রবিবার, ৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ বাংলার জন্য ক্লিক করুন
  
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

   শেয়ার বাজার -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
বিরামপুরে গাছে গাছে কাঁচা-পাকা খেজুর

মাসুদ রানা, বিরামপুর:

দিনাজপুরের বিরামপুরে পথেঘাটে, খাল-বিলের পাড়ে, বাড়ির আঙিনাসহ আনাচে কানাচে কাঁচা-পাকা খেজুরের সমাহার। বলা হয়, বছরে দুই ফলন আসে খেজুর গাছে, শীতকালে মিষ্টি সুস্বাদু রস, আর গরমকালে খেজুর ফল।

বিরামপুর বিভিন্ন স্থানে খেজুর গাছে থোকায় থোকায় ঝুলছে খেজুর। তা দেখে প্রতিটি মানুষের চোখ ধাঁধিয়ে যাচ্ছে। এখনো প্রায় ১০ থেকে ১৫ দিন সময় লাগবে খেজুর পাঁকতে। সরকারি সড়কের খেজুর গাছের খেজুরগুলো স্থানীয় ছেলে-মেয়েরা পেড়ে খেতেও শুরু করেছে। এখনই অনেক খেজুরে রঙ ধরেছে। তবে এখনও খাওয়ার উপযোগী হয়নি। পাকলে অনেকেই পাকা খেজুর বাজারেও বিক্রি করবেন।

বিরামপুর খায়েরপাড়া গ্রামের হাফিজুর বলেন, আমার বাড়ির পাশে তিনটি খেজুরের গাছ আছে, বয়স অনেক হয়েছে। তিনটি গাছেই প্রচুর খেজুর ধরেছে। কিছু দিনের মধ্যেই তা পাকবে। কিন্তু গ্রামের ছেলেরা এখনি পেড়ে খেতে শুরু করেছে।

কেটরা হাট বাজারের রাস্তার পাশে খেজুর পাড়ছিল কিশোর শাকিল। সে জানায়, এখনো পাকেনি তাই খেতে একটু কোষ্টা (কষ)।

তোকি পুর গ্রামের হামিদুল বলেন, এখন তো আর আগের মতো খেজুরের গাছ নেই। আমার একটা খেজুরে গাছ হয়েছে, এইবার প্রথম ফল আসছে। অনেক খেজুর ধরেছে, দেখলে মন জুড়িয়ে যায়। আর কয়েক দিন পর খেজুরগুলো পাড়বো।

বিরামপুরে গাছে গাছে কাঁচা-পাকা খেজুর
                                  

মাসুদ রানা, বিরামপুর:

দিনাজপুরের বিরামপুরে পথেঘাটে, খাল-বিলের পাড়ে, বাড়ির আঙিনাসহ আনাচে কানাচে কাঁচা-পাকা খেজুরের সমাহার। বলা হয়, বছরে দুই ফলন আসে খেজুর গাছে, শীতকালে মিষ্টি সুস্বাদু রস, আর গরমকালে খেজুর ফল।

বিরামপুর বিভিন্ন স্থানে খেজুর গাছে থোকায় থোকায় ঝুলছে খেজুর। তা দেখে প্রতিটি মানুষের চোখ ধাঁধিয়ে যাচ্ছে। এখনো প্রায় ১০ থেকে ১৫ দিন সময় লাগবে খেজুর পাঁকতে। সরকারি সড়কের খেজুর গাছের খেজুরগুলো স্থানীয় ছেলে-মেয়েরা পেড়ে খেতেও শুরু করেছে। এখনই অনেক খেজুরে রঙ ধরেছে। তবে এখনও খাওয়ার উপযোগী হয়নি। পাকলে অনেকেই পাকা খেজুর বাজারেও বিক্রি করবেন।

বিরামপুর খায়েরপাড়া গ্রামের হাফিজুর বলেন, আমার বাড়ির পাশে তিনটি খেজুরের গাছ আছে, বয়স অনেক হয়েছে। তিনটি গাছেই প্রচুর খেজুর ধরেছে। কিছু দিনের মধ্যেই তা পাকবে। কিন্তু গ্রামের ছেলেরা এখনি পেড়ে খেতে শুরু করেছে।

কেটরা হাট বাজারের রাস্তার পাশে খেজুর পাড়ছিল কিশোর শাকিল। সে জানায়, এখনো পাকেনি তাই খেতে একটু কোষ্টা (কষ)।

তোকি পুর গ্রামের হামিদুল বলেন, এখন তো আর আগের মতো খেজুরের গাছ নেই। আমার একটা খেজুরে গাছ হয়েছে, এইবার প্রথম ফল আসছে। অনেক খেজুর ধরেছে, দেখলে মন জুড়িয়ে যায়। আর কয়েক দিন পর খেজুরগুলো পাড়বো।

