রবিবার, ২ অক্টোবর 2022 বাংলার জন্য ক্লিক করুন
  
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

   অর্থ-বাণিজ্য
  বিশ্ববাজারে সয়াবিনের দাম কমেছে ৩২ শতাংশ, দেশে কমবে কবে?
  17, July, 2022, 9:47:45:AM

স্বাধীন বাংলা ডেস্ক
বিশ্ববাজারে রান্নার সয়াবিন ও পাম তেলের দামে ধস নেমেছে। দেড় থেকে দুই মাসের ব্যবধানে সয়াবিনের দাম কমেছে ৩২ শতাংশ আর পাম তেলের দাম কমেছে ৪৮ শতাংশ। বিশ্ববাজারের প্রভাবে পাইকারি বাজারে খোলা ভোজ্যতেলের দাম কমেছে। খুচরা পর্যায়ে খোলা তেলের দাম কমলেও বোতলজাত তেলের দাম এখনো সেভাবে কমেনি। সরকার যে হিসাবে দাম নিয়ন্ত্রণ করে, সেই হিসাবে বিশ্ববাজারের প্রভাব পড়তে আরও অপেক্ষা করতে হবে বলে জানিয়েছেন পরিশোধনকারীরা।

বিশ্ববাজারের এবারের ধস ২০০৮ সালকেও ছাড়িয়ে গেছে। এ ধসের দুটি দিক রয়েছে। এক. ভোক্তাদের জন্য সুখবর আসছে। সামনে আরও বেশি দামে তেল কিনতে হবে না। দুই. হঠাৎ ধসের কারণে আমদানিকারক থেকে পাইকারি ব্যবসায়ীরা বিপুল লোকসানের মুখে পড়েছেন। এর সঙ্গে যোগ হয়েছে আগে বিক্রি করা তেলের আমদানি দায়। আগে বিক্রি করে মুনাফা করলেও শুধু ডলারের দর বেড়ে যাওয়ায় সেখানেও লোকসান গুনতে হচ্ছে বিক্রেতাদের।

যুক্তরাষ্ট্রের কমোডিটি এক্সচেঞ্জ শিকাগো বোর্ড অব ট্রেডে মে মাসের প্রথম সপ্তাহে পরিশোধিত সয়াবিন তেলের দর উঠেছিল টনপ্রতি ১ হাজার ৯৫০ ডলার। সে সময় প্রতি ডলার ৮৬ টাকা হিসাবে লিটারপ্রতি দর দাঁড়ায় ১৫৩ টাকা। গত বৃহস্পতিবার এই দর নেমে আসে টনপ্রতি ১ হাজার ৩১৮ ডলারে। বাংলাদেশ ব্যাংক নির্ধারিত ডলারের দরে (৯৩ টাকা ৯৫ পয়সা) লিটারপ্রতি দর দাঁড়ায় ১১৩ টাকা। অর্থাৎ দুই মাসে দরপতন হয়েছে ৬৩২ ডলার বা ৩২ শতাংশ। ভোজ্যতেলের ইতিহাসে কখনো এভাবে দরপতন হয়নি।

সয়াবিনের চেয়ে বেশি কমেছে পাম তেলের দাম। মালয়েশিয়ার কমোডিটি এক্সচেঞ্জ বুশরা মালয়েশিয়া ডেরিভেটিভসে গত ৫ মে অপরিশোধিত পাম তেল বেচাকেনা হয় ৭ হাজার ৩৮২ মালয়েশিয়ান রিঙ্গিত বা লিটারপ্রতি প্রায় ১৩৯ টাকায়। বুধবার এ দর নেমে আসে ৩ হাজার ৮৫০ রিঙ্গিত বা লিটারপ্রতি ৭১ টাকায়। অর্থাৎ দুই মাসে পাম তেলের দর কমেছে প্রায় ৪৮ শতাংশ।

বাংলাদেশ মূলত ব্রাজিল ও আর্জেন্টিনা থেকে অপরিশোধিত সয়াবিন তেল আমদানি করে। আর ইন্দোনেশিয়া থেকে আমদানি করে হালকা পরিশোধিত আকারে আরবিডি পাম তেল। এ দুই ধরনের তেলের দামও একইভাবে পড়েছে।

