সোমবার, ৫ ডিসেম্বর 2022 বাংলার জন্য ক্লিক করুন
  
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

   সম্পাদকীয়
  অবাধ লুটপাট বিমানে
  9, July, 2017, 4:11:23:PM

রাষ্ট্রীয় বিমান সংস্থা বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসে রীতিমতো পুকুরচুরি চলছে। এখানে কর্মরত এক শ্রেণির কর্মকর্তা-কর্মচারীর দুর্নীতি লাভজনক একটি প্রতিষ্ঠানকে লোকসানি প্রতিষ্ঠানে পরিণত করেছে। এখানে অবাধে চলে নিয়োগ বাণিজ্য। কেনাকাটা থেকে শুরু করে সর্বক্ষেত্রে চুরির ঘটনা ঘটে। অপচয়েরও কোনো কমতি নেই। ভাবতে অবাক লাগে। রাষ্ট্রীয় একটি সংস্থা চলছে এমন চরম অব্যবস্থাপনায়। বছরের পর বছর ভর্তুকি দেওয়া হচ্ছে। জনগণের প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ করের টাকা চলে যাচ্ছে দুর্নীতিবাজদের পকেটে। অনেকের ভাগ্য পরিবর্তনের মাধ্যম হয়েছে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনস। কালের কণ্ঠে প্রকাশিত ধারাবাহিক প্রতিবেদনে সে তথ্যই উঠে এসেছে। বিমানের প্রকৃত আয় ও প্রদর্শিত আয়ের বড় ফারাক ধরা পড়েছিল ২০১৪ সালের এক তদন্ত প্রতিবেদনে। সংস্থার ভেতরে ঘাপটি মেরে থাকা সিন্ডিকেট হাতিয়ে নিচ্ছে বিপুল পরিমাণ টাকা। অথচ তা দেখার যেন কেউ নেই। এখানে প্রতিটি ক্ষেত্রে আয় কম দেখানো হয়েছে। এতে বিমানের লোকসান হলেও বিপুল পরিমাণ টাকা চলে গেছে সিন্ডিকেট সদস্যদের পকেটে। গ্রাউন্ড পাওয়ার ইউনিট, এয়ার কন্ডিশন ইউনিট, কার্গো লোডার, এয়ারবাসের টোবার ইত্যাদি ইউনিট থেকে প্রকৃত আয়ের চেয়ে আয় কম দেখানো হলে তা তদন্তে ধরা পড়ে। জড়িত সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে তদন্ত প্রতিবেদনে ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলা হলেও তা করা হয়নি। এমনকি নিরপেক্ষ কোনো সংস্থাকে দিয়ে তদন্ত করানোর সুপারিশও রক্ষিত হয়নি। বিমান কর্তৃপক্ষ নিজেরা তদন্ত করে অভিযোগের সত্যতা পেলেও কারো বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি।
আয় কম দেখানোর পাশাপাশি বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের বিরুদ্ধে আরেকটি বড় অভিযোগ, কেনাকাটায় দুর্নীতি। সব সময় নিম্নমানের যন্ত্রপাতি আনা হয় বলে অভিযোগ রয়েছে। ফলে অল্পদিনেই তা নষ্ট হয়ে যায়। আবার নতুন করে কেনার প্রয়োজন পড়ে। সবচেয়ে বড় অভিযোগ লিজ বাণিজ্যে। বিমানের রুট নতুন করে বাড়ানো হয়নি। যাত্রীসংখ্যা আগের তুলনায় অনেক কমেছে। কিন্তু তার পরও উড়োজাহাজ লিজ নেওয়ার ব্যাপারে সিন্ডিকেটের উৎসাহ কমেনি। বিশেষ করে হজের সময় তাড়াহুড়া করে উড়োজাহাজ লিজ নেয় বিমান। অভিযোগ রয়েছে, মোটা অঙ্কের কমিশনই এই লিজ বাণিজ্যে অতি আগ্রহের নেপথ্যের কারণ। বিমানের আরেকটি বড় বাণিজ্য হয় নিয়োগে। ২০০৭ সালে বিমানকে কম্পানি করার সময় শর্ত ছিল কাঠামো করে অর্থ ও জনপ্রশাসন মন্ত্র্রণালয়ের অনুমোদন নিতে হবে। কিন্তু দীর্ঘ সময় পেরিয়ে যাওয়ার পরও এই কাঠামো চূড়ান্ত করতে পারেনি সংস্থাটি। বেসামরিক বিমান চলাচল ও পর্যটন মন্ত্রণালয় এ ব্যাপারে নির্দেশনা দেওয়ার পরও তা বারবার উপেক্ষিত হয়েছে। একবার কাঠামো তৈরি হয়ে গেলে নিয়োগ বাণিজ্য বন্ধ হয়ে যাবে বলেই তা তৈরি হচ্ছে না বলে অভিযোগ রয়েছে। এমনকি মন্ত্রীর নাম ভাঙিয়ে ভুয়া ডিও লেটার দিয়ে নিয়োগ বাণিজ্য চলেছে বলে কালের কণ্ঠে প্রকাশিত খবরে বলা হয়েছে।
বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনস থেকে সব অনিয়ম-দুর্নীতি দূর করে সংস্থাটিকে শৃঙ্খলায় ফিরিয়ে আনা দরকার বলে আমরা মনে করি।