ডিএসইতে সূচকের উত্থান
                                  

স্বাধীন বাংলা প্রতিবেদক :
সপ্তাহের শেষ কার্যদিবস বৃহস্পতিবার (২১ এপ্রিল) দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) মূল্য সূচক উত্থানের মধ্যে দিয়ে লেনদেন শেষ হয়েছে।

ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ৫৫.৯৫ পয়েন্ট বা ০.৮৪ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৬ হাজার ৬৬২.৩৬ পয়েন্টে। ডিএসইর অপর সূচকগুলোর মধ্যে শরিয়াহ সূচক ১০.৫০ পয়েন্ট বা ০.৭২ শতাংশ এবং ডিএসই-৩০ সূচক ১৪.২৩ পয়েন্ট বা ০.৫৭ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে যথাক্রমে ১ হাজার ৪৬৪.৬২ পয়েন্টে এবং ২ হাজার ৪৭৪.৮০৭পয়েন্টে।

এদিন ডিএসইতে টাকার পরিমাণে লেনদেন হয়েছে ৭৫৪ কোটি ০৭ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট, যা আগের কার্যদিবস থেকে ১৪৮ কোটি ১০ লাখ টাকা বেশি।

ডিএসইতে আজ ৩৮০টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ৩০০টির বা ৭৮.৯৫ শতাংশের শেয়ার ও ইউনিট দর বেড়েছে। দর কমেছে ৫৫টির বা ১৪.৪৭ শতাংশের এবং ২৫টি বা ৬.৫৮ শতাংশ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট দর অপরিবর্তিত রয়েছে।

সূচকের সঙ্গে বেড়েছে লেনদেন
                                  

অর্থনৈতিক প্রতিবেদক : লকডাউনের তৃতীয় দিনে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে-ডিএসইতে মূল্য সূচকের উত্থানে লেনদেন শেষ হয়েছে। বুধবার ডিএসইতে আগের দিনের চেয়ে লেনদেনও বেড়েছে। অপর বাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে-ডিএসইতে সূচক বাড়লেও লেনদেন কমেছে।

ডিএসইতে আগের কার্যদিবসের চেয়ে ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ৫৫ পয়েন্ট বেড়ে ৫ হাজার ৩৩৭ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। ডিএসইর অন্য সূচকগুলোর মধ্যে শরিয়াহ সূচক ৯ পয়েন্ট বেড়ে ১ হাজার ২১৪ পয়েন্টে এবং ডিএসই-৩০ সূচক ২২ পয়েন্ট বেড়ে ২ হাজার ১১ পয়েন্টে অবস্থান করছে।

ডিএসইতে লেনদেনের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৫৮২ কোটি ৫২ লাখ টাকা। আগের কার্যদিবসে ডিএসইতে লেনদেন হয়েছিল ৫০৮ কোটি ৪৫ লাখ টাকা। ডিএসইতে লেনদেন হওয়া ৩৪৪ প্রতিষ্ঠানের মধ্যে বেড়েছে ১৯৯টির, কমেছে ৪৩টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ১০২টি শেয়ার দর।

অপর বাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ-সিএসইতে সার্বিক সূচক সিএএসপিআই বেড়েছে ১৮২ পয়েন্ট। সূচকটি ১৫ হাজার ৪৪৩ পয়েন্টে অবস্থান করছে। সিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৩০ কোটি ৬৫ লাখ টাকার শেয়ার।

সিএসইতে মোট ২১৪টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের শেয়ার লেনদেন হয়েছে। এর মধ্যে দর বেড়েছে ১৩৯টির, দর কমেছে ২২টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৫৩টির।

ঊর্ধ্বমুখী শেয়ারবাজার
                                  

স্বাধীন বাংলা রিপোর্ট:
ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) এবং আরেক শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতা লক্ষ্য করা যাচ্ছে। সপ্তাহের দ্বিতীয় কার্যদিবস সোমবার (১১ জানুয়ারি) লেনদেনের শুরুতে উর্ধ্বমুখি প্রবণতায় দিন শুরু করেছে।

প্রথম ঘণ্টার লেনদেনে দুই বাজারেই সবকটি মূল্য সূচক বেড়েছে। সেই সঙ্গে লেনদেনেও ভালো গতি দেখা যাচ্ছে। এক ঘণ্টার লেনদেনে ডিএসইতে ৫০০ কোটি টাকার লেনদেন হয়ে গেছে।

এদিন লেনদেন শুরুতেই ডিএসই প্রধান মূল্য সূচক ৩০ পয়েন্ট বেড়ে যায়। বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম বাড়ার প্রবণতা অব্যাহত থাকায় আধাঘণ্টার মধ্যে ডিএসইর প্রধান সূচক ৫০ পয়েন্ট বেড়ে যায়।