পণ্যবাজার বিশ্লেষক আসির হক বলেন, ইন্দোনেশিয়ার রপ্তানি নিষেধাজ্ঞার পর থেকে বাজার পড়তির দিকে ছিল। উৎপাদন বৃদ্ধি, রপ্তানিকারক দেশগুলোতে মজুত বেড়ে যাওয়া এবং ভোক্তা দেশগুলোর চাহিদা হ্রাস পাওয়ায় বাজারে এমন দরপতন হচ্ছে।

পাইকারি বাজার খাতুনগঞ্জে বিশ্ববাজারের সাপেক্ষে প্রতি ঘণ্টায় দর ওঠানামা করে। বৃহস্পতিবার পাইকারি বাজারে প্রতি লিটার সয়াবিন তেল বিক্রি হয়েছে ১৬০ টাকায়। দুই মাসের ব্যবধানে লিটারপ্রতি দাম কমেছে ২০ থেকে ২২ টাকা। পাম তেল লিটারপ্রতি ৩৪ থেকে ৩৬ টাকা কমে বিক্রি হয়েছে ১১২ টাকা ও ১২৫ টাকায়।

খাতুনগঞ্জের আরএম এন্টারপ্রাইজের কর্ণধার সাহেদ উল আলম বলেন, পাইকারি বাজার কমোডিটি এক্সচেঞ্জের মতো দর ওঠানামা করে। বিশ্ববাজারে দাম বাড়ার সময় যেমন এখানে প্রভাব পড়েছে, তেমনি বিশ্ববাজারে দরপতনে এখানে দামে ধস নেমেছে। ভোজ্যতেল ব্যবসায়ীরা বেচাকেনায় বড় লোকসানের মুখে পড়েছেন।

পাইকারি বাজারে খোলা তেলের দাম কমার প্রভাব পড়তে শুরু করেছে খুচরা বাজারে। টিসিবির হিসাবে বৃহস্পতিবার ঢাকার বাজারে খোলা সয়াবিন তেল লিটারপ্রতি ১৭০ থেকে ১৮০ টাকায় বেচাকেনা হয়েছে। পাম তেল বেচাকেনা হয়েছে ১৪০ থেকে ১৫০ টাকায়। এক মাসের ব্যবধানে সয়াবিন তেলের দাম ৬ শতাংশ এবং পাম তেলের দাম ১২ শতাংশ কমেছে।

পাম তেলের বড় অংশই খোলা বেচাকেনা হয়। তবে সয়াবিন তেলের বড় অংশ বেচাকেনা হয় বোতলজাত হিসেবে। বোতলজাত তেলের দাম গত ২৬ জুন এক দফায় লিটারপ্রতি ৬ টাকা কমানো হয়েছে। দাম কমানোর পর বিশ্ববাজারে আরও পতন হয়েছে। তবে এখনো কমানো হয়নি।

বোতলজাত তেলের দাম সরকার নিয়ন্ত্রণ করে। সে ক্ষেত্রে তিন ধরনের দর পর্যালোচনা করে সিদ্ধান্ত নেয় সরকার। এই তিনটি হলো এক মাসে গড়ে কত দরে ঋণপত্র খোলা হয়েছে, এক সপ্তাহে কত দরে বন্দর দিয়ে তেল আমদানি হয়েছে এবং এক সপ্তাহে কত দরে ট্যাংক টার্মিনাল থেকে তেল বাজারজাতের জন্য খালাস হয়েছে।

বিশ্ববাজারে ভোজ্যতেলের দাম কমলেও এখনো এ তিন ধরনের দর খুব একটা কমেনি। যেমন বিশ্ববাজারে এখন অপরিশোধিত সয়াবিন তেলের দর চট্টগ্রাম বন্দর পর্যন্ত টনপ্রতি ১ হাজার ৩৯০ থেকে ১ হাজার ৪৫০ ডলার। এবার দেখা যাক দেশে কোন দরে ঋণপত্র খোলা ও আমদানি হয়েছে।

