শুক্রবার, ২৬ জুলাই 2024 বাংলার জন্য ক্লিক করুন
  
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

   এক্সক্লুসিভ
  বর্জ্য পরিশোধনের নামে বিদেশী প্রতিষ্ঠানের প্রতারণা
  Fri Sep 18 15:56:54 2015

মাহবুবুল আম্বিয়া : ঢাকা ইপিজেডের কেন্দ্রীয় বর্জ্য শোধনাগারে (সিইটিপি) ৫৬টি ডায়িং অ্যান্ড ওয়াশিং কারখানার দূষিত তরল বর্জ্য পরিশোধন হওয়ার কথা। এজন্য ওসব প্রতিষ্ঠানগুলো থেকে প্রতি মাসে গড়ে ১ কোটি ৬০ লাখ টাকা আদায় করছে সিঙ্গাপুরের কোম্পানি ফ্ল্যাগশিপ ঢাকা সিইটিপি (বিডি) লিমিটেড। অথচ ওই বিদেশী কোম্পানিটি যথাযথভাবে পরিশোধন না করেই দূষিত বর্জ্য নদীতে ফেলে দিচ্ছে। শুধু তাই নয়, মূল নকশার বাইরে একটি বাইপাস ড্রেন তৈরি করে দূষিত বর্জ্য পাম্পের মাধ্যমে সরাসরি ফেলা হচ্ছে পাশের তুরাগ নদে। ওই ড্রেন দিয়ে প্রতি ঘণ্টায় ৮০ ঘনলিটার বর্জ্য নদীতে গিয়ে মিশছে। তাছাড়া পরিশোধনের পর যে তরল নদীতে ফেলা হচ্ছে, তাতেও থাকছে না প্রয়োজনীয় অক্সিজেন। আর সিইটিপিতে দুটি অক্সিনাল ট্যাংক থাকার কথা থাকলেও পরিদর্শনে গিয়ে একটি অক্সিনাল ট্যাংক বন্ধ পায় পরিবেশ অধিদফতর। পরিবেশ অধিদফতর সূত্রে এ তথ্য জানা যায়।
সংশ্লিষ্ট সূত্র মতে, সম্প্রতি পরিবেশ অধিদফতরের একটি দল ঢাকা ইপিজেড পরিদর্শনে গিয়ে নকশাবহির্ভূত বাইপাস ড্রেনটি শনাক্ত করে। পরিদর্শক দল দেখতে পায় ইটিপির ইলেকট্রো কন্টামিন্যান্ট রিমুভাল (ইসিআর) প্যানেলের মধ্যে নির্দিষ্ট একটি সুইচ (৪নং প্যানেলের ৩নং সুইচ) ব্যবহার করে পাম্পের মাধ্যমে বাইপাস ড্রেনে বর্জ্য ফেলে কোনো ধরনের পরিশোধন ছাড়াই তা নদীতে ফেলা হচ্ছে। সিইটিপির অ্যারেশন ট্যাংকের পাশে ১৮ ইঞ্চির দুটি পাইপ বসিয়ে তা কংক্রিটের স্ল্যাবের ভেতর দিয়ে নিয়ে গিয়ে অপরিশোধিত তরল বর্জ্য যে বাইরে ফেলা হচ্ছে তাও দেখতে পায় পরিদর্শক দল। তাছাড়া সেখান থেকে পরিশোধিত বর্জ্যরে নমুনা পরীক্ষা করে বায়োকেমিক্যাল অক্সিজেন ডিমান্ড (বিওডি) পাওয়া যায় ১০৮ মিলিগ্রাম পার লিটার। অথচ বিএডির গ্রহণযোগ্য মাত্রা সর্বোচ্চ ৫০ মিলিগ্রাম। কেমিক্যাল অক্সিজেন ডিমান্ড (সিওডি) পাওয়া গেছে ৩১৯ মিলিগ্রাম পার লিটার। যদিও এর গ্রহণযোগ্য মাত্রা ২০০ মিলিগ্রাম। আর গ্রহণযোগ্য মাত্রা দশমিক ৫ হলেও দ্রবীভূত অক্সিজেন পাওয়া গেছে সাড়ে ৪ থেকে ৮ মিলিগ্রাম পার লিটার। এসবের ভিত্তিতে বর্জ্য পরিশোধনে দায়িত্বরত বিদেশী প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার সুপারিশ করে পরিবেশ অধিদফতরের পরিদর্শক দল।
সূত্র জানায়, ঢাকা ইপিডেজে বর্জ্য পরিশোধন না করেই তার জন্য অর্থ আদায় করছে বিদেশী কোম্পানি ফ্ল্যাগশিপ ঢাকা সিইটিপি (বিডি) লিমিটেড। গত জুলাই মাসে ৫৬টি কারখানার বর্জ্য পরিশোধন বাবদ কোম্পানিটি ১ কোটি ৫৮ লাখ টাকা আদায় করেছে। আর কোম্পানিটি চলতি বছরের প্রথমার্ধে মাসিক গড়ে ১ কোটি ৬০ লাখ টাকা বিল আদায় করেছে। প্রতি লিটার বর্জ্য পরিশোধনের জন্য আদায় করা হয় ৩১ টাকা ৬০ পয়সা। অথচ পরিবেশ অধিদফতর ২০১৩ সালের ১৭ মার্চ ফ্ল্যাগশিপ ঢাকা সিইটিপি বিডি লিমিটেড পরিচালিত সিইটিপির মাধ্যমে পরিশোধিত পানির নমুনা পরীক্ষা করে প্রতি লিটার পানিতে বিওডি ৮০ মিলিগ্রাম ও ৩২১ মিলিগ্রাম সিওডি পায়। পরে পরিবেশ অধিদফতরের সদর দফতরে একই বছরের ৫ মে শুনানি করে সিঙ্গাপুরভিত্তিক কোম্পানিটিকে কোনো জরিমানা না