তবে এরপর সূচকের ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতা কিছুটা কমে। এতে প্রথম ১ ঘণ্টা ২৪ মিনিটের লেনদেনে ডিএসইর প্রধান সূচক বেড়েছে ৪০ পয়েন্ট। অপর দুই সূচকের মধ্যে ডিএসই শরিয়াহ্ বেড়েছে ১৪ পয়েন্ট। আর ডিএসই-৩০ সূচক বেড়েছে ৩৩ পয়েন্ট।

সূচকের বড় উত্থান হলেও ডিএসইতে লেনদেনে অংশ নেয়া যে কয়টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম বেড়েছে, কমেছে তার থেকে বেশি।

লেনদেনে অংশ নেয়া ১২৪টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট দামবৃদ্ধির তালিকায় নাম লিখিয়েছে। বিপরীতে দাম কমেছে ১৫৩টির। আর ৭১টির দাম অপরিবর্তিত রয়েছে। এ সময় পর্যন্ত ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৬২৬ কোটি ৯০ লাখ টাকা।

অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ১৬৯ পয়েন্ট বেড়েছে। লেনদেন হয়েছে ১৭ কোটি ৯৮ লাখ টাকা। লেনদেন অংশ নেয়া ১৯৬টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে দাম বেড়েছে ৬৮টির, কমেছে ৯১টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৩৭টির।

পুঁজিবাজারে চাঙ্গাভাব, এক ঘণ্টায় লেনদেন ৯৫০ কোটি ছাড়িয়েছে
                                  

স্বাধীন বাংলা ডেস্ক : নতুন বছরের তৃতীয় কার্যদিবসে দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) ও অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সূচকের বড় উত্থানের মধ্য দিয়ে লেনদেন চলছে। এক ঘণ্টায় ডিএসইর লেনদেন ছাড়িয়েছে সাড়ে ৯০০ কোটি টাকা। ডিএসই ও সিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। আজ মঙ্গলবার লেনদেন শুরুর এক ঘণ্টা পর অর্থাৎ বেলা ১১টায় ডিএসইর সাধারণ সূচক ডিএসইএক্স আগের দিনের চেয়ে ১০৬ পয়েন্ট বেড়ে পাঁচ হাজার ৭৫৮ পয়েন্টে অবস্থান করে।

ডিএসই শরীয়াহ্ সূচক ১২ পয়েন্ট এবং ডিএসই-৩৫ সূচক ১১ পয়েন্ট বেড়ে যথাক্রমে ১৩০৯ ও ২১২৭ পয়েন্টে রয়েছে। এ সময়ের মধ্যে লেনদেন হয়েছে ৯৫৯ কোটি ১৫ লাখ টাকার শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের ইউনিট। এই সময়ে লেনদেন হওয়া কম্পানিগুলোর মধ্যে দাম বেড়েছে ১৬০টির, কমেছে ১৩৩টির এবং অপরির্বতিত রয়েছে ৫৭টি কম্পানির শেয়ার দর। বেলা ১১টা পর্যন্ত লেনদেনের শীর্ষে থাকা ১০ কম্পানি হলো- রবি, বেক্সিমকো ফার্মা, বেক্সিমকো লিমিটেড, লংকাবাংলা, লার্ফাজহোলসিম, আইএফআইসি ব্যাংক, এনবিএল, একটিভ ফাইন, ফার্স্ট ব্যাংক ও পাওয়ার গ্রিড।

এদিকে লেনদেন শুরুর এক ঘণ্টা পর বেলা ১১টায় চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সিএএসপিআই সূচক ১৮৪ পয়েন্ট বেড়ে ১৬ হাজার ৫৬৫ পয়েন্টে অবস্থান করে। এরপর সূচকের গতি ঊর্ধ্বমুখী দেখা যায়। এদিন বেলা ১১টা পর্যন্ত সিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৪৭ কোটি ৪৮ লাখ টাকার শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের ইউনিট। এসময়ের ৭০টি কম্পানির দাম বেড়েছে, কমেছে ৩৯টি কম্পানির। অপরিবর্তিত রয়েছে ২৫টি কম্পানি শেয়ারের দর।

স্বাধীন বাংলা/জ উ আহমাদ

বছরের শেষ কার্যদিবসে ইতিবাচক সূচকে পূঁজিবাজার
                                  

স্বাধীন বাংলা ডেস্ক:
আগামীকাল বৃহস্পতিবার পুঁবিাজারের লেনদেন বন্ধ থাকবে। সেই হিসেবে আজ (৩০ ডিসেম্বর) ২০২০ সালের শেষ কার্যদিবস অতিক্রম করছে পুঁজিবাজার। চলতি বছরের শেষ কার্যদিবস বুধবার (৩০ ডিসেম্বর) দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) ও অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সূচক বাড়ার মধ্য দিয়ে লেনদেন চলছে।