জুনের শেষ সপ্তাহে প্রতি টন অপরিশোধিত সয়াবিনের ঋণপত্র খোলা হয়েছে গড়ে ১ হাজার ৮১৭ ডলারে। বন্দর দিয়ে সর্বশেষ আমদানি হওয়া সয়াবিন তেলের টনপ্রতি মূল্য ১ হাজার ৮৫১ ডলার। জুলাই মাসে ট্যাংক টার্মিনাল থেকে খালাস হওয়া সয়াবিনের টনপ্রতি গড় মূল্য ছিল ১ হাজার ৭৯১ ডলার। অর্থাৎ দাম কমলেও এখনো দেশে সেই তেল পৌঁছায়নি। তবে ধীরে ধীরে এক থেকে দুই মাসের মধ্যে হ্রাসকৃত মূল্যের তেল দেশে পৌঁছাবে বলে ব্যবসায়ীরা জানিয়েছেন।

২০০৮ সালে বৈশ্বিক মন্দা শুরুর আগে বিশ্ববাজারে সয়াবিন ও পাম তেলের দাম সর্বোচ্চ পর্যায়ে পৌঁছেছিল। সে বছরের এপ্রিলে মন্দা শুরুর পর দরপতন শুরু হয়। এমনকি মন্দার প্রভাবে এক মাসেই লিটারে দাম কমে প্রায় ১৬ টাকা, আর চার মাসের ব্যবধানে দাম কমে ৫০ শতাংশ।

মন্দা কাটিয়ে বিশ্ব অর্থনীতি ঘুরে দাঁড়ানোর পর ২০১১ সালে আন্তর্জাতিক বাজারে ভোজ্যতেলের দামে আরেক দফা উত্থান ঘটে। যথারীতি ২০১২ সালের শেষে আবারও দরপতন শুরু হলে ব্যবসায়ীরা ধাক্কা খান। এ দুই ধাক্কা সামলাতে না পেরে চট্টগ্রামের বড় কয়েকটি গ্রুপকে বাজার থেকে সরে যেতে হয়েছে।

২০০৮ ও ২০১২ সালের চেয়ে এবারের পতনের হার বেশি। এবার এক মাসেই পাম তেলের দাম কমেছে ৩৭ শতাংশ, যেটি আগে কখনো হয়নি।

টি কে গ্রুপ এ সপ্তাহে অপরিশোধিত সয়াবিন তেল আমদানি করেছে টনপ্রতি ১ হাজার ৮৫১ ডলারে। অথচ বিশ্ববাজারে এখন একই তেল আমদানির জন্য ঋণপত্র খোলা হলে দর পড়বে ১ হাজার ৪৫০ ডলার। অর্থাৎ ঋণপত্র খুলে দেশে আনতেই বিশ্ববাজারে প্রতি টনের দর পড়ে গেছে ৪০০ ডলার।

টি কে গ্রুপের পরিচালক শফিউল আথহার বলেন, বন্দর দিয়ে এখন যেসব তেল আমদানি হচ্ছে, তার ঋণপত্র বিশ্ববাজারে চড়া দাম থাকার সময় খোলা হয়েছে। হঠাৎ দরপতনের কারণে এখন বড় লোকসানের মুখে পড়বে সবাই। সবচেয়ে বেশি লোকসান হচ্ছে আগে বিক্রি করে দেওয়া তেলের আমদানি দায় শোধ করতে গিয়ে। এ সপ্তাহে টি কে গ্রুপ ৯৯ টাকা ৪০ পয়সা দরে ডলার কিনে আমদানি বিল পরিশোধ করেছে, যে ঋণপত্র খোলার সময় ডলারের দর ৮৬ টাকা ছিল। এ ধাক্কা সামলানো কঠিন।

মালয়েশিয়ার ‘দ্য এজ মার্কেট’ অনলাইনের ৭ জুলাইয়ের খবরে বলা হয়, পাম তেলের দাম কমে যাওয়ায় ভারত, পাকিস্তানের আমদানিকারকেরা উচ্চ দামে কেনা চুক্তি পর্যালোচনা করতে চাইছেন। চুক্তির পর আমদানি না করা চালানের সংখ্যা বাড়ছে। মূলত হঠাৎ দরপতনে বিপুল লোকসান ঠেকাতে আমদানিকারকেরা এ চেষ্টা করছেন বলে খবরে বলা হয়।

দেশে সয়াবিন ও পাম তেল আমদানি করে চাহিদা মেটানো হয়। আর আমদানি করা বীজ মাড়াই করে সয়াবিন উৎপাদন করা হয়। বছরে ২১ লাখ টন তেল আমদানি হয় আর মাড়াই করে তিন লাখ টন সয়াবিন পাওয়া যায়।