   শেয়ার করুন
   আপনার মতামত দিন
     সম্পাদকীয়
প্রতারকদের প্রশ্রয় নয়
.............................................................................................
আত্মহত্যা ও বিবিধ আলোচনা
.............................................................................................
দুর্ঘটনা প্রতিরোধই কাম্য
.............................................................................................
ডিবি পরিচয়ে তুলে নেওয়া
.............................................................................................
প্রতিদিন ১৫ জন নিহত দুর্ঘটনায়
.............................................................................................
খুন-খারাবি চলছেই
.............................................................................................
রোহিঙ্গা নিপীড়ন বন্ধ করতে হবে
.............................................................................................
সক্রিয় সংঘবদ্ধ প্রতারকচক্র
.............................................................................................
ঢাকার খুচরা দোকানিরা বেপরোয়া
.............................................................................................
চাল নিয়ে কারসাজি
.............................................................................................
প্রতারণা সৌদি আরবেও
.............................................................................................
বেড়েছে চাল আমদানি, উৎপাদন বাড়াতে হবে
.............................................................................................
শ্রমঘন শিল্পের দিকে বেশি মনোযোগ দিন
.............................................................................................
গরুচোর সন্দেহে চারজনকে পিটিয়ে হত্যা
.............................................................................................
ইয়াবার বিস্তার রোধে কঠোর পদক্ষেপ নিন
.............................................................................................
দক্ষ কর্মীর অভাব
.............................................................................................
শিশু ধর্ষণ ও হত্যা: নজিরবিহীন বর্বরতা
.............................................................................................
অবাধ লুটপাট বিমানে
.............................................................................................
অস্থিরতা বিদেশি শ্রমবাজারে
.............................................................................................
বেড়েই চলেছে ধর্ষণ গণধর্ষণ: সম্মিলিত পদক্ষেপ জরুরি
.............................................................................................
আবারও বাড়ল গ্যাসের দাম
.............................................................................................
অস্থির চালের বাজার
.............................................................................................
নিঝুম দ্বীপে নৈরাজ্য
.............................................................................................
অর্থ প্রেরণ-বিতরণ সহজ হোক
.............................................................................................
সড়ক দুর্ঘটনা রোধে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করুন
.............................................................................................
এমপি লিটন হত্যা গণতান্ত্রিক শাসনব্যবস্থার ওপর বড় আঘাত
.............................................................................................
দুর্নীতি কর আহরণে
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

সম্পাদক ও প্রকাশক : মোহাম্মদ আখলাকুল আম্বিয়া
নির্বাহী সম্পাদক: মাে: মাহবুবুল আম্বিয়া
যুগ্ম সম্পাদক: প্রদ্যুৎ কুমার তালুকদার

সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক কার্যালয়: স্বাধীনতা ভবন (৩য় তলা), ৮৮ মতিঝিল বাণিজ্যিক এলাকা, ঢাকা-১০০০। Editorial & Commercial Office: Swadhinota Bhaban (2nd Floor), 88 Motijheel, Dhaka-1000.
সম্পাদক কর্তৃক রঙতুলি প্রিন্টার্স ১৯৩/ডি, মমতাজ ম্যানশন, ফকিরাপুল কালভার্ট রোড, মতিঝিল, ঢাকা-১০০০ থেকে মুদ্রিত ও প্রকাশিত ।
ফোন : ০২-৯৫৫২২৯১ মোবাইল: ০১৬৭০৬৬১৩৭৭

Phone: 02-9552291 Mobile: +8801670 661377
ই-মেইল : dailyswadhinbangla@gmail.com , editor@dailyswadhinbangla.com, news@dailyswadhinbangla.com

 

    2015 @ All Right Reserved By dailyswadhinbangla.com

Developed By: Dynamic Solution IT