ডিএসই ও সিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

বুধবার লেনদেন শুরুর ১ ঘণ্টা পর অর্থাৎ বেলা ১১টায় ডিএসইর সাধারণ সূচক ডিএসইএক্স আগের দিনের চেয়ে ২০ পয়েন্ট বেড়ে ৪ হাজার ৩৭৮ পয়েন্টে অবস্থান করে। ডিএসই শরীয়াহ্ সূচক ১ পয়েন্ট  এবং ডিএসই-৩০ সূচক ১৩ পয়েন্ট বেড়ে যথাক্রমে ১২৩৪ ও ১৯৪৯ পয়েন্টে রয়েছে। এই সময়ের মধ্যে লেনদেন হয়েছে ৩৬৩ কোটি ১৪ লাখ টাকার শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের ইউনিট।

বুধবার এ সময়ে লেনদেন হওয়া কোম্পানি গুলোর মধ্যে দাম বেড়েছে ১৬৯টির, কমেছে ৮৪টির এবং অপরির্বতিত রয়েছে ৯৬টি কোম্পানির শেয়ার।

বুধবার বেলা ১১টা পর্যন্ত লেনদেনের শীর্ষে থাকা ১০ কোম্পানি হলো- বেক্সিমকো লিমিটেড, বেক্সিমকো ফার্মা, লংকাবাংলা, সোনারবাংলা ইন্স্যুরেন্স, আইএফআইসি ব্যাংক, রূপালী ইন্স্যুরেন্স, পিপলস ইন্স্যুরেন্স, এডিএন টেলিকম, সাইফ পাওয়ার ও বিএটিবিসি।

এর আগে বুধবার লেনদেন শুরু প্রথম ১০ মিনিটে ডিএসইর সূচক বাড়ে ১২ পয়েন্ট। এরপর ১০টা ২০ মিনিটে সূচক আগের অবস্থান থেকে আরো ৪ পয়েন্ট বেড়ে যায়। এরপর সূচকের গতি ঊর্ধ্বমুখী থাকে। সকাল ১০ টা ৪৫ মিনিটে সূচক আগের দিনের চেয়ে ২০ পয়েন্ট বেড়ে পাঁচ হাজার ৩৭৮ পয়েন্টে অবস্থান করে।

অপরদিকে লেনদেন শুরুর এক ঘণ্টা পর বেলা ১১টায় চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সিএএসপিআই সূচক ৮৯ পয়েন্ট বেড়ে ১৫ হাজার ৫৬৪ পয়েন্টে অবস্থান করে। এরপর সূচকের গতি ঊর্ধ্বমুখী দেখা যায়।

এদিন বেলা ১১টা পর্যন্ত সিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৮ কোটি ৮৮ লাখ টাকার শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের ইউনিট। এসময়ের ৮১টি কোম্পানির দাম বেড়েছে, কমেছে ৩৭টি কোম্পানির দর। অপরিবর্তিত রয়েছে ২৩টি কোম্পানি শেয়ারের দর।

ইতিচাক গতিতে চলছে পুঁজিবাজারে লেনদেন
                                  

স্বাধীন বাংলা অনলাইন:
দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) ও অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) ইতিবাচক গতিতে লেনদেন চলছে। আজ সোমবার লেনদেনে শুরুর পর থেকেই উর্ধমুখি গতিতে চলছে লেনদেন। ডিএসই ও সিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

সোমবার লেনদেন শুরুর এক ঘণ্টা পর অর্থাৎ বেলা ১১টায় ডিএসইর সাধারণ সূচক ডিএসইএক্স আগের দিনের চেয়ে ১৫ পয়েন্ট বেড়ে ৫ হাজার ৯০ পয়েন্টে অবস্থান করে। ডিএসই শরীয়াহ্ সূচক ৪ পয়েন্ট এবং ডিএসই-৩০ সূচক ৬ পয়েন্ট বেড়ে যথাক্রমে ১১৭৫ ও ১৮০০ পয়েন্টে রয়েছে। এসময়ের মধ্যে লেনদেন হয়েছে ২৮৩ কোটি ৮৪ লাখ টাকার শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের ইউনিট।

সোমবার এসময়ে লেনদেন হওয়া কোম্পানিগুলোর মধ্যে দাম বেড়েছে ১৩৫টির, কমেছে ৮৯টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ১০৪টি কোম্পানির শেয়ার।

সোমবার বেলা ১১টা পর্যন্ত লেনদেনের শীর্ষে থাকা ১০ কোম্পানি হলো- বেক্সিমকো লিমিটেড, বেক্সিমকো ফার্মা, জেএমআই সিরিঞ্জ, পিপলস ইন্স্যুরেন্স, রূপালী ইন্স্যুরেন্স,  বাংলাদেশ ন্যাশনাল ইন্স্যুরেন্স নিটোল ইন্স্যুরেন্স, নর্দান ইন্স্যুরেন্স, রিপাবলিক ইন্স্যুরেন্স ও ডোমেনজ।