বিশ্ববাজারে দাম বেড়ে যাওয়ায় গত অর্থবছরে সয়াবিন ও পাম তেল আমদানিতে ২৮০ কোটি ডলার ব্যয় হয়েছে। এ ব্যয় ২০২০-২১ অর্থবছরের চেয়ে ৯৬ কোটি ডলার বেশি। বিশ্ববাজারে দরপতনের কারণে তেল আমদানিতে বৈদেশিক মুদ্রা ব্যয় কমবে। ভোক্তারাও সুফল পাবেন। সূত্র- প্রথমআলো, নিউজবাংলা ডটকম।



   শেয়ার করুন
   আপনার মতামত দিন
     অর্থ-বাণিজ্য
উঠে গেল ভোজ্যতেলের ভ্যাট মওকুফসুবিধা
.............................................................................................
উন্নত লজিস্টিকস সেবায় পিছিয়ে দেশ
.............................................................................................
পোশাক রপ্তানি: যুক্তরাষ্ট্রেই বেড়েছে ৫৪.৪৩ শতাংশ
.............................................................................................
কুষ্টিয়া জনতা ব্যাংক কর্পোরেট শাখার বিতর্কিত এজিএম এখনও বহাল !
.............................................................................................
চলতি অর্থবছরে ৬.৬ শতাংশ প্রবৃদ্ধির পূর্বাভাস এডিবির
.............................................................................................
নতুন করদাতাদের রিটার্ন দাখিলের শেষ সময় ৩০ জুন
.............................................................................................
আরও কমলো সোনার দাম
.............................................................................................
এক সপ্তাহে ১২ হাজার কেজি ইলিশ গেল ভারতে
.............................................................................................
সাড়ে ৮ হাজার কোটি টাকার ৬ প্রকল্প অনুমোদন
.............................................................................................
আধা ঘণ্টায় সাড়ে ৩০০ কোটি টাকা লেনদেন
.............................................................................................
৩ লাখ ৩৭ হাজার কোটি টাকা বৈদেশিক ঋণ নেবে সরকার
.............................................................................................
অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘটে খুলনায় তেল উত্তোলন বন্ধ
.............................................................................................
রাজস্ব আয় বৃদ্ধির লক্ষ্যে ক্যাবের যাত্রা : প্রদ্যুৎ কুমার
.............................................................................................
ডলার পাচার ঠেকাতে বিমানবন্দরে নিরাপত্তা জোরদার
.............................................................................................
লোডশেডিংয়ে বিপর্যস্ত তাঁতশিল্প
.............................................................................................
বাংলাদেশ ৬৭টি তথ্য চেয়েছিল সুইস ব্যাংকের কাছে
.............................................................................................
বছরে ৭৩ হাজার কোটি টাকা পাচার হচ্ছে স্বর্ণ চোরাচালানে: বাজুস
.............................................................................................
বিশ্বজুড়ে জনসন অ্যান্ড জনসনের বেবি পাউডার বিক্রি বন্ধ ঘোষণা
.............................................................................................
ব্যাংকের শাখায় শাখায় বেচাকেনা হবে নগদ ডলার
.............................................................................................
ফরিদপুরে ইসলামী শাসনতন্ত্র আন্দোলনের সমাবেশ অনুষ্ঠিত
.............................................................................................
তেলের মূল্য বৃদ্ধিতে বেনাপোলে পণ্য পরিবহনে অচলাবস্থা
.............................................................................................
বিইআরসি ঠুঁটো জগন্নাথ
.............................................................................................
ডলার কারসাজি : ৬ ব্যাংকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ
.............................................................................................
আন্তর্জাতিক বাজারে ফের কমল জ্বালানি তেলের দাম
.............................................................................................
ভারতের প্রথম ট্রায়াল জাহাজ মোংলা বন্দরে
.............................................................................................
এবার সয়াবিন তেলের দাম বাড়ানোর প্রস্তাব
.............................................................................................
বাংলাদেশের সড়ক ব্যবহার করে তেল-গ্যাস নেবে ভারত
.............................................................................................
সর্বোচ্চ রেমিট্যান্স এসেছে জুলাই মাসে
.............................................................................................
‘বিজনেস লিডারশীপ অ্যাওয়ার্ড’ পেলেন প্রদ্যুৎ কুমার তালুকদার
.............................................................................................
লাগাতার আমদানির পরও বাড়ছেই চালের দাম
.............................................................................................
৫২ শ্রমিক করোনা আক্রান্ত, বড়পুকুরিয়া কয়লা খনির উত্তোলন বন্ধ
.............................................................................................
হিলি স্থলবন্দর দিয়ে বেড়েছে গম আমদানি, কমছে দাম
.............................................................................................
বিশ্ব অর্থনীতি মন্দার দ্বারপ্রান্তে যাবে : আইএমএফ
.............................................................................................
ভরিতে ১৩৪১ টাকা বাড়লো স্বর্ণের দাম
.............................................................................................
বাংলাদেশের পতাকা নিয়ে প্রথমবারের মতো কানাডায় উড়াল দিল বিমান
.............................................................................................
খোলা তেল বিক্রি বন্ধ হচ্ছে
.............................................................................................
কেন্দ্রীয় ব্যাংককে রিজার্ভের হিসাব পরিবর্তন করতে বললো আইএমএফ, কেন?
.............................................................................................
সরকারি এক সংস্থাই ভ্যাট ফাঁকি দিয়েছে ৪৬৮ কোটি টাকা
.............................................................................................
খাতুনগঞ্জে কমেছে ভোজ্যতেলের দাম
.............................................................................................
বেশি দামে সয়াবিন তেল বিক্রি ঠেকাতে আজ থেকে অভিযান
.............................................................................................
দেশে স্বর্ণের দাম কমলো
.............................................................................................
সোমবার থেকে লিটারে ১৪ টাকা কমে পাওয়া যাবে সয়াবিন তেল
.............................................................................................
বিশ্ববাজারে সয়াবিনের দাম কমেছে ৩২ শতাংশ, দেশে কমবে কবে?
.............................................................................................
বাংলাদেশের অর্থনীতি দক্ষিণ এশিয়ায় দ্বিতীয় বৃহৎ
.............................................................................................
ক্ষুদ্র-মাঝারি-মৌসুমি ব্যবসায়ীরা চামড়া নিয়ে দুশ্চিন্তায়
.............................................................................................
ভোজ্যতেলের দাম কমল লিটারে ৩৫ টাকা
.............................................................................................
বেড়েই চলেছে ডলারের সংকট
.............................................................................................
তিনদিনে ৩ হাজার কোটি টাকা পুঁজি হারালেন বিনিয়োগকারীরা
.............................................................................................
বিশ্ববাজারে খাদ্যশস্য পরিবহনে তুরস্কে বৈঠকে বসছে রাশিয়া-ইউক্রেন
.............................................................................................
হিলিতে পেঁয়াজের দাম কমে ৩০ টাকা কেজি
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

