ভাইয়ের নৌকা ডুবিয়ে দিলনে জয়া সেনগুপ্তা
.............................................................................................
নতুন কর্মসূচি ঘোষণা করেছে বিএনপি
.............................................................................................
প্রতিমন্ত্রী এনামের নৌকাকে ডুবিয়ে দিল সাইফুলের ট্রাক
.............................................................................................
১১ আসনে ঠেকলো জাতীয় পার্টি
.............................................................................................
বিকেলে সাংবাদিক-পর্যবেক্ষকদের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর মতবিনিময়
.............................................................................................
১১টায় সংবাদ সম্মেলন বিএনপির
.............................................................................................
ভোট বর্জন করায় দেশবাসীকে চরমোনাই পীরের ধন্যবাদ
.............................................................................................
বিএনপির এবারের হরতালে রাস্তা ফাঁকা
.............................................................................................
আ.লীগ থেকে এ. কে আজাদকে অব্যাহতি
.............................................................................................
রাজধানীর কাওরান বাজারে রিজভীর নেতৃত্বে মিছিল
.............................................................................................
বিজয়ী হওয়ার আশায় ছুটছেন তৃতীয় লিঙ্গের রানী
.............................................................................................
ভোটের দিন বিএনপির হরতালের ডাক
.............................................................................................
পুলিশের হাত থেকে দুই কর্মীকে ছাড়িয়ে নিল বিএনপির নেতাকর্মীরা
.............................................................................................
নৌকা প্রতীকের সমর্থককে গু-লি করে হ-ত্যা
.............................................................................................
অ্যামনেস্টি-টিআইবি-সুজনের ভূমিকা একসূত্রে গাঁথা: কাদের
.............................................................................................
নির্বাচন নিয়ে তামাশার বক্তব্য দিচ্ছে বিএনপি : আইনমন্ত্রী
.............................................................................................
আমার ফুফু নৌকা আপনারে দেয় কিন্তু বৈঠা আমারে দেয়: নিক্সন চৌধুরী
.............................................................................................
বিকেলে রাজধানীতে আ.লীগের নির্বাচনী জনসভা
.............................................................................................
ধামরাইয়ে আচরণবিধি লঙ্ঘন করে স্বতন্ত্র প্রার্থীর মোটরসাইকেল শোডাউন
.............................................................................................
এমপিকে হুমকি দেয়ায় আ.লীগ নেত্রীকে শোকজ
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
    2015 @ All Right Reserved By dailyswadhinbangla.com

Developed By: Dynamic Solution IT