এদিন লেনদেন শুরু প্রথম ১০ মিনিটে ডিএসইর সূচক বাড়ে ১৩ পয়েন্ট। এরপর ১০টা ২০ মিনিটে সূচক আগের অবস্থান থেকে আরও ৪ পয়েন্ট কমে যায়। এরপর সূচকের গতি ঊর্ধ্বমুখী দেখা যায়। সকাল ১০টা ৪৫ মিনিটে সূচক আগের দিনের চেয়ে ১৫ পয়েন্ট বেড়ে ৫ হাজার ৯০ পয়েন্টে অবস্থান করে।

অপরদিকে, লেনদেন শুরুর এক ঘণ্টা পর বেলা ১১টায় চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সিএএসপিআই সূচক ৩৬ পয়েন্ট বেড়ে ১৪ হাজার ৬৩১ পয়েন্টে অবস্থান করে। এরপর সূচকের গতি ঊর্ধ্বমুখী দেখা যায়।

এদিন বেলা ১১টা পর্যন্ত সিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৫ কোটি ৬২ লাখ টাকার শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের ইউনিট। এসময়ের ৪৯টি কোম্পানির দাম বেড়েছে, কমেছে ৩৫টি কোম্পানির দর। অপরিবর্তিত রয়েছে ৩৪টি কোম্পানি শেয়ারের দর।

সূচকের বড় উত্থানে লেনদেন শুরু
                                  

অর্থনৈতিক ডেস্ক : দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ-ডিএসই এবং অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ-সিএসইতে মূল্য সূচকের বড় উত্থানে লেনদেন শুরু হয়েছে।

সোমবার সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবসে মাত্র ১৫ মিনিটেই ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে প্রায় দেড়শ কোটি টাকা। লেনদেনে অংশ নেয়া বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানেরই শেয়ার ও ইউনিটের দাম বেড়েছে।

লেনদেন বাড়ার পাশাপাশি ডিএসইর প্রধান মূল্য সূচক ডিএসইএক্স আগের কার্যদিবসের তুলনায় ৭২ পয়েন্ট বেড়েছে।

স্বাধীন বাংলা/এআর

চালু হলো ‘ডিএসই ইনফো’ অ্যাপস
                                  

স্বাধীন বাংলা রিপোর্ট: শেয়ারবাজারের সব তথ্য হাতের মুঠোয় পৌঁছানোর লক্ষ্যে ‘ডিএসই ইনফো’ অ্যাপলিকেশনের উদ্বোধন করেছে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই)। বুধবার বিকেলে মতিঝিলে ডিএসই -তে  ডাক, টেলিযোগাযোগ এবং তথ্য ও প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলক এ অ্যাপলিকেশনের উদ্বোধন করেন।

ডিএসইর চেয়ারম্যান বিচারপতি সিদ্দিকুর রহমান মিয়ার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) কমিশনার অধ্যাপক হেলাল উদ্দীন নিজামী, ডিএসই পরিচালক অধ্যাপক কায়কোবাদ, শাকিল রিজভী ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক স্বপন কুমার বালা।

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে লেনদেন বন্ধ
                                  

স্বাধীন বাংলা রিপোর্ট: কারিগরি ত্রুটির কারণে রবিবার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) লেনদেন বন্ধ রয়েছে। নিয়ম অনুযায়ী সকাল সাড়ে ১০টায় লেনদেন শুরু হওয়ার কথা থাকলেও বেলা সাড়ে ১১টা পর্যন্ত শুরু হয়নি। ডিএসই কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, কারিগরি ত্রুটি ঠিক লেনদেন শুরু করা যাবে বলে বলে আশা করা হচ্ছে।
অন্যদিকে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) নিয়ম মাফিক সকাল সাড়ে ১০ টায় লেনদেন শুরু হয়।

পুঁজিবাজারে কমেছে লেনদেন
                                  

স্বাধীন বাংলা ডেস্ক : দেশের উভয় বাজারে গতকাল মিশ্র প্রবণতায় শেষ হয়েছে লেনদেন। তবে এদিন উভয় বাজারেই আগের দিনের তুলনায় লেনদেন কমেছে। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ (সিএসই) ওয়েবসাইট সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।
ডিএসইর তথ্য অনুযায়ী, গতকাল ডিএসইতে ৩২৫ কোটি ৭০ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে; যা আগের দিনের তুলনায় ৩০ কোটি টাকা বা ৮  দশমিক ৫৫ শতাংশ কম লেনদেন। আগের দিন এ বাজারে ৩৫৬ কোটি টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। গতকাল ডিএসইতে লেনদেনে অংশ নেয় ৩১৫টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ড। এর মধ্যে দর বেড়েছে ১৫৮টির, কমেছে ১২৩টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৩৪টির শেয়ার দর। ডিএসইএক্স বা প্রধান মূল্য সূচক ১ পয়েন্ট বেড়ে ৪ হাজার ৬৪৯ পয়েন্টে অবস্থান করছে। ডিএসইএস বা শরীয়াহ সূচক ৩ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে এক হাজার ১১৬ পয়েন্টে। ডিএস৩০ সূচক  দশমিক ৩৪ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে এক হাজার ৭৬২ পয়েন্টে। টাকার পরিমাণে ডিএসইতে লেনদেনের শীর্ষে থাকা দশ কোম্পানি হচ্ছে- আমান ফিড লিমিটেড, সিভিও পেট্রোকেমিক্যাল রিফাইনারি লিমিটেড, কেডিএস এক্সেসরিজ লিমিটেড, বেক্সিমকো ফার্মা, ইউনাইটেড এয়ারওয়েজ, মিরাকেল ইন্ডাস্ট্রিজ, সিঅ্যান্ডএ টেক্সটাইল, শাহজিবাজার পাওয়ার কোম্পানি, ইফাদ অটোস এবং বিএসআরএম স্টিলস লিমিটেড।
গতকাল চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) ২৯ কোটি টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। এদিন সিএসই সার্বিক সূচক ৪ পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৪ হাজার ২০২ পয়েন্টে। সিএসইতে মোট লেনদেন হয়েছে ২৩৩টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের শেয়ার। এর মধ্যে দর বেড়েছে ১১৩টি কোম্পানির, দর কমেছে ৯১টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২৯টি কোম্পানির।

উত্তরা ব্যাংকের ইপিএস ৮৬ পয়সা
                                  

নিজস্ব প্রতিনিধি: আজ মঙ্গলবার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) প্রকাশিত কোম্পানির অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে, উত্তরা ব্যাংকের চলতি হিসাব বছরের তৃতীয় প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর) শেয়ারপ্রতি সমন্বিত আয় (ইপিএস) হয়েছে ৮৬ পয়সা। আগের হিসাব বছরের এই তিন মাসে ইপিএস দাঁড়ায় ৫৯ পয়সা।

প্রতিবেদন অনুসারে, চলতি হিসাব বছরের জানুয়ারি-সেপ্টেম্বর প্রান্তিকে এই ব্যাংকের ইপিএস হয়েছে দুই টাকা ৯১ পয়সা, যা আগের হিসাব বছরের একই সময়ে হয় দুই টাকা ৩৯ পয়সা।

চলতি বছরের ৩০ সেপ্টেম্বর কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি নিট সম্পদমূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ৩২ টাকা ৮৯ পয়সা। তবে আগের বছর সেপ্টেম্বর শেষে কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি এনএভি দাঁড়ায় ২৯ টাকা ৫৮ পয়সা।

গত এক মাসের মধ্যে এ কোম্পানির শেয়ারের সর্বনিম্ন দাম ছিল ২১ টাকা ২০ পয়সা ও সর্বোচ্চ ২৩ টাকা ৭০ পয়সা। সর্বশেষ আর্থিক প্রতিবেদন ও বাজার দামের ভিত্তিতে এ শেয়ারের দাম-আয় অনুপাত (পিই রেশিও) ৫ দশমিক ৫৪।

ঘুরে দাঁড়িয়েছে পুঁজিবাজার
                                  

স্বাধীন বাংলা ডেস্ক: টানা তিন কার্যদিবস দর পতনের পর অবশেষে টালমাটাল অবস্থা থেকে ঘুরে দাঁড়িয়েছে পুঁজিবাজার। সোমবার ঊর্ধ্বমুখি ধারায় ফিরেছে এ বাজার। এদিন দুই স্টক এক্সচেঞ্জেই সূচকের সঙ্গে টাকার অংকে লেনদেনের পরিমাণ বেড়েছে। একই সঙ্গে লেনদেন হওয়া বেশির ভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের দরও বেড়েছে।

এরআগে টানা তিন কার্যদিবস দর পতনের ফলে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) প্রধান সূচক ১০৫ পয়েন্টে কমে যায়। এ সময় ডিএসইর বাজার মূলধন হারায় প্রায় সাড়ে সাত হাজার কোটি টাকা। ফলে টালমাটাল অবস্থা বিরাজ করে শেয়ারবাজারে। সোমবার সূচকের সঙ্গে লেনদেন উত্থানের ফলে বিনিয়োগকারীদের মধ্যে কিছুটা আস্থা ফিরে এসেছে।

বাজার বিশ্লেষণে দেখা গেছে, সোমবার দিন শেষে দেশের প্রধান বাজার ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স আগের দিনের চেয়ে ৪৮ পয়েন্ট বেড়ে ৪ হাজার ৭৭৬ পয়েন্টে অবস্থান করছে এবং শরীয়াহ সূচক  ডিএসইএস ৮ পয়েন্ট বেড়ে ১ হাজার ১৪৪ পয়েন্টে এবং ডিএস ৩০ সূচক ১৮ পয়েন্ট বেড়ে ১ হাজার ৮১৩ পয়েন্টে অবস্থান করছে।

দিনশেষে ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৪১৬ কোটি ৪৭ লাখ টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট; যা আগের দিনের চেয়ে ৭৮ কোটি টাকা বেশি। রোববার লেনদেন হয়েছিল ৩৩৮ কোটি টাকা।  এদিন ডিএসইতে ৩১৬টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট লেনদেন হয়েছে। এর মধ্যে বেড়েছে ১৮৬টির, কমেছে ১০২টির আর অপরিবর্তিত রয়েছে ২৮টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার দর।

পুঁজিবাজারে কমেছে সূচক ও লেনদেন
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদক : নিম্নমুখী প্রবণতার মধ্য দিয়ে শেষ হয়েছে ঢাকা ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের লেনদেন। আজ বুধবার কমেছে উভয় বাজারের লেনদেন ও সূচক।

আজ দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) প্রধান সূচক ডিএসইএক্সের পতন হয়েছে ৩২.৭০ পয়েন্ট। দিনশেষে সূচক গিয়ে দাঁড়িয়েছে ৪৮০০.৬২ পয়েন্টে। মঙ্গলবার সূচক বেড়েছিল ১.৭৩ পয়েন্ট।

লেনদেনে অংশ নেয়া ৩২১টি ইস্যুর মধ্যে দিনশেষে দর বেড়েছে ১০২টির, কমেছে ১৮৫টির ও অপরিবর্তিত রয়েছে ৩৪টির দর। ব্যাংক, বিমা, জ্বালানি খাতসহ অন্যান্য খাতের বেশিরভাগ কোম্পানির শেয়ারের দর কমেছে। তবে মিউচুয়াল ফান্ড খাতের অধিকাংশেরই দর বেড়েছে। মিউচুয়াল ফান্ডের দর বৃদ্ধি বা পতনে মূল্য সূচকে কোনো প্রভাব পড়ে না।

এদিকে এক দিনের ব্যবধানে ডিএসইর লেনদেন ফের ৪০০ কোটি টাকার নিচে নেমে এসেছে। বুধবার দিনশেষে লেনদেন হয়েছে ৩৯৭ কোটি ৬৯ লাখ টাকা। মঙ্গলবারের তুলনায় লেনদেন কমেছে ১৭ কোটি ১৪ লাখ টাকা।

দেশের অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের সিএসসিএক্স ৬৬.২৭ পয়েন্ট কমে দিনশেষে ৮৯৫৪.৬৫ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। লেনদেন হয়েছে ৩৫ কোটি ৬৪ লাখ টাকা। লেনদেনে অংশ নেয়া কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ৮৩টির, কমেছে ১৪৭টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ১৯টির দর।

১০ শতাংশ লভ্যাংশ ঘোষণা
                                  

নিজস্ব প্রতিনিধি: বিনিয়োগকারীদের জন্য ১০ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত কোম্পানি বাংলাদেশ সাবমেরিন কেবল কোম্পানি লিমিটেড (বিএসসিসিএল)। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। গতকাল অনুষ্ঠিত কোম্পানির পরিচালনা পর্ষদের বৈঠকে লভ্যাংশের এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। কোম্পানিটি গত ৩০ জুন ২০১৫ সমাপ্ত বছরের জন্য এ লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে।
জানা গেছে, কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৮৬ পয়সা। একই সময়ে শেয়ারপ্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ২৬ টাকা ৯১ পয়সা।
কোম্পানির বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) আগামী ১৮ অক্টোবর অনুষ্ঠিত হবে। এর জন্য রেকর্ড তারিখ নির্ধারণ করা হয়েছে আগামী ২৮ সেপ্টেম্বর।
কোম্পানিটি আগের বছর অর্থাৎ ২০১৪ সমাপ্ত অর্থবছরে শেয়ারপ্রতি আয় করে ২ টাকা ৪২ পয়সা।
উল্লেখ্য, ২০১২ সালে কোম্পানিটি পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হয়।

৯৬-এর শেয়ার কেলেঙ্কারির প্রথম রায়, দুজনকে দন্ড
                                  


স্টাফ রিপোর্টার : শেয়ারবাজারের তালিকাভুক্ত কোম্পানি চিক টেক্সটাইলের মামলায় দুজনকে চার বছরের কারাদ- দেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া তাঁদের ৩০ লাখ টাকা করে জরিমানা ও অনাদায়ে ছয় মাসের কারাদ- হয়েছে। গতকাল সোমবার সকালে পুঁজিবাজার সংক্রান্ত মামলা পরিচালনার জন্য গঠিত বিশেষ ট্রাইব্যুনালের বিচারক হুমায়ূন কবির এ রায় দেন। ১৯৯৬ সালের শেয়ারবাজার কেলেঙ্কারির ঘটনায় এটি প্রথম রায়। দন্ডপ্রাপ্তরা হলেন কোম্পানিটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মো. মাকসুদুর রসুল ও পরিচালক ইফতেখার মোহাম্মদ। আজ রায় ঘোষণার সময় আসামিদের কেউ আদালতে ছিলেন না। কৃত্রিমভাবে শেয়ারের দর বাড়ানোর অভিযোগে ১৯৯৭ সালের ২ এপ্রিল পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) পক্ষে ওই প্রতিষ্ঠান এবং প্রতিষ্ঠানের এমডি ও পরিচালকের বিরুদ্ধে মামলা হয়।
গত জুনে পুঁজিবাজার সংক্রান্ত মামলা পরিচালনার জন্য বিশেষ ট্রাইব্যুনালের কার্যক্রম শুরুর পর মামলাটি এখানে যায়। গতকালকেরটিসহ এ ট্রাইব্যুনাল শেয়ারবাজার সংক্রান্ত তিনটি মামলার রায় ঘোষণা করেছে। আগের রায় দুটি শেয়ারবাজার সংক্রান্ত আলাদা দুটি মামলার হলেও গতকালকেরটি ছিল ১৯৯৬ সালের আলোচিত শেয়ারবাজার কেলেঙ্কারির ঘটনায় করা মামলায় প্রথম রায়।


   Page 1 of 2
     শেয়ার বাজার
বিরামপুরে গাছে গাছে কাঁচা-পাকা খেজুর
.............................................................................................
ডিএসইতে সূচকের উত্থান
.............................................................................................
সূচকের সঙ্গে বেড়েছে লেনদেন
.............................................................................................
ঊর্ধ্বমুখী শেয়ারবাজার
.............................................................................................
পুঁজিবাজারে চাঙ্গাভাব, এক ঘণ্টায় লেনদেন ৯৫০ কোটি ছাড়িয়েছে
.............................................................................................
বছরের শেষ কার্যদিবসে ইতিবাচক সূচকে পূঁজিবাজার
.............................................................................................
ইতিচাক গতিতে চলছে পুঁজিবাজারে লেনদেন
.............................................................................................
সূচকের বড় উত্থানে লেনদেন শুরু
.............................................................................................
চালু হলো ‘ডিএসই ইনফো’ অ্যাপস
.............................................................................................
ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে লেনদেন বন্ধ
.............................................................................................
পুঁজিবাজারে কমেছে লেনদেন
.............................................................................................
উত্তরা ব্যাংকের ইপিএস ৮৬ পয়সা
.............................................................................................
ঘুরে দাঁড়িয়েছে পুঁজিবাজার
.............................................................................................
পুঁজিবাজারে কমেছে সূচক ও লেনদেন
.............................................................................................
১০ শতাংশ লভ্যাংশ ঘোষণা
.............................................................................................
৯৬-এর শেয়ার কেলেঙ্কারির প্রথম রায়, দুজনকে দন্ড
.............................................................................................
পুঁজিবাজারে লেনদেনে খরা
.............................................................................................
সাময়িক সমস্যায় ডিএসইর লেনদেন বন্ধ!
.............................................................................................
পুঁজিবাজারের সূচক নিম্নমুখী
.............................................................................................
শেয়ারবাজারে সক্রিয় সঙ্ঘবদ্ধ চক্র!
.............................................................................................
শেয়ারবাজারে সক্রিয় সঙ্ঘবদ্ধ চক্র!
.............................................................................................
শেয়ারবাজার নিয়ে ইকোসফটবিডি’র ‘স্মার্ট স্টক’
.............................................................................................
সিঅ্যান্ডএ টেক্সটাইলসের আইপিও আবেদন শুরু ৯ নভেম্বর
.............................................................................................
সেপ্টেম্বর থেকেই নতুন পদ্ধতিতে আইপিও আবেদন
.............................................................................................
ওয়েস্টার্ন মেরিনের মুনাফায় ধস
.............................................................................................
শেয়ারবাজারে সক্রিয় সঙ্ঘবদ্ধ চক্র!
.............................................................................................
অ্যাপেক্স স্পিনিংয়ের ২০% নগদ লভ্যাংশ ঘোষণা
.............................................................................................
চারদিন পর কমলো সূচক ও লেনদেন
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
    2015 @ All Right Reserved By dailyswadhinbangla.com

Developed By: Dynamic Solution IT