করেই শুধু সতর্ক করে। তখন কোম্পানির এমডি জিম সিলভারম্যান এ ধরনের ঘটনার পুনরাবৃত্তি আর ঘটবে না মর্মে স্বাক্ষর করেন। কিন্তু সিঙ্গাপুরের কোম্পানিটি তাদের সেই প্রতিশ্রুতি রাখেনি। পরে গত বছরের ৩০ ডিসেম্বর পরিবেশ অধিদফতরের মনিটরিং ও এনফোর্সমেন্ট দল পুনরায় পরিদর্শনে গিয়ে সংগৃহীত নমুনা পরীক্ষা করে প্রতি লিটার পানিতে ১২০ মিলিগ্রাম বিওডি ও ৩৮৩ মিলিগ্রাম সিওডি পায়। তাছাড়া দুটি অক্সিনাল ট্যাংকের একটি বন্ধ পাওয়া যায়। গত ২৭ জানুয়ারির ওই পরিদর্শনে পরিবেশ অধিদফতর প্রতিষ্ঠানটিকে পরিবেশ দূষণের দায়ে ৩৮ লাখ ৪০ হাজার টাকা জরিমানা করে। জরিমানা দিয়ে এমনটি আর হবে না মর্মে আবারো ওয়াদা করেন জিম সিলভারম্যান। তবে জরিমানা দেয়ার ৮ মাস পর পরিদর্শনে গিয়ে আরো ভয়াবহ চিত্র দেখতে পায় পরিবেশ অধিদফতর। এবার তারা বাইপাস লাইনও শনাক্ত করতে সক্ষম হয়।
সূত্র আরো জানায়, বাংলাদেশ এক্সপোর্ট প্রসেসিং জোনস অথরিটির (বেপজা) নিজস্ব পরীক্ষাগার রয়েছে। আছে পরিবেশ পরামর্শকও। তবে ল্যাবের সক্ষমতা কম থাকায় দূষণের সব প্যারামিটার পরীক্ষা করতে পারে না তারা। আর এ সুযোগেই প্রয়োজনীয় অক্সিজেন না মিশিয়েই বর্জ্য ফেলা হচ্ছে নদীতে। তবে পরিবেশ অধিদফতরের পরিদর্শনের পর বিষয়টিকে গুরুত্বসহকারে দেখছে ইপিজেড কর্তৃপক্ষ। বেপজা বর্জ্য পরিশোধনের এ প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করে বাংলাদেশ ইনভেস্টমেন্ট ক্লাইমেট ফান্ডের (বিআইসিএফ) সহযোগিতায়। তাছাড়া সিইটিপি স্থাপনে ইন্টারন্যাশনাল ফিন্যান্স করপোরেশন (আইএফসি), যুক্তরাজ্যের দাতা সংস্থা ডিএফআইডি ও ইউরোপীয় কমিশনেরও (ইসি) আর্থিক সহায়তা ছিল। চুক্তি অনুযায়ী বিল্ড অপারেট পদ্ধতিতে ৩০ বছর সিইটিপি পরিচালনা করবে সিঙ্গাপুরের কোম্পানিটি। সে হিসাবে ২০১২ সাল থেকে থেকেই কোম্পানিটি সিইটিপি পরিচালনা করে আসছে।
এদিকে বর্জ্য পরিশোধন না করেই অর্থ আদায় প্রসঙ্গে পরিবেশ অধিদফতর সংশ্লিষ্টরা বলছেন- ঢাকা ইপিডেজে বর্জ্য পরিশোধনের নামে সিঙ্গাপুরের কোম্পানিটি যা করছে তা চরম প্রতারণা। বর্জ্য পরিশোধনের নামে কোম্পানিটি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান থেকে টাকা নিলেও তা না করেই দূষিত বর্জ্য নদীতে ফেলছে। পরিবেশ দূষণ করছে। মূলত খরচ বাঁচাতেই বিদেশী কোম্পানিটি প্রতারণার আশ্রয় নিচ্ছে। শুধু এবারই নয়। এর আগেও সেখানে দুবার পরিদর্শনে যায় পরিবেশ অধিদফতর এবং অনিয়ম দেখতে পেয়ে প্রথমবার সতর্ক করলেও দ্বিতীয়বার জরিমানা করে। উভয় ক্ষেত্রেই এমনটি আর হবে না মর্মে প্রতিশ্রুতি দেন কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক জিম সিলভারম্যান। তবে সে প্রতিশ্রুতি রাখা হয়নি।
তবে পরিবেশ অধিদফতর সংশ্লিষ্টদের বর্জ্য পরিশোধনের নামে প্রতারণার অভিযোগ অস্বীকার করে সিঙ্গাপুরভিত্তিক ওই কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক জিম সিলভারম্যান জানান, এসব তথ্য সঠিক নয়। টেলিফোনে এর বেশি বলতে রাজি হননি তিনি।
অন্যদিকে এ প্রসঙ্গে বেপজার জেনারেল ম্যানেজার (ডিইপিজেড) মো. আবদুস সোবহান বলেন, এ বিষয়ে বেশকিছু পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। বিস্তারিত জানার জন্য তদন্ত করা হচ্ছে। তদন্ত প্রতিবেদনের সুপারিশের ভিত্তিতেই ব্যবস্থা নেয়া হবে। আর তদন্ত চলাকালীন আর কিছু বলা সম্ভব নয়।



   শেয়ার করুন
   আপনার মতামত দিন
     এক্সক্লুসিভ
সিলেটে আওয়ামী লীগের প্রমিথিউস সুলতান মনসুর
.............................................................................................
চাকরি না পেয়ে হতাশায় আত্মহত্যা জাবি শিক্ষার্থীর!
.............................................................................................
শোকের নদী ‘বিত্তিপাড়া’, এখনও নাম ওঠেনি বধ্যভূমির তালিকায়
.............................................................................................
রাহু গ্রাসে সাংবাদিক সমাজ, বানানো হচ্ছে শ্রমদাস
.............................................................................................
মধু সর্ব রোগের শেফা
.............................................................................................
পিছিয়ে পড়া নারী সমাজকে নিয়ে ‌`ভয়েস অব ওমেন`
.............................................................................................
যুক্তরাজ্যের অবৈধ নাগরিকদের ঠাঁই হবে রুয়ান্ডায়
.............................................................................................
করোনাকালে ভোলায় ২২ হাজার শিক্ষার্থী বাল্যবিয়ের শিকার
.............................................................................................
নিরাপত্তা ঝুঁকিতে অস্ট্রেলিয়া
.............................................................................................
যুদ্ধের প্রভাব: লন্ডনে ডিজেলের লিটার ২০০ টাকা
.............................................................................................
তনু হত্যার ৬ বছর: চোরাবালিতে আটকে আছে তদন্ত, শনাক্ত হয়নি আসামি
.............................................................................................
সৌন্দর্যের লীলাভূমি ‘আশুরার বিল’
.............................................................................................
আতঙ্ক বাড়াচ্ছে করোনা
.............................................................................................
বাংলাদেশে কী ধরণের সমরাস্ত্র বিক্রি করতে চায় তুরস্ক
.............................................................................................
কুষ্টিয়ার যতীন্দ্রনাথ যেভাবে হলেন ‘বাঘা যতীন’
.............................................................................................
বেকার যুবকদের ভাগ্য বদলে বিশেষ ঋণ
.............................................................................................
খাদ্য নিরাপত্তায় এখনও অনেক পিছিয়ে বাংলাদেশ
.............................................................................................
খুলনায় মাদক সম্রাট শাহজাহান আটক
.............................................................................................
স্থানীয় নির্বাচন: ক্ষমতাসীন দলে তীব্র অভ্যন্তরীণ কোন্দলের আশঙ্কা
.............................................................................................
নাশকতার আশঙ্কায় দেশে সর্বোচ্চ সতর্কতা
.............................................................................................
গম উঠাচ্ছে না মিলাররা
.............................................................................................
বর্জ্য পরিশোধনের নামে বিদেশী প্রতিষ্ঠানের প্রতারণা
.............................................................................................
নিষিদ্ধ ঘোষিত ওষুধ অবাধে বিক্রি হচ্ছে বাজারে
.............................................................................................
কোরবানির গরু ফুলানো হচ্ছে ভিটামিন দিয়ে
.............................................................................................
‘ফাঁসির মঞ্চে দাঁড়িয়ে স্ত্রীর উদ্দেশে যা বলেছিলেন এরশাদ শিকদার’
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
    2015 @ All Right Reserved By dailyswadhinbangla.com

Developed By: Dynamic Solution IT