সম্পাদক ও প্রকাশক : মোহাম্মদ আখলাকুল আম্বিয়া
নির্বাহী সম্পাদক: মাে: মাহবুবুল আম্বিয়া
যুগ্ম সম্পাদক: প্রদ্যুৎ কুমার তালুকদার

সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক কার্যালয়: স্বাধীনতা ভবন (৩য় তলা), ৮৮ মতিঝিল বাণিজ্যিক এলাকা, ঢাকা-১০০০। Editorial & Commercial Office: Swadhinota Bhaban (2nd Floor), 88 Motijheel, Dhaka-1000.
সম্পাদক কর্তৃক রঙতুলি প্রিন্টার্স ১৯৩/ডি, মমতাজ ম্যানশন, ফকিরাপুল কালভার্ট রোড, মতিঝিল, ঢাকা-১০০০ থেকে মুদ্রিত ও প্রকাশিত ।
ফোন : ০২-৯৫৫২২৯১ মোবাইল: ০১৬৭০৬৬১৩৭৭

Phone: 02-9552291 Mobile: +8801670 661377
ই-মেইল : dailyswadhinbangla@gmail.com , editor@dailyswadhinbangla.com, news@dailyswadhinbangla.com

 

    2015 @ All Right Reserved By dailyswadhinbangla.com

Developed By: Dynamic